শিরোনাম:
ঢাকা, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

Bijoynews24.com
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০১৯
প্রথম পাতা » জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » নুসরাতের গায়ে আগুন দেওয়ার আগে যেখানে লুকিয়ে ছিল খুনিরা
প্রথম পাতা » জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » নুসরাতের গায়ে আগুন দেওয়ার আগে যেখানে লুকিয়ে ছিল খুনিরা
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

নুসরাতের গায়ে আগুন দেওয়ার আগে যেখানে লুকিয়ে ছিল খুনিরা

---Bijoynews : শেষ পর্যন্ত বাঁচানো গেলো না নুসরাত জাহান রাফিকে। মা-বাবার আর্তি, সতীর্থসহ সকলের প্রার্থনা আর চিকিৎসকদের সর্বোচ্চ চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে পাঁচদিন একটানা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে বুধবার (১১ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে না ফেরার দেশে চলে গেছেন তিনি।

নুসরাতের শরীরে আগুন দেয়ার ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে দেশের জনগণ। সর্বত্র উঠেছে বিচারের দাবি।

এদিকে জানা গেছে, নুসরাতের গায়ে আগুন দেওয়ার আগে দুজন ছাত্র ও দুজন ছাত্রী বোরকা পরে সাইক্লোন সেন্টারের টয়লেটে লুকিয়ে ছিলেন। তাঁরাই নুসরাতের শরীরে আগুন লাগিয়েছেন।

আজ শনিবার (১৩ এপ্রিল) এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এমন দাবি করেছেন মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদার।

তিনি জানান, নুর উদ্দিনসহ কয়েকজন সিরাজ উদ দৌলার সঙ্গে দেখা করে নির্দেশ নিয়ে আসেন। ৫ এপ্রিল সকাল নয়টা থেকে সাড়ে নয়টার দিকে মাদ্রাসার কাছে থাকা হোস্টেলের পশ্চিম অংশে তাঁর মূল পরিকল্পনা করেন। সেখানেই নুসরাতকে পুড়িয়ে মারার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। অধ্যক্ষকে আটক করায় আলেম সমাজকে হেয় করা হয়েছে বলে মনে করেন তাঁরা। এই হেয় করা ও প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখানের ক্ষোভ থেকে নুসরাতকে পুড়িয়ে মারার সিদ্ধান্ত নেন। এ ঘটনায় দুজন মাদ্রাসাছাত্রী ও তিনজন ছাত্র জড়িত। এঁদের একজন মাদ্রাসাসংলগ্ন সাইক্লোন সেন্টারে তিনটি বোরকা ও কেরোসিন শাহদাতকে দিয়েছেন। পরে দুজন ছাত্র ও দুজন ছাত্রী বোরকা পরে সাইক্লোন সেন্টারের টয়লেটে লুকিয়ে ছিলেন। তাঁরাই নুসরাতের শরীরে আগুন লাগিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় আলিম পরীক্ষার কেন্দ্রে গেলে মাদ্রাসার ছাদে ডেকে নিয়ে নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে পালিয়ে যায় মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা। এর আগে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার বিরুদ্ধে করা যৌন হয়রানির মামলা প্রত্যাহারের জন্য নুসরাতকে চাপ দেয় তারা।

পরে আগুনে ঝলসে যাওয়া নুসরাতকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার চিকিৎসায় গঠিত হয় ৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড। সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নিচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উন্নত চিকিৎসার জন্য নুসরাতকে সিঙ্গাপুরে পাঠানোরও পরামর্শ দেন তিনি। কিন্তু সবার প্রার্থনা-চেষ্টাকে বিফল করে বুধবার (১০ এপ্রিল) রাতে মারা যায় ‘প্রতিবাদী’ নুসরাত।

এ ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, ২৭ মার্চ মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলা তার কক্ষে ডেকে নিয়ে নুসরাতের শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। তারই জেরে মামলা করায় নুসরাতকে আগুনে পোড়ানো হয়। শ্লীলতাহানির ওই মামলার পর সিরাজ উদ-দৌলাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আগুনে পোড়ানোর ঘটনায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলাকে সাত দিনের এবং ওই মাদ্রাসার ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক আবছার উদ্দিন, নুসরাতের সহপাঠী আরিফুল ইসলাম, নুর হোসেন, কেফায়াত উল্লাহ জনি, মোহাম্মদ আলা উদ্দিন ও শাহিদুল ইসলামকে পাঁচ দিন করে রিমান্ডে পাঠান আদালত। বৃহস্পতিবার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার ভাগনি উম্মে সুলতানা পপি এবং এজহারনামীয় মাদ্রাসাছাত্র জোবায়ের আহমেদকেও পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
নেত্রকোনার দুই রাজাকারের ফাঁসি
দৈনিক জয়যাত্রা অফিস থেকে অপহৃত উদ্ধার : আসামীদের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন
বাহ! কি চমৎকার সাংবাদিকতা ?
যে কারনে বিধবাদের বিয়ে করতে চান বেশির ভাগ সৌদি যুবক
দুই দফা খননেও সুফল মেলেনি গড়াই নদীর
একাধিক প্রেম করায় প্রেমিককে মেরে পুঁতে রাখে ফারজানা!
বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে কলেজ শিক্ষিকা নিহত
বাংলাদেশের কোনো ছবিতে অভিনয় করছি না, বললেন কোয়েল মল্লিক
আসামীদের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় বাদি ও তার পরিবার
পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণের মূলহোতা গ্রেফতার
কুষ্টিয়ায় গৃহবধুকে শারীরিক নির্যাতন করে গালে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা
সুন্দরগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন
শিক্ষকের কাজের মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা, ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা!
কুষ্টিয়ায় স্থানীয় পত্রিকা অফিস থেকে অপহৃত উদ্ধার : গ্রেফতার ৫
বাসে তল্লাশিকালে চালককে পিটিয়ে হত্যা ডিবি পুলিশের
হাকালুকি হাওরে বাদাম চাষে বিপ্লব
ধর্ষণের পর সে বললো ‘বাহ! বেশ মজা তো’
অষ্টম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রীর ধর্ষণ মামলা নেয়নি পুলিশ
ইবিতে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন ও প্রশাসন ভবন অবরোধ
বাবার টাকায় প্রশাসন চললে সরকারের টাকা গেল কই?