শিরোনাম:
ঢাকা, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

Bijoynews24.com
সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০১৯
প্রথম পাতা » ইভটিজিং / ধর্ষণ | জাতীয় সংবাদ | ঢাকা | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » মাদারীপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসার দুই ছাত্রীকে গণধর্ষণ
প্রথম পাতা » ইভটিজিং / ধর্ষণ | জাতীয় সংবাদ | ঢাকা | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » মাদারীপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসার দুই ছাত্রীকে গণধর্ষণ
সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

মাদারীপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসার দুই ছাত্রীকে গণধর্ষণ

---Bijoynews : মাদারীপুরে কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার বালিগ্রাম ইউনিয়নের মাদ্রাসার দুই ছাত্রীকে দু”দিন আটকে রেখে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গণ ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাশের এলাকার আটিপাড়া গ্রামের সাকিব ও হৃদয় তাদের ৩-৪ জন বন্ধু মিলে এই জগন্যতম কাজ করেছে। বখাটের পরিবার এলাকার প্রভাশালী ও সাকিব সাবেক ইউপি মেম্বারের ছেলে তাই টাকার বিনিময় ঘটনাটি দামাচাপা দেয়ার চেষ্ঠা চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।
অভিযুক্ত অসহায় পরিবার জানায়, গত বুধবার সকাল থেকে তাদের দুই মেয়ে (মাদ্রাসার ৫ম ও ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী) বাড়ী থেকে মাদ্রাসা যাওয়ার জন্য বের হওয়ার পর থেকে নিখোঁজ।  অনেক খোজাখুজির পর বৃহস্পতিবার রাতে ভাঙ্গাব্রীজ নামক স্থানে ইতালি প্রবাসী মাহবুব সর্দারের বিলাস বহুল বাড়ীতে তালাবদ্ধ অবস্থায় দুই মেয়েসহ বালীগ্রাম ইউনিয়ের আটিপাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি মেম্বার মজিবর হাওলাদের ছেলে সাকিব ও একই এলাকা হৃদয়, আলামিন, শাওনসহ ৪-৫ জনকে আটক করে এলাকাবাসী।

তবে পুলিশকে বিষটি জানালেও তারা দেরী করায় একই এলাকার সাবেক চেয়ারম্যান মতিন মোল্লাসহ এলাকার প্রভাবশালীদের নিয়ে টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেয়ার চেস্টা চালায়। মেয়ে পক্ষ এতে রাজী না হওয়া শুক্রবার বিষয়টি জানাজানি হলে ডাসার থানার পুলিশ এসে এক মেয়ে ও তার বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিকালে থানায় নিয়ে যায়।

মেয়ের মা, ভাই এর উপযুক্ত বিচারের দাবী জানিয়েছে। তারা বলেন আমরা গরিব অসহায়, আমাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায়, এই মেয়েটিকেতো বিবাহ দিতে হবে,  কে এই অবস্থায় বিয়ে করবে?  সরকারের কাছে আমাদের একটাই দাবী একটি সুন্দর বিচার।

মাদ্রাসায় পড়ুয়া একটি মেয়ে বলেন, আমার সাথে সাকিবের প্রেম ছিল সে আমাকে বিয়ে করবে বলে আমার সর্বনাশ করেছে আমি ওকেই বিয়ে করতে চাই।
এলাকার মাদ্রাসা এক শিক্ষক জানায়, এরা দুইজন বুধবার সকাল দশটার দিকে বইখাতা রেখে পালিয়েছে এরপর আর এদের খোজ পাওয়া যায়নি। এখনতো বাড়িতে এসে জানতে পারলাম এই ঘটনা।
আমার কাছে আসার পর সঠিক তথ্য চেয়ে সময় বেধে দিয়েছিলাম তারা আর আমার কাছে কোন তথ্য নিয়ে আসেন নাই।
অভিযুক্ত সাকিবের বাবার সাথে যোগাযোগ করার চেস্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে সাকিবের মা বলছে আমাদের অনেক শত্রু আছে তারা এগুলো করছে। আমার ছেলে ঘটনার রাতে বাড়ী ছিল। তাছাড়া তার বন্ধুরা তাকে ডেকে নিয়েছে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালাদার বলেন, আমরা একটি মেয়ে ও তার বাবা মামলা করার জন্য নিয়ে আসছি। প্রয়োজনে আরএকজনেও মামলা নেয়া হবে। আমরা চেস্টা করবো মেয়েদুটি যাতে তাদের উপযুক্ত বিচার পায় সেই ব্যবস্থা করবো। তাছাড়া যার শালিশ করছে তাদের বিরুদ্ধও ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
মাদ্রাসার দুটি মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন  দেখিয়ে দুদিন আটকে রেকে গনধর্ষনের ঘটনায় অভিযুক্ত সকলকে দ্রুত গ্রেফতার  করে উপযুক্ত শাস্তি দেয়া হোক এবং এরকম ঘটনা যাতে পুণরায় না ঘটে এমনটাই প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
নেত্রকোনার দুই রাজাকারের ফাঁসি
দৈনিক জয়যাত্রা অফিস থেকে অপহৃত উদ্ধার : আসামীদের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন
বাহ! কি চমৎকার সাংবাদিকতা ?
যে কারনে বিধবাদের বিয়ে করতে চান বেশির ভাগ সৌদি যুবক
দুই দফা খননেও সুফল মেলেনি গড়াই নদীর
একাধিক প্রেম করায় প্রেমিককে মেরে পুঁতে রাখে ফারজানা!
বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে কলেজ শিক্ষিকা নিহত
বাংলাদেশের কোনো ছবিতে অভিনয় করছি না, বললেন কোয়েল মল্লিক
আসামীদের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় বাদি ও তার পরিবার
পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণের মূলহোতা গ্রেফতার
কুষ্টিয়ায় গৃহবধুকে শারীরিক নির্যাতন করে গালে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা
সুন্দরগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন
শিক্ষকের কাজের মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা, ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা!
কুষ্টিয়ায় স্থানীয় পত্রিকা অফিস থেকে অপহৃত উদ্ধার : গ্রেফতার ৫
বাসে তল্লাশিকালে চালককে পিটিয়ে হত্যা ডিবি পুলিশের
হাকালুকি হাওরে বাদাম চাষে বিপ্লব
ধর্ষণের পর সে বললো ‘বাহ! বেশ মজা তো’
অষ্টম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রীর ধর্ষণ মামলা নেয়নি পুলিশ
ইবিতে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন ও প্রশাসন ভবন অবরোধ
বাবার টাকায় প্রশাসন চললে সরকারের টাকা গেল কই?