শিরোনাম:
●   ফেসবুকে উস্কানি চট্টগ্রাম মহানগর মহিলাদল নেত্রী লিটা গ্রেপ্তার ●   ‘আমাদের বিয়ে নিয়ে আমি নিশ্চিত ছিলাম না’ ●   সিলেট সীমান্তে বিজিবি-চোরাচালানি গোলাগুলিতে কিশোর নিহত ●   মীরসরাইয়ে স্বামীকে গলাকেটে হত্যা, প্রথম স্ত্রী আটক ●   প্রকল্প বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ●   সাবেক প্রধান বন সংরক্ষকের সাজা আপিলেও বহাল ●   পল্লী বিদ্যুতের দুই প্রকৌশলী ঘুষের টাকাসহ গ্রেফতার ●   চাঁপাইনবাবগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে র‌্যাবের অভিযান সমাপ্ত, আটক ১ ●   কুমিল্লায় একই পরিবারের পাঁচ জনের হিন্দু থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ ●   সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯, ৯ মাঘ ১৪২৫

Bijoynews24.com
বুধবার, ২ জানুয়ারী ২০১৯
প্রথম পাতা » অপরাধ জগত | খুলনা | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | শিরোনাম » ঝিনাইদহ পিটিআই’র সুপারের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত শুরু, ফেঁসে যাচ্ছেন পিটিআই সুপার
প্রথম পাতা » অপরাধ জগত | খুলনা | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | শিরোনাম » ঝিনাইদহ পিটিআই’র সুপারের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত শুরু, ফেঁসে যাচ্ছেন পিটিআই সুপার
বুধবার, ২ জানুয়ারী ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ঝিনাইদহ পিটিআই’র সুপারের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত শুরু, ফেঁসে যাচ্ছেন পিটিআই সুপার

---স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহ সরকারী পরীক্ষন বিদ্যালয়ে টাকার বিনিময়ে শিশু থেকে পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত ছাত্র ভর্তি করে যাচ্ছেন শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সুপার আতিয়ার রহমান। সরকারী প্রাইমারি স্কুলে যেখানে বিনা টাকায় ভর্তির সুযোগ রয়েছে সেখানে বছরে পর বছর তিনি ৭’শ টাকা থেকে ১১’শ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছেন ভর্তি বাবদ। এছাড়া সংস্থাপন ফির নামে প্রশিক্ষনে আসা স্কুল শিক্ষকদের কাছ থেকে ৩’শ টাকা ও আইসিটি প্রশিক্ষনের জন্য আসা শিক্ষকদের কাছ থেকেও জোর পুর্বক টাকা আদায় করা হচ্ছে। এ সব বিষয়ে প্রতিবাদ করলে শিক্ষকদের নাকে খত কিংবা সুপারের পা ধরে মাফ চাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। দেশের দুইটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলে এ নিয়ে সংবাদ প্রচার হলে ঝিনাইদহ পিটিআই’র সুপারের বিরুদ্ধে তদন্তের উদ্যোগ নিয়েছেন খুলনা বিভাগীয় উপপরিচালক মেহেরুন্নেছা। বিষয়টি তদন্ত করে ঝিনাইদহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন উপপরিচালক অফিস। খবরের সত্যতা স্বীকার করেছেন ঝিনাইদহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ মোঃ আক্তারুজ্জামান।

জানা গেছে, প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে প্রায় ৪৪ ধরনের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এর মধ্যে ডিপিএড, আইসিটি সহ মৌলিক প্রায় ২৫ ভাগ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় পিটিআইতে। অভিযোগ রয়েছে, শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরীক্ষণ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি কিংবা অন্য কোন খাতে টাকা নেওয়া সম্পুর্ন অবৈধ। কিন্তু ঝিনাইদহে রশিদের মাধ্যমে শিশু শ্রেণী থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত ৭২০ টাকা থেকে শুরু করে ১১’শ টাকা নেওয়া হচ্ছে। ২০১৭ সালে ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলাপাড়ার আবু রায়হান শিশু শ্রেনীতে ভর্তি হয়েছিল। তার পিতার নাম রাজা বিশ্বাস। আবু রায়হানের দাদা আকবর আলী বিশ্বাস অভিযোগ করেন শিশু শ্রেনীতে ভর্তি হতে সুপার আতিয়ার রহমান রশিদের মাধ্যমে তার কাছ থেকে ৭২০ টাকা নেন। শহরের ইসলাম পাড়ার আলম অভিযোগ করেন তার ছেলে চতুর্থ শ্রেনীতে ভর্তি করতে ৯০০ টাকা নেন সুপার। এ ভাবে সাবিহা সুলতানা নামে এক শিশুকে ভর্তি করতে ২০১৮ সালে নেওয়া হয়েছে ৭২০ টাকা। তৃর্তীয় শ্রেনীতে ভর্তি হতে তামিম আহম্মেদ নামে আরেক শিশুর অভিভাবকের কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে ৯০০ টাকা। কর্মতৎপরতা, বার্ষিক ক্রীড়া, শিক্ষা সফর, সাংস্কৃকিত ফিস, উন্নয়ন, মসজিদ, সিলেবাস, টিসি, বিবিধ, বিভিন্ন জাতীয় দিবস পালন, আইডি কার্ড তৈরী, রেজাল্ট, বার্ষিক ম্যাগাজিন ও কাব খাতে এ সব টাকা খাতওয়ারি দেখানো হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে পিটিআইতে ১৮মাস ব্যাপী ডিপিএড প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময় পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করা ও ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে শিক্ষকদের কাছ থেকে দুই হাজার থেকে পাঁচ হাজার করে টাকা নেওয়া হচ্ছে। ২০১৫ সালের শেষের দিকে এমন অনিয়মের প্রতিবাদ করে অপমান অপদস্ত হয়ে বদলী হন প্রশিক্ষক অরুন কুমার খা। ওই বছরই পরীক্ষায় ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে সুপার আতিয়ার রহমান অধিকাংশ প্রশিক্ষনার্থীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। সে সময় প্রতিবাদ করলে শিক্ষক গৌরাঙ্গ বিশ্বাসকে সুপারের বাসায় ডেকে নিয়ে অপদস্ত করা হয়। শিক্ষক গৌরাঙ্গ বিশ্বাস জানান, আমি সুপারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছি এ জন্য আমাকে সকলের সামনে নাকে খত দিতে বাধ্য করিয়েছেন সুপার। জেলার শহীদ মোশাররফ হোসেন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মিজানুর রহমান ও জিকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শারমিন সুলতানা সোহানা বলেন, আমরা ২০১৭ সালে পিটিআই থেকে আইসিটি প্রশিক্ষণ নিয়েছি ১২ দিনের। এসময় আমাদের সকলের কাছ থেকে জনপ্রতি প্রতিদিনের সিট ভাড়া বাবদ ৫০ টাকা করে কেটে নেওয়া হয়। কিন্তু প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সিট ভাড়া বা আবাসিক চার্জ বাবদ টাকা নেওয়ার কোন নিয়ম নেই।

ঝিনাইদহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ মো: আকতারুজ্জামান জানান, আমি যোগদানের পর থেকেই আজ অবধি সুপার আতিয়ার রহমান আইসিটি প্রশিক্ষন নেওয়া শিক্ষকদের তালিকা দেয়নি। লিখিত ভাবে জানানোর পরও সে দেয় না। এর ফলে জানতে পারছি না কারা আইসিটি প্রশিক্ষণ নিয়েছে আর তারা ঠিকভাবে ক্লাস নিচ্ছে কি না। আমাদের খুব সমস্যা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, শিক্ষা নীতিমালায় আছে আইসিটি প্রশিক্ষণের জন্য পিটিআই সুপার ডিপিইও এর মাধ্যমে শিক্ষক ডেপুটেশন চাইবেন। কিন্তু তিনি আদৌ তা করেন না। অবশ্যই তিনি শিক্ষা নীতিমালা লঙ্ঘন করে এটি করছেন। বিষয়টি লিখিত ভাবে অধিদপ্তরকেও জানানো হয়েছে। তিনি বলেন সুপার আতিয়ারের বিরুদ্ধে খুলনা বিভাগীয় অফিস তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। তদন্তে কেঁচো খুড়তে সাপ বেরিয়ে আসছে বলে মন্তব্য করেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ মো: আকতারুজ্জামান। অভিযোগের বিষয়ে পিটিআই সুপার আতিয়ার রহমান বলেন, আমি ভর্তির জন্য কোন টাকা নিই না। শুধু সহ-শিক্ষা কার্যক্রমের জন্য ভর্তির সময় একবারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে রশিদের মাধ্যমে টাকা নেওয়া হয়। আর প্রশিক্ষণ কিংবা অন্য কোন বিষয়ে আমি জড়িত না, এসব অভিযোগ সম্পূর্ণ বানোয়াট। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ জানান, পিটিআই সুপার আতিয়ার রহমানের বিরুদ্ধে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া, প্রশিক্ষনার্থীদের লাঞ্ছিত করা সহ নানা অনিয়মের বিষয়ে অনেকেই মৌখিক ও লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অনেকেই প্রমাণপত্র দেখিয়েছেন। বিষয়টি অবশ্যই তদন্ত করবো এবং সত্যতা পেলে বিভাগীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য মন্ত্রনালয় ও অধিদপ্তরকে জানাবো।

ঝিনাইদহে নিরাপদ উদ্যানতাত্ত্বিক ফসল উৎপাদন ও সংগ্রহ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত, ৫০ জন কৃষাণ-কৃষাণীকে দেয়া হয় প্রশিক্ষণ

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহে নিরাপদ উদ্যানতাত্ত্বিক ফসল উৎপাদন ও সংগ্রহোত্তর প্রযুক্তি ব্যবহারের উপর কৃষক-কৃষাণীদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় সদর উপজেলা কৃষি অফিসের আয়োজনে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে এ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণে বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামার বাড়ি ঢাকার পরিকল্পনা, প্রকল্প বাস্তবায়ন ও আইসিটি উইং এর পরিচালক অশোক কুমার হালদার, যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক চন্ডিদাস কুন্ডু, ঝিনাইদহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জি এম আব্দুল রউফ, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মোফাকখারুল ইসলাম, সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষকবৃন্দ রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের ব্যবহার কমিয়ে ভার্মি কম্পোস্ট সহ অন্যান্য প্রাকৃতিক উপায়ে পেপে, শিম, বেগুন, আম সহ উদ্যানতাত্ত্বিক উচ্চফলনশীল জাতের ফসল অধিক পরিমানে উৎপানের উপর দিক-নির্দেশনা প্রদান করেন। সদর উপজেলার ৫০ জন কৃষাণ-কৃষাণীকে এ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

ঝিনাইদহে ফেসবুকভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “গান্না ইউনিয়ন বিচিত্রা” শুরু করেছে অসহায়, দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ কার্যক্রম

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের একমাত্র ফেসবুকভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গান্না ইউনিয়ন বিচিত্রা নতুন বছরের শুরুতেই গ্রুপের সদস্যদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ইউনিয়নে কম্বল বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রম আগামী দুইদিন ব্যাপি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি গ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় উপস্থিত এডমিন প্যানেল বলেন, আমরা নিজ উদ্দ্যোগে এলাকার বয়স্ক, প্রতিবন্ধীদের জন্য কম্বলসহ শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছি। ইউনিয়নের ২৬ টি গ্রামে গ্রামে আমরা স্ব-শরীরে গিয়ে শীতবস্ত্র পৌছে দিবো যাতে করে আমরা মানুষের দূঃখ দূর্দশাগুলো খুব কাছে থেকে অনুধাবন করতে পারি। কার্যক্রমের প্রথম দিনেই পশ্চিম বিষয়খালী, কৃষ্ণপুর, ছোট ঝিনাইদহ, মাধবপুর, লক্ষিপুর, চান্দেরপোল, দহিজুড়িসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে হতদরিদ্রদের খুঁজে কম্বল পৌছে দেন গ্রুপের সদস্যবৃন্দ। শুধু অসহায় দুস্থ ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণই নয়, ইতিপূর্বে গরীব মানুষের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্কুলে স্কুলে কুইজ প্রতিযোগিতা, বৈচিত্র্যময় সংবাদ সংগ্রহ, এতিম খানার শিশুদের সহায়তা ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক ও মানবিক কাজে সদস্যবৃন্দ তাদের সাধ্যমত সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। শুধুমাত্র মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকেই গ্রুপটি প্রতিষ্ঠা করেছেন ইউনিয়নের স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রছাত্রী। কারণ সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য কিছু দায়বদ্ধতা থাকা উচিত বলে মনে করেন গ্রুপ সংশ্লিষ্ট সদস্যবৃন্দ।

হরিণাকুন্ডুর মকিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাফল্য

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার মকিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিইসি পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করেছে। এবছর ওই বিদ্যালয় থেকে ২৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে ১৬ জন জিপিএ-৫ ও ১৩ জন এ গ্রেড পেয়ে শতভাগ সাফল্য অর্জন করেছে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রোকনুজ্জামান রিপন জানান, ১৯৬৯ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে বর্তমানে ২০৮ জন শিক্ষার্থী ও ৯ জন শিক্ষক-কর্মচারী পাঠদান করিয়ে আসছেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আখতার-উল হকসহ অন্যান্য শিক্ষকদের প্রচেষ্টার কারণে এ সফলতার সাধুবাদ জানিয়েছেন তিনি।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ফেসবুকে উস্কানি চট্টগ্রাম মহানগর মহিলাদল নেত্রী লিটা গ্রেপ্তার
‘আমাদের বিয়ে নিয়ে আমি নিশ্চিত ছিলাম না’
সিলেট সীমান্তে বিজিবি-চোরাচালানি গোলাগুলিতে কিশোর নিহত
মীরসরাইয়ে স্বামীকে গলাকেটে হত্যা, প্রথম স্ত্রী আটক
প্রকল্প বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
সাবেক প্রধান বন সংরক্ষকের সাজা আপিলেও বহাল
চাঁপাইনবাবগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে র‌্যাবের অভিযান সমাপ্ত, আটক ১
কুমিল্লায় একই পরিবারের পাঁচ জনের হিন্দু থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬
কুষ্টিয়ায় জামায়াত কর্মীদের জাসদে যোগদানের খবরে তোলপাড়
ক্রিকেট জুয়ায় কাঁপছে দেশ
আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল আর নেই
এখন থেকে কেউ মিথ্যা মামলা করলে জেলে যেতে হবে
গাইবান্ধায় মানুষদের চরম বিপাকে ফেলেছে ট্রাক্টর নামক মালামাল পরিবহনের যানটি
সুন্দরগঞ্জে পাকা সড়ক বিনষ্ট করছে একশ্রেণীর বাহন
লালপুরে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত জামিরুলের দাফন সম্পন্ন
মৌলভীবাজারে ইয়াবাসহ আটক-১
ইবি কর্মকর্তার পিতার মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক
প্রাথমিক জেলা মনিটরিং অফিসার হঠাৎ ক্লাসে : নীলফামারীতে ৪র্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা বাংলা রিডিং পড়তে পারে না
নিজ গ্রামের বাড়ি আসছেন রেলপথ মন্ত্রী