শিরোনাম:
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫

Bijoynews24.com
বুধবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
প্রথম পাতা » অনিয়ম-দুর্নীতি | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » সংসদ সচিবালয় কর্মচারীর কাণ্ড : ২২ লাখ টাকা আত্মসাৎ
প্রথম পাতা » অনিয়ম-দুর্নীতি | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » সংসদ সচিবালয় কর্মচারীর কাণ্ড : ২২ লাখ টাকা আত্মসাৎ
বুধবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

সংসদ সচিবালয় কর্মচারীর কাণ্ড : ২২ লাখ টাকা আত্মসাৎ

---Bijoynews : অভিনব উপায়ে সংসদ সচিবালয়ের এক কর্মচারী আত্মসাৎ করেছেন ২২ লাখ টাকা। এক বছরের মধ্যে তিনি ওই টাকা আত্মসাৎ করেন। আর পুরো টাকাটাই এসেছে সরকারি কোষাগার থেকে। এ নিয়ে সংসদ সচিবালয় প্রশাসনে চলছে তোলপাড়। নড়েচড়ে বসেছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এরকম আত্মসাতের ঘটনা আরো ঘটেছে কিনা তার সন্ধান করছেন তারা। অভিযোগের তীর সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র ক্যাশিয়ার রেজুয়ানুল হক সাদাত ওরফে সোহেলের দিকে। অপরাধ কবুলও করেছেন তিনি।তবে সংসদ সচিবালয় মনে করছে, ওই ঘটনার সঙ্গে আরো অনেকেই জড়িত। কারণ একা সোহেলের পক্ষে এত টাকা আত্মসাৎ করা সম্ভব নয়।

যোগসাজশ রয়েছে আরো অনেকের। অনুসন্ধানে জানা গেছে, সংসদ সচিবালয়ের ১২শ’ কর্মকর্তা ও কর্মচারীর বেতন ও শ্রান্তি বিনোদনের টাকা থেকে আত্মসাতের ঘটনা ঘটে। প্রতি তিন বছর পরপর সংসদ সচিবালয়ের একজন কর্মকর্তা ও কর্মচারী মূল বেতনসহ ১৫ দিন ছুটি পান। ওইসব কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সঙ্গে আগে থেকে যোগাযোগ করেন সোহেল। ওই টাকা উত্তোলনের জন্য নির্ধারিত সরকারি শিটে বেশি পরিমাণ টাকা উল্লেখ করা হতো। সেটা পাঠিয়ে দেয়া হতো সেগুনবাগিচায় হিসাব মহানিয়ন্ত্রক অফিসের সংসদ সচিবালয়ের প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কাছে। তার স্বাক্ষরের পরেই টাকা তুলতে পারেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারী। এদিকে আগে থেকে বাড়তি টাকার বিষয়ে কর্মকর্তা অথবা কর্মচারীর সঙ্গে মৌখিক চুক্তি হতো সোহেলের। অতিরিক্ত টাকার কিছু সংশ্লিষ্টকে দিয়ে বাকি টাকা যেতো সোহেলের পকেটে। যেমন- একজন কর্মচারীর মূল বেতন ২০ হাজার টাকা। সরকারি শিটে তার বেতন উল্লেখ করা হতো ৩০ হাজার টাকা।

অতিরিক্ত ১০ হাজার টাকা নিতো সোহেল। যার সঙ্গে যোগসাজশ করা হতো তাকে টাকার কিছু অংশ দেয়া হতো। এভাবে কর্মকর্তা ও কর্মচারীর নির্ধারিত বেতনের বেশি টাকা পাস করিয়ে তা আত্মসাৎ করে এসেছেন সিনিয়র ক্যাশিয়ার সোহেল। শ্রান্তি বিনোদনের ফান্ডের পাশাপাশি একইভাবে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতনের অতিরিক্ত টাকা তুলে আত্মসাৎ করেন তিনি। এ ঘটনার বিষয়ে লিখিতভাবে সংসদ সচিবকে জানিয়েছেন সংসদ সচিবালয়ের সহকারী সচিব (হিসাব) অর্থ তারেকুজ্জামান। সংসদ সচিব বিষয়টি স্পিকারকে অবহিত করলে তিনি তদন্তের নির্দেশ দেন।

পাশাপাশি তাৎক্ষণিক সোহেলকে হিসাব শাখা থেকে বদলি করা হয়। সংসদ সচিব লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে সোহেলকে নোটিশ দেন। তাতে তিন দিনের আলটিমেটাম দিয়ে বলা হয়, সরকারি কোষাগার থেকে অতিরিক্ত যে টাকা উত্তোলন করা হয়েছে তা ফেরত দিতে। নোটিশ পাওয়ার প্রথম দিনেই চার লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেন সোহেল। বাকি টাকা ফেরত দেবেন বলে জানান সংসদ সচিবকে। এ প্রসঙ্গে মানবজমিনকে সোহেল জানান, বিষয়টি নিয়ে কিছু বলার নেই। টাকা ফেরত দিচ্ছি।  এ প্রসঙ্গে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী মানবজমিনকে বলেন, ঘটনাটি শোনার পরই সংসদ সচিবকে ডেকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। এ বিষয়ে কাউকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ওই ঘটনার সঙ্গে অনেকেই জড়িত। প্রত্যেককে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। যোগসাজশ ছাড়া এ ধরনের অপরাধ করা সম্ভব নয়। এখন টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। তবে টাকা উদ্ধার হলেও শাস্তি থেকে রেহাই পাবে না কেউ। নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে ঘটনার সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগ উঠেছে সেগুনবাগিচায় হিসাব মহানিয়ন্ত্রক অফিসের সংসদ সচিবালয়ের প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা শামীম আরা স্মৃতির বিরুদ্ধে। যাচাই-বাছাই না করেই সংসদ সচিবালয় কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতনের শিটে চূড়ান্ত স্বাক্ষর করেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তিনি মানবজমিনকে বলেন, বিষয়টি হয়তো না জেনে বা ভুল করে হয়েছে। বাড়তি যে টাকা নিয়েছে তা তো তিনি ফেরত দিচ্ছেন। এ নিয়ে তার কোনো দায়-দায়িত্ব নেই বলে জানান। শামীম আরা স্মৃতি বলেন, সংসদ সচিবালয়ের ১২শ’ কর্মচারী রয়েছে। আর তাদের বেতন-ভাতা দেখার জন্য আমার ১২ জন স্টাফও নেই।

সংসদ সচিবালয়ের হিসাব শাখা থেকে যে শিট পাঠানো হয় তা যাচাই-বাছাই করা আমাদের জন্য দুরূহ। তাই এ নিয়ে কোনো অনিয়ম হয়ে থাকলে তার দায়-দায়িত্ব সংসদ সচিবালয়ের। হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সালাউদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এটা একটি স্পর্শকাতর বিষয়। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ব্যাপক তোলপাড় চলছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, রেজুয়ানুল হক সাদাত (সোহেল)-এর বিরুদ্ধে রয়েছে নিয়মমাফিক অফিস না করার এন্তার অভিযোগ। ২০১৬ সালে তাকে শাস্তি হিসেবে সংসদ সচিবালয়ের হিসাব শাখা থেকে অন্য সেকশনে বদলি করা হয়। মাত্র তিন মাসের মধ্যে তদবির করে আবারো হিসাব শাখায় ফিরে আসে। এরপর অফিস ঠিকমতো না করার অপরাধে তাকে একাধিকবার নোটিশ দেয়া হয়। তারপরও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়নি বলে জানান হিসাব শাখার ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ইনু-মেনন বাকস্বাধীনতা চান
ভোট শেষে ফেরার পথে ব্রাশফায়ারে নিহত ৭
মিরপুরে নৌকা প্রতিকের নির্বাচনী অফিসে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিকের সমর্থকদের হামলা, ব্যাপক ভাংচুর
ক্রাইচচার্চের মসজিদে জড়ো হয়ে ৩৫০ জনের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ
রাঙামাটিতে দুর্বৃত্তের ব্রাশফায়ারে প্রিজাইডিং অফিসারসহ নিহত ৭
কুষ্টিয়ায় শুরু হচ্ছে ৩ দিন ব্যাপী লালন স্মরণোৎসব”
ভোটার ৫৩৬০ জন, ৫ ঘন্টায় আসেননি একজনও
যুদ্ধাপরাধীদের পর হবে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার : তুরিন আফরোজ
মৌলভীবাজারে দুই কক্ষে ৪ ঘণ্টায় ভোট পড়েনি ১টিও!
দেড় ঘণ্টায় মাত্র ৬ ভোট!
ডিম কেনার তহবিলে জমা ২০ লাখ টাকা, ডিম বালক এখন বিশ্বনায়ক
মসজিদে হামলা: ৭টি গুলির পরও অলৌকিকভাবে বেঁচে যান বাবা-মেয়ে
একটি কারণেই মৃত্যুদন্ড হচ্ছে না ট্যারেন্টের
মসজিদে হামলা নিয়ে এরদোগানের ডাকে বৈঠকে বসছে ওআইসি
মৌলভীবাজারে ভোটার শূন্য ৭ উপজেলার ভোটকেন্দ্রে
মেহেরপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত
ধরে আনছে ভোটার, এজেন্টদের প্রবেশে বাধা
যৌনপল্লীতে মেয়েকে বিক্রির সময় বাবা আটক
খাদ্যমন্ত্রীর বাসায় মেয়ের স্বামীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য
ছাত্রী হলে জন্ম নেয়া সন্তানের বাবা জাবি ছাত্র!