শিরোনাম:
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮

Bijoynews24.com
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১
প্রথম পাতা » জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রংপুর | রাজনীতি | শিরোনাম » যাতায়াতের রাস্তা কেটে ফেলায় প্রায় ১০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ
প্রথম পাতা » জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রংপুর | রাজনীতি | শিরোনাম » যাতায়াতের রাস্তা কেটে ফেলায় প্রায় ১০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

যাতায়াতের রাস্তা কেটে ফেলায় প্রায় ১০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ

---মো:রেজাউল করিম রঞ্জু, নীলফামারী প্রতিনিধি:

নীলফামারীর ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের স্টেশনপাড়ায় ৬টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ যাতায়াতে দুর্ভোগে হয়েছে। মানুষের চলাচলের রাস্তা কেটে প্রতিবন্ধকতা তৈরী করেছে ওই এলাকার মৃত নজির উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক রাজু। সরকারী নকশাভুক্ত রাস্তাটি কেটে ফেলায় এলাকার শতশত মানুষ অভিযোগ করেন।

গতকাল সোমবার সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় ব্যক্তি ফজলুল হক, জাকির হোসেন, শাহিনুল ইসলাম ও  তোফাজ্জল হোসেনের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইচ্ছাকৃত ভাবে মৃত নজির উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক রাজু রাস্তাটি কেটে আমাদের চলাচলের বিঘœ সৃষ্টি করেছে। ওই রাস্তা দিয়ে আমরা স্কুল কলেজ, ষ্টেশন বাজার, ডোমার উপজেলা শহড়, সহ প্রয়োজনীয় বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত যাতায়াত করে থাকি। এই মুল রাস্তাটি কেটে ফেলায় আমরা ৬টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ ভোগান্তিতে আছি। রাস্তাটি এমন ভাবে কেটে ফেলছে রিক্সা-ভ্যান, অটো,বাইসাইকেল, এমন কি হেঁটে যাওয়াও সম্ভব নয়।

এ বিষয়ে আব্দুর রাজ্জাক রাজু বলেন, রাস্তাটি সরকারী নকশাভূক্ত। কিন্তু রাস্তাটি আমার জমির উপড় দিয়ে হয়েছে, তাই জমির মালিক আমি। মাছ চাষের জন্য রাস্তা কেটে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করছি।

ওই এলাকার সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য রুনা লায়লা জানান, ইতিপূর্বে ওই রাস্তায় পানি নিষ্কাশনের জন্য একটি ইউড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। রাজু ওই কাজটিও বন্ধ করে দেয়। রবিবার দুপুরে চলাচলের রাস্তাটিও সে কেটে দিয়েছে।

এ বিষয়ে জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু হাসানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি, আমি সরেজমিনে গিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।

নীলফামারীতে আবাদি জমিতে ইটভাটা

হুমকির মুখে পরিবেশ

মো:রেজাউল করিম রঞ্জু,নীলফামারী প্রতিনিধি:

আইন ও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে নীলফামারীর ছয় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ধান ক্ষেত ও ফসলি জমিতে ইটভাটা গড়ে উঠায় গিলে খাচ্ছে আবাদি জমি, হুমকির মুখে পরিবেশ। স্থানীয় প্রশাসন কৃষি ও পরিবেশ অধিদপ্তরের চোখের সামনে ইটভাটা মালিকরা অবৈধভাবে ইটভাটা নির্মান করছেন এমন অভিযোগ করছেন কৃষকেরা। ইটভাটার মালিকরা নিয়মনীতির কোন তোয়াক্কা না করে ফসলি জমিতে গড়ে তোলেন ইটভাটা। পরিবেশ সংরক্ষণ আইন-১৯৯৫, পরিবেশ বিধিমালা- ১৯৯৭, ইটপোড়ানো (নিয়ন্ত্রণ) আইন-২০০১ এবং শব্দ দূষণ বিধিমালা-২০০৬ আইন থাকলেও অবৈধ ইটভাটার মালিকরা তা মানছে না।

নীলফামারী সদর উপজেলার গোড়গ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেয়াজুল ইসলাম জানান, তার ইউনিয়নে ৬টি ইট ভাটা রয়েছে। ভাটার কারণে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে। অবৈধ ট্রাক্টর গাড়ীতে ইট বহন করায় সড়ক ফেটে চৌচির হয়ে গেছে। বিভিন্ন ফসলি জমিতে গড়ে উঠেছে ইটভাটা। জেলার অধিকাংশ ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তর, কৃষি অফিসের ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসনের লাইসেন্স ছাড়া ঝিকঝ্যাঁক, ড্রাম চিমনী (ব্যারেল) ও কাচা ইট পোড়ানোর কাজ দ্রুত গতিতে চলছে।

জ্বালানী হিসাবে অনেক ইটভাটায় কয়লার পরিবর্তে কাঠ ব্যবহারের জন্য গ্রাম থেকে বিভিন্ন জাতের গাছ কেটে এনে ভাটায় পোড়াচ্ছে। এত পরিবেশ বিপর্যয়সহ জনস্বাস্থও মারাত্মক হুমকীর আশংকা করেছে পরিবেশবাদীরা। কৃষি জমিতে ইটভাটা নির্মান করায় ফসল নষ্ট হচ্ছে। দিন দিন কমে যাচ্ছে ফসলি জমি। ২০১৪ সালের ১লা জুলাই থেকে কার্যকর হওয়া ইট প্রস্তত ও ভাটা স্থাপন সংশোধিত আইনের ৮(১) অনুযায়ী লোকালয়, আবাসিক ও পৌরসভা এলাকায় এবং কৃষি জমিতে ইট ভাটা স্থাপন ও ইট পোড়ানো আইনগত নিষিদ্ধ। একই আইনের ৫ ধারায় ইট প্রস্তত কাজে কৃষি জমির উপরিভাগ এবং যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত ব্যতিত পুকুর, খাল, বিল, দিঘী, ধাঁড়ি ও নদী থেকে মাটি কেটে ইটভাটায় ব্যবহার করাও দন্ডনীয় অপরাধ। এছাড়া স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক নির্মিত উপজেলা ইউনিয়ন বা গ্রামীন সড়ক ও এল জি ই ডি রাস্তা থেকে কমপক্ষে ১ কিলোমিটার দূরত্বের মধ্যে ইটভাটা স্থাপন করার নিয়ম থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। প্রায়ই ইটভাটা গুলি রাস্তা সংলগ্ন স্থাপন করেছেন। আইন অনুযায়ী আবাদি জমিতে বা ভাটার তিন কিলোমিটারের মধ্যে বা বাগান থাকলে ভাটা স্থাপনের কোন নিয়ম নেই। লোকালয় থেকে তিন কিলোমিটার দুরে যেখানে জনবসতি নেই এমন জায়গায় ইট ভাটা নির্মাণ করতে হবে কিন্তু নীলফামারীতে কৃষি জমি দখল করেই প্রতি বছর গড়ে তোলা হচ্ছে নতুন নতুন ইটভাটা। একই সাথে ইটভাটার জন্য সর্বোচ্চ দুই একর জমি ব্যবহারের নিয়ম থাকলেও অধিকাংশ ইটভাটায় এ নিয়ম মানা হচ্ছে না।

কার্বন-ডাই-অক্সাইড মিশ্রিত কালো ধোঁয়া পরিবেশের মারাত্মক হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইটভাটার ঝাঁঝালো ধোঁয়ায় ঢেকে যাচ্ছে গ্রামের পর গ্রাম জনপদ। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পরিবেশ। বিনষ্ট হচ্ছে জমির ফসল।

জেলা কৃষিসম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, কৃষি জমিতে ইটভাটা নির্মানের জন্য আমরা কোন ছাড়পত্র দেইনী। যদি কেউ করে থাকে তাহলে অবৈধ ভাবে করেছে। কৃষি জমিতে ইটভাটা করলে ফসলি জমি নষ্ট হয়ে থাকে এবং ফসলের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে থাকে। কোন ইটভাটার আমি প্রত্যায়ন দেইনি। ইটভাটাগুলি প্রত্যায়ন ছাড়াই তৈরী করেছে।

রংপুর বিভাগের পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ইটভাটা নির্মান করতে হলে পরিবেশের ছাড়পত্র লাগবে। পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়া ইটভাটা নির্মান করতে পারবেনা। কিন্তু অনেক ইটভাটা মালিকেরা আইন অমান্য করে অবৈধভাবে ইটভাটা নির্মান করেছে। যা পরিবেশ মারাত্মক হুমকীর মুখে পড়ছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ইটভাটা গুলিতে পরিবেশের ছাড়পত্র ও কৃষি প্রত্যয়ন না থাকলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে আইনানুগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
মুসলমানদের নিকট মসজিদুল আকসা এতোটা গুরুত্বপূর্ণ কেন ?
গভীর রাতে মসজিদে কিশোরীর সঙ্গে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ ইমাম আটক
শতাধিক রকেট হামলা হামাসের, ২ ইসরাইলি নিহত
বৈদ্যুতিক ট্রেনের যুগে প্রবেশ করল বাংলাদেশ
ক্ষোভে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব
অসামাজিক কার্যকলাপ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানকে আটকে বিয়ে দিলেন এলাকাবাসী
বাবুল আক্তার গ্রেপ্তার
মিরপুর থানা পরিদর্শন করলেন পুলিশ সুপার
বিএডিসির কর্মকর্তা করোনায় মৃত্যু
টিকটক-লাইকিতে আসক্তি নিয়ে ঝগড়া, স্ত্রীকে হত্যার পর থানায় আত্মসমর্পণ
চিলাহাটি জে.ইউ.ফাজিল মাদ্রাসায় দোয়া ও ইফতার অনুষ্ঠিত
মিয়ানমারে সেনা ঘাঁটি দখল করে আগুন ধরিয়ে দিল বিদ্রোহীরা
বিসিএস ক্যাডার পরিচয়ে এক ডজন বিয়ে করলো তরুণী
রিকশাচালকের ৬০০ টাকা কেড়ে নেয়ায় পুলিশের তিন সদস্য সাময়িক বরখাস্ত!
চিলাহাটিতে অসহায় মানুষদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী, বস্ত্র ও টাকা বিতরণ
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পৃথিবীর দিকে তীব্র গতিতে ধেয়ে আসছে চীনা রকেটের ১০০ ফুট অংশ
কুষ্টিয়া পৌরসভার কর কর্মকর্তা বরখাস্ত নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম ইসলাম ওএসডি
পুলিশকে চাঁদা দিয়ে না খেয়ে রোজা রাখলেন রিকশাওয়ালা
একাধিক নারীর সঙ্গে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল হেফাজত নেতা জাকারিয়ার
এসআইয়ের ড্রয়ার থেকে ঘুষের আড়াই লাখ টাকা বের করলেন এএসপি