শিরোনাম:
ঢাকা, সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

Bijoynews24.com
শনিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২০
প্রথম পাতা » বক্স্ নিউজ | শিরোনাম | সাহিত্য ও সংস্কৃতি » “করোনা ভাইরাস সংক্রামিত এক যুব‌কের আর্তনাদ”
প্রথম পাতা » বক্স্ নিউজ | শিরোনাম | সাহিত্য ও সংস্কৃতি » “করোনা ভাইরাস সংক্রামিত এক যুব‌কের আর্তনাদ”
শনিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২০
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

“করোনা ভাইরাস সংক্রামিত এক যুব‌কের আর্তনাদ”

 

মোহাঃ শাহ আলম রেজা : ১৮ এপ্রিল ২০২০:

---হাসপাতালের বিছানা থেকে বলছি, দয়া করে শুনবেন কি ?- আমি কদম বলছি তরতাজা, তাগড়া, নিরোগ যুবক (বয়স-৩০)। ভেবেছিলাম, এই মহামরী “”করোনাভাইরাস”" আমার রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থা ভাঙতে পারবে না। ষোলো দিন আগে, আমার জ্বর হলো, সাধারণ ফ্লু ভেবে চুপচাপ কাটিয়ে দিলাম দিনটা। পনেরো দিন আগে, শরীরে ব্যথা, জ্বর কমে-বাড়ে, পেইনকিলার খেলাম দু’টো। চৌদ্দ দিন আগে, জ্বর আসে- যায়, শরীরের ব্যথা বাড়ে তো বাড়েই, সিজন চেইঞ্জ হচ্ছে, আমি ফ্লুতেই থাকলাম, আমি পেইনকিলারেই থাকলাম। তেরো দিন আগে, আমার সারাদেহে ব্যথা কমলো, তারপর শুরু হলো গলা ব্যথা। বারো দিন আগে, খুশখুশে কাশি, গলা ব্যথা বাড়ে-কমে, জ্বর ছিলো, আশঙ্কিত আমি ডায়াগনোসিসে গেলাম। এগারো দিন আগের ভোরে জানলাম যে আমি কোভিড-১৯ পজিটিভ, স্বাদ ও ঘ্রাণ এই দুই ইন্দ্রিয় ক্ষমতা হারাতে আরম্ভ করলো। দশ দিন আগে, দু’কানের ভিতরে তীক্ষ্ণ ব্যথা, স্বাদ নেই, গন্ধ নেই, ব্যথা গলায়, কাশি, জ্বর দেহে। নবম দিন থেকে, বাকি সব উপসর্গের সাথে আরম্ভ হলো শ্বাসে কষ্ট। অষ্টম, সপ্তম, ষষ্ঠ দিন গেলো, সে কী প্রাণপণ চেষ্টা আমার, একটু বাতাস নিতে বুকের ভিতরে নেবার জন্য আমি অস্থির, ইয়া আল্লাহ এ-জগতে একমুঠো হাওয়া কি নাই! আজ থেকে ছয় দিন আগে ঘর থেকে বের করা হয়েছিলো আমাকে- পুলিশ ছিলো দু’জন, দু’জন স্বাস্থ্যকর্মী ছিলো, আর ছিলো একটি অ্যাম্ব্যুলেন্স। আমার মাকে উঠতে দেওয়া হয়নি অ্যাম্ব্যুলেন্সে, আমার বাবাকে আসতে দেওয়া হয়নি আমার সাথে, আমার ভাইকে আটকে দেওয়া হয়েছে ঘরের দুয়ারেই, আমার বোন তখন অজ্ঞান আমার শোকে। অ্যাম্ব্যুলেন্স চলছিলো তার প্রিয় নিজ সাইরেন বাজিয়ে; ভেতরে চিৎ হয়ে শোওয়া আমি, আমিএকটু নিশ্বাসের খোঁজে আথালি পাথালি, আমি মাথাটা একটু তুলে আমার দু’পায়ের ফাঁক দিয়ে অ্যাম্ব্যুলেন্সের দরোজার ছোট্ট জানলা দিয়ে দেখেছিলাম- আমার মা আমার বিদায় পথের দিকে অপলকভাবে তাকিয়ে ধুলায় শুয়ে আছেন, দু’হাতে মাথাটা চেপে ধরে দু’হাঁটু ধুলায় গেঁথে অবিশ্বাসে তাকিয়ে আছেন আমার বাবা, আমার কাছে পৌঁছুবে বলে, ছুটছে… ছুটছে… ছুটছে… আমার ছোট দুই ভাই, আমার বোনটি তখন ঘরের মেঝেয় অচেতন। আমি শেষ দেখা দেখেছিলাম আজন্ম প্রিয়তম মানুষগুলোর কান্নায় ভেজা মুখ গুলো । আজ ছয়দিন, আমি হাসপাতালের আইসিইউ-কক্ষের ভিতরে, শুভ্র বিছানায় শুয়ে আছি। ওষুধ নেই এই জগতে এ-ব্যাধির, এই যে ছয়-ছয়টা দিন বেঁচে ছিলাম, রোগপ্রতিরোধী পথ্য খেয়ে, যদি মিরাকল হয়, যদি সেরে ওঠে পরাজিত দেহটা আমার! হাজারো-হাজারো সন্তান এভাবেই হয়তো ফিরে যেতে পেরেছে মায়ের কোলে, বাবার বুকে! হয়তো আমি না-ফেরার দলে, আজ, ডাক্তারের চোখের দিকে তাকিয়ে, আমার বুঝতে অসুবিধে হয়নি, আমি মারা যাচ্ছি। নার্সের চোখে আমি জল দেখেছি গতকাল, জেনেছি এই জন্মভূমি, এই পৃথিবী, আমার মায়ের বুক, আর আমার নয়। এখন আমি মারা যাচ্ছি। জানি, আমার লাশটাকে ছুঁতে দেওয়া হবে না আমার পরিবারের পরিজনদের কাউকেই, আমি লোক মুখে শুনেছি ও খবরে দেখেছি “”করোনা ভাইরাস সংক্রামিত” রুগীদের লাশের পাশে জানাজা সময় থাকে শুধুই দেশের পুলিশ তাহলে আমার জানাজা হবে হয়তো পাঁচজন পুলিশের সামনে, জানি, আমাকে দাফন করা হবে চারজন অনাত্মীয়ের কাঁধে চড়ে; আমার মা নিষিদ্ধ, আমার বাবা নিষিদ্ধ, নিষিদ্ধ আমার ভাই ও বোন, নিষিদ্ধ আমার আত্মীয় স্বজনরা, নিষিদ্ধ আমার ছোট বেলার বন্ধুরা, নিষিদ্ধ আমার পাড়া-প্রতিবেশীরা আমার কাছে, আমার লাশেরও পাশে। আমি কদম তাগড়া যুবক (বয়স-৩০) করোনাভাইরাসের কাছে হেরে যাওয়া, এক কাবু তরতাজা যুবক। আমি আজ শেষ বারের মত সমস্ত পৃথিবীতে বেঁচে থাকা চেনা-অচেনা সকল মানুষদের উদ্দেশ্যে হাসপাতালের বিছানা থেকে বলছি, দয়া করে আমার কথা শুনবেন প্লিজ?- আজ থেকে সতেরো দিন আগে আমি আমার মায়ের নিষেধ সত্ত্বেও ঘর ছেড়ে বেরিয়েছিলাম । আমারই অসচেতনতার জন্য আমার দেহেতে বয়ে যাওয়া “” করেনা ভাইরাস”" নামক এ-মরণব্যাধি আমার মা, বাবা, ভাই কিংবা বোনের দেহে সংক্রমণ করে দিয়ে মরে যাচ্ছি কিনা। মানুষ সবাই ঘরে থাকবেন প্লিজ? অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হবেন না। সরকারের বিধিনিষেধ মেনে চলুন এ মৃত্যু জগতের নির্মমতম মৃত্যু।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
নারী হাফেজকে ধর্ষণের মামলায় কারাগারে মাদ্রাসা শিক্ষক
‘লকডাউনের’ প্রথম দিন রাজধানীতে গ্রেপ্তার ৪০৩
লঘুচাপের প্রভাবে সাগর উত্তাল, ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা, ফেরির মাস্টার বরখাস্ত
লকডাউনের প্রথম সকালে ট্রাকের ধাক্কায় ঝরল ৬ প্রাণ
কঠোর লকডাউন শুরু, শূন্য রাজপথ
চেতনা নাশক ইনজেকশন পুশ করে রোগীদের ধ”র্ষ’ণ করতো এই ডাক্তার!
করোনার ঝুঁকি সত্ত্বেও ঢাকা ছাড়ছে মানুষ, মানছে না স্বাস্থ্যবিধি
গতবারের চেয়েও কঠোর ভাবে মাঠে নামছে সেনাবাহিনী-বিজিবি
১৯ দিনের ছুটিতে দেশ
ভূমধ্যসাগরে নৌডুবিতে ১৭ বাংলাদেশির সলিল সমাধি
কঠোর বিধি-নিষেধের আওতামুক্ত থাকছে যেসব পণ্য ও প্রতিষ্ঠান
বিদেশযাত্রীদের জন্য অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চলবে
একদিনে ভারতে করোনায় ৩ হাজার ৯৯৮ জনের মৃত্যু
মহামারির মাঝে সারা দেশে ঈদ উদযাপন
আজ পবিত্র ঈদুল আজহা
নিউ লাইফ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ
বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে সরকারি নির্দেশনা না মানায় তিন সিএন্ডএফ প্রতিনিধিকে অর্থদন্ড
কুষ্টিয়ায় বাথরুমে ওড়নায় ঝুলছিল মা-ছেলের লাশ
বিএমএসএফের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটিতে ১২ সদস্যের অন্তর্ভুক্তি