শিরোনাম:
●   কাফন মিছিলের পর শাবিতে এবার গণঅনশনের ডাক ●   ●   কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? ●   কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে ●   ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ●   অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক ●   কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি ●   দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড ●   ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ●   আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
ঢাকা, সোমবার, ৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯

Bijoynews24.com
শনিবার, ১৯ মার্চ ২০১৬
প্রথম পাতা » ধর্ম | বক্স্ নিউজ | শিরোনাম » কিয়ামতের আলামত
শনিবার, ১৯ মার্চ ২০১৬
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কিয়ামতের আলামত

 

---॥ শামসুল আলম স্বপন ॥

‘ষড়যন্ত্র তত্ত্বে’র বরাত দিয়ে যুক্তরাজ্যের ট্যাবলয়েড ‘ডেইলি স্টার’ ও ‘মিরর’ জানিয়েছে। পৃথিবীর আয়ু আছে আর চার সপ্তাহেরও কম! কারণ, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে দানবীয় এক গ্রহাণু। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোচিত হচ্ছে। তবে পৃথিবী ধংসের বিষয়টি ‘ভুয়া’ বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।
ষড়যন্ত্র তত্ত্বের বিশ্বাসীদের মতে, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা দানবীয় গ্রহাণুটি আগামী ২১ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বরে আঘাত হানবে। পুয়ের্তো রিকোর এফরেইন রডরিগেজ নামের এক স্বঘোষিত ‘সৃষ্টিকর্তার বার্তাবাহক’ এমন তত্ত্ব দিয়েছেন। তাঁর মতে, গ্রহাণুর আঘাতের ফলে পৃথিবীর মানবজাতি ধ্বংস হয়ে যাবে।

এফরেইন রডরিগেজের দাবি, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণুর বিষয়ে সৃষ্টিকর্তা তাঁকে জানিয়েছেন। শিগগিরই এটি নাসার কাছে ধরা পড়বে। তখন বিশ্বের গবেষকদের কাছে বিষয়টি দৃশ্যমান হবে। এরই মধ্যে রডরিগেজ নিজ উদ্যোগে নাসাকে বিষয়টি জানিয়েছে।

রডরিগেজের দাবিকে ভ্রান্ত বলে উড়িয়ে দিয়েছে নাসা। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই কোনো গ্রহাণু পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসার কোনো আশঙ্কা নেই বলেই দাবি করে প্রতিষ্ঠানটি।

নাসার পৃথিবীর নিকটবর্তী বস্তু নিয়ে গবেষণাবিষয়ক কর্মকর্তা পল চডাস বলেন, পৃথিবীর দিকে কোনো গ্রহাণু ধেসে আসছে এমন কোনো প্রমাণ তাঁরা পাননি।  এমন কোনো গ্রহাণু নেই যা আগামী ১০০ বছরের মধ্যে পৃথিবীতে আঘাত হানতে পারে।

পল চডাস ডেইলি স্টারকে বলেছেন, রডরিগাসের তত্ত্বের কোনো ভিত্তি নেই। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে পৃথিবীতে গ্রহাণুর আঘাতের কোনো আশঙ্কা নেই। আর আগামী কয়েকশ বছরের মধ্যে বড় কোনো গ্রহাণু পৃথিবীতে আঘাত হানছে না। তিনি আরো জানান, নাসার কর্মকান্ডের অন্যতম একটি হলো গ্রহাণু শনাক্ত করা এবং পৃথিবীতে আঘাত হানতে পারে এমন কোনো গ্রহাণুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া। সুত্র : ডেইলি স্টার’ ও ‘মিরর’।
…………………………………………………………………………………………….
কিয়ামত সম্পর্কে রাসুল (সা.)এর ভবিষ্যৎ বাণী

২০০১ সালের  ৫ মে ,   ২৯  মহররম ;  শুক্রবার। পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে এমন উদ্ভট সংবাদের পর পৃথিবী জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছিল । জ্যোতিষ   বিজ্ঞানীরা  বলেছিলেন
বাংলাদেশ সময়  দুপুর  ২.০৮  মিনিটে  পৃথিবী   চাঁদের  বিপরীতে  এবং  সুর্যের  এক পাশে  ৫ টি গ্রহ  একই  সরল  রেখায়  এসে  দাঁড়াবে । জ্যোতিষ   বিজ্ঞানীরা  এ ব্যাপারে  অনেকটা  নিশ্চিত ছিলেন।    ৫ গ্রহের একই সরল রেখায়   অবস্থান  খুব স্বল্প  সময়ের  জন্যেই  স্থায়ী  হবে বলে বিজ্ঞানীদের  ধারণা ছিল। বিশ্বের বেশ  কয়েকজন বিজ্ঞানী  এবং  এষ্ট্রোনমি  পত্রিকায় মে মাসের  সংখ্যায়  ৫ মে  বিশ্বে মহাপ্রলয়ের  আভাস দেয়া  হয়েছিল।  এরই  প্রেক্ষিতে  দুনিয়া জুঁড়ে  শুরু হয়েছিল  তোলপাড় । কিয়ামতের ভয়ে অনেকে াআত্মহত্যা করেছিলেন আবার অনেকেই সহায়-সম্বল বিক্রি করে দিয়েছিলেন। কেই তড়ি-ঘড়ি করে বিয়ে সেরে নিয়েছিলেন।

অজানা ভীতি ও  আশংকা  মানব মনে মহা  আতংকের সৃষ্টি করেছিল। যদিও  ৫ গ্রহের    একই  সরল  রেখায়  দাঁড়ানোর  বিষয়টি  নিয়ে  সকল  বিজ্ঞানীই একমত ছিলেননা । তবে অনেক  বিজ্ঞানীরই  ধারনা  ৫ টি   গ্রহের  একই  সরল  রেখায়  দাঁড়ানোর   প্রেক্ষিতে
পৃথিবীতে   ভয়াবহ ভুমিকম্প,  সাইক্লোন, জলচ্ছ্বাস  কিংবা ভিন্ন  গ্রহ থেকে  বিশাল  উল্কা  পিন্ড পৃথিবীর উপর আঘাত হানতে পারে।  এতে  ধ্বংস  হতে পারে মানুষসহ  প্রাণীকুল । এই  ধারনা বশতই কেউ কেউ মন্তব্য  করেছিলেন ৫   মে  শুক্রবার পৃথিবীতে  মহাপ্রলয়  অর্থাৎ  কিয়ামত নাজিল হতে পারে। সারা বিশ্বের মিডিয়ার সংবাদে ঈমানী দুর্বল অনেক মুসলিমও বিশ্বাস করেছিল যে,  ৫ মে ২৯ মহররম শুক্রবার সত্যিই কিয়ামত হচ্ছে। কারণ পবিত্র কোরআন মজিদে উল্লেখ আছে কিয়ামত নাজিল হবে মর্হরম মাসের কোন এক শুক্রবারে ।

পবিত্র কোরআনের আলোকে কিয়ামতের আলামত : 

পবিত্র কোরআনে  আল্লাহপাক  কিয়ামত সম্পর্কে   সুষ্পষ্ট  ঘোষণা  দিয়েছেন। পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক মহানবী হযরত মুহম্মদ (স:)ও  মহাপ্রলয় বা কিয়ামত  সম্পর্কে  ভবিষ্যৎ   বানী করেছেন । হুজুর পাক (সঃ)   কিয়ামতের   অসংখ্য   আলামত বা  নিদর্শন   বর্ণনা  করে গেছেন।
এগুলোকে দু’ ভাগে  বিভক্ত  করা  হয়েছে।   (১)  আলামতে  কুবরা  বা বড়  আলামত (২)   আলামতে ছুগরা  বা ছোট আলামত  । কিয়ামতের  ছোট আলামত  হলঃ-  মহানবী হযরত   মুহম্মদ  (সঃ)  এর তিরোধানের  পর থেকে হযরত ঈমাম  মাহদী (আঃ)  এর আর্বিভাবের পূর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত ।
আর  কিয়ামতের  বড়   আলামত  হলঃ-ঈমাম মাহদী (আঃ)  আগমনের  পর থেকে  শিঙ্গায়  ফুঁক দেয়ার পূর্ব  মুহুর্ত পর্যন্ত । শিঙ্গায়  ফুঁক  দেয়ার   মাধ্যমেই  শুরু হবে কিয়ামতের প্রারম্ভিক  কাজ।
ছোট  আলামত সম্পর্কে  হাদিসে  বর্ণিত আছে, ১. কেয়ামতের পূর্বে  দাস-দাসীর  অধিক সন্তান প্রসব  হওয়া ২. অজ্ঞ,   অসভ্য,    নব্য   সম্পদশালীদের  রাজত্ব ও আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত  হওয়া ৩.  মসজিদে এবাদতের পরিবর্তে খেলাধুলা  করা ৪. সাক্ষাতের  মুহুর্তে সালামের  পরিবর্তে অশ্লালীন ও  অমার্জিত   কথাবার্তা  বলা ৫.  মিথ্যাকে অলংকার  হিসেবে গ্রহন  করা ৬.    বিশ্বস্থতা  বিলুপ্ত হওয়া ৭. প্রকাশ্যে ব্যাভিচারে লিপ্ত হওয়া ৮. লজ্জা-শরম বিদায় নেওয়া ৯. লম্পট ও  ফাসেকদের  জ্ঞান -বিজ্ঞান  অর্জন করা ১০.  মুসলমানদের উপর কাফেরদের আক্রমণ,  অত্যাচার,   নির্যাতন,  জুলুম  বেদাত ও কুসংস্কার  বৃদ্ধি পাওয়া ১১. নিজ  স্ত্রীকে ছেড়ে পর  নারীর পিছনে  এবং   নিজ  স্বামী ছেড়ে  পর পুরুষের   পিছু  ছুটা ১২.  অসভ্য,  অসৎ,   দুশ্চরিত্রবান  মানুষের প্রাধান্য  পাওয়া ১৩.  ন্যায়  বিচারের  পরিবর্তে অন্যায় বিচার করা ১৪. প্রকাশ্যে মদ্যপান,  জুয়া,  জীনা ইত্যাদি কিয়ামতের  অন্যতম আলামত।

 ঈমাম মাহদীর আগমন

মহাপ্রলয় বা কিয়ামতের  পূর্বে ঈমাম  মাহদীর  আগমন সন্দেহাতীত ভাবে নিশ্চিৎ । তাঁর কপাল প্রশস্ত ও নাক হবে উঁচু । তিনি  পৃথিবীতে ন্যায় বিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করবেন।  তার রাজত্ব কাল হবে মাত্র ৭ বছর ।

আরবের শাসক :

আব্দুল্লাহ ইবনে  মাসুদ থেকে বর্ণিত রাসুল (সঃ) বলেছেন,  দুনিয়া ততোদিন পর্যন্ত ধ্বংস হবে না , যতদিন পর্যন্ত না আমার পরিবার ভুক্ত এক ব্যক্তি আরবের শাসক না হবে । তার নাম  হবে আমারই নামের অনুরুপ। -( তিরমিযী)
হযরত আবু হুরায়রা (রঃ) থেকে  বর্ণিত আছে রাসুল (সা,) বলেছেন যদি কিয়ামত হওয়ার একদিনও বাঁকি থাকে তবে  আল্লাহ’ত আলা  একদিনকে  আরো দীর্ঘ করে দেবেন যাতে দুনিয়া ধ্বংস হওয়ার পূর্বে আমার পরিবার ভুক্ত এক ব্যক্তি আরবের শাসক হয়ে যায়।

ঈমাম মাহদীর পিছনে ঈসা (আঃ) এর  নামাজ আদায়
আব্দুুল্লাহ ইবনে  অমর (রঃ) বলেন,  ঈসা  ইবনে মরিয়ম (আঃ)  ঈমাম মাহদীর পরে অবতরণ করবেন এবং ঈমাম মাহদীর পিছনে  নামাজ আদায় করবেন । এ কথা বলেছেন  মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)

দাজ্জালের আর্বিভাব :
কিয়ামতের পূর্বে  অবশ্যই দাজ্জালের  আর্বিভাব ঘটবে ।  দাজ্জালের জন্ম হবে এক ইহুদী  পরিবারে।  তার এক  চোখ  থাকবে  অন্ধ,  দ্বিতীয়  চোখটি  ভাল থাকলেও সেটা শুষ্ক কিচমিচ  দানা সদৃশ্য হবে।  শরীরের রং হবে লাল। গঠন হবে কদাকার। মাথায়  চুল হবে চরম  কোঁকড়ানো । তার দেহেও অজস্র  চুল থাকবে।  দাজ্জাল    বেটে হবে  । তার উভয় পা হবে বক্র । সে মুসলামানদের  হত্যা করবে।  তার মুল- ঘাটি  হবে ফিলিস্তিনিদের নিকটবর্তী।  তার  কপালে আরবীতে লেখা থাকবে কাফ, ফে,র।

হযরত আনাস  ইবনে  মালিক(রাঃ) থেকে  বর্ণিত রাসুল (সঃ) বলেছেন ,  দাজ্জাল এসে মদিনার এক  প্রান্তে  অবতরণ   করবে, তখন প্রথিবীতে তিনবার ভুমি কম্পন হবে ্এর পর সকল কাফের ও  মোনাফেক দাজ্জালের সহচর হয়ে যাবে। - বুখারী শরীফ।

হযরত ঈসা (আঃ) এর আগমন :

হযরত ঈসা (আঃ)কে আল্লাহ  পাক    পৃথিবীতে দ্বিতীয় বারের জন্য প্রেরণ  করবেন। হযরত ঈসা(আঃ) –এর  আগমনের  পর বিভিন্ন ঘটনা  পরিক্রমায় খ্রীষ্টান জাতি ইসলাম  ধর্ম গ্রহন করবে। হযরত ঈসা (আঃ) এর আর্বিভাবের পর  তিনি ৪০ বছর  দুনিয়াতে অবস্থান করবেন। এ সময় পৃথিবী সুখ ও শান্তিময় হবে।

রাসুল(সঃ) এর বর্ণিত কিয়ামতের  পূর্বে ১০ টি আলামত :

হযরত  হুযায়ফা ইবনে  উসাইদ আল গেফারী(রঃ) বর্ণনামতে নবী করিম (সঃ) বলেছেন,  কিয়ামত ততোক্ষণ পর্যন্ত কায়েম হবে না,  যতক্ষণ পর্যন্ত তোমরা এর  পূর্বে ১০টি আলামত  প্রত্যক্ষ না করবে।
(১)  মাটি থেকে অস্বাভাবিক ভাবে ধুয়া উৎগিরণ  (২) দাজ্জালের  আর্বিভাব  (৩)  দাব্বাতুল আরয,  অর্থ্যাৎ বিশেষ ধরনের  এক প্রকার  প্রাণীর  উর্দ্ভ্যুদয় ঘটবে। যারা  অত্যন্ত দ্রুতগতি  সম্পন্ন হবে ।  (৪) পশ্চিম দিক থেকে  সুর্যোদয়  হবে। (৫)  হযরত ঈসা ইবনে  মরিয়ম (আঃ) আকাশ থেকে  অবতরণ করবেন (৬) ইয়াযুয-মাযুজের  আর্বিভাব হবে।  (এরা  এমন একটি  জাতি  ছিল  যারা  পাশ্ববর্তী জনসধারনের  উপর  মাত্রাধিক  অত্যাচার করতো ,  ফসল ও ক্ষেত  ধ্বংস  করে দিত,  শিশু সন্তানদের  জীবিত  অবস্থায় খেয়ে  ফেলতো , এদের  অত্যাচার  থেকে  জনসাধারণকে  রক্ষার জন্য আল্লাহ  পাকের  পক্ষ থেকে  বিশেষ  ক্ষমতা   প্রাপ্ত  হযরত  যুলকারনাইন (আঃ) সীসা  ঢালা প্রাচীর  নির্মাণের  মাধ্যমে তাদেরকে  আটকিয়ে দেন।  এরপর  থেকে  প্রতিদিনই তারা  ঐ  প্রাচীর  ভাঙ্গার  প্রচেষ্টায় লিপ্ত কিন্তু প্রাচীর  ভাঙ্গতে  পারে না।  কেয়ামতের   পূর্বে  ইনশাল্লাহ বলে ঐ  প্রাচীর ভেঙ্গে তারা  লোকালয়ে  প্রবেশ করবে  এবং  তারা পৃথিবীতে তান্ডব )  (৭)  তিনটি  ভুমি ধ্বস হবে । (৮) ভুমিধ্বস  একটি  পুর্বদিক  থেকে  একটি  পশ্চিম দিক থেকে    অপরটি আরব  উপদ্বীপ  থেকে  (৯)   সর্বশেষ একটি  অগ্নি যা ইয়ামন থেকে  উত্থাপিত হবে এবং সবাইকে হাকিয়ে  অগ্নি তাদের  হাশর  পর্যন্ত নিয়ে যাবে।

কিয়ামতের  পূর্ব অদ্ভুদ জীবের  আর্বিভাব :

সুরা আন নামল- এ  বর্ণিত আছে “যখন  ওয়াদা  তাদের  কাছে  এসে  যাবে  আমি  তাদের  সামনে ভুগর্ভ থেকে  একটি  জীব নির্গত  করবো সে  মানুষের সাথে কথা  বলবে   ্এ কারণে  যে,  মানুষ  আমার  নিদর্শন সমুহে বিশ্বাস করতো না।

 কিয়ামতের পূর্বে কাবা গৃহ ধ্বংস হবে :

আবু হুরাইরা (রঃ)  রাসুল (স.) এর উক্তি বর্ণনা  করে বলেছেন  যে,  কিয়ামতের  পূর্বে জনৈক আবিসিনিয় ব্যক্তি কাবা গৃহকে  ধ্বংস করবে।  যার গোছা ছোট ছোট হবে।

কিয়ামতের পূর্বে শিঙ্গায় ফুঁ:

সুরা নাবাতে উল্লেখ রয়েছে, “নিশ্চয় বিচার দিবস নির্দ্ধারিত রয়েছে”।  যে দিন শিঙ্গায় ফুঁক  দেয়া হবে সেদিন  তোমরা দলে দলে  সমাবেত হবে। আকাশ বিদির্ণ হয়ে  তাতে  বহু দরজা  সৃষ্টি হবে এবং পর্বতমালা চালিত হয়ে মরিচিকা হয়ে যাবে। এই আওয়াজ  বিশ্বের সর্বস্থান  থেকে একই ধরনের শোনা যাবে ।  সকল মানুষ  কোন কিছু বুঝে  ওঠার আগেই শিঙ্গার  আওয়াজ  তীব্র  থেকে   তীব্রতর হয়ে বজ্রের ন্যায় বিকট  আকার ধারণ  করবে। ভীতসন্তস্ত্র মানব ও  পশুকুল একে একে  মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়বে।  ভূ-পৃষ্টের বিভিন্ন স্তর  ফেটে  চৌচির হয়ে যাবে ।  পৃথিবীর সকল  আগুন নিভে  যাবে ।   সাগরের পানি উৎলিয়ে উঠবে।  সকল পাহাড় চুর্ণ-বিচুর্ণ হয়ে ধুলিকনায় পরিণত হবে এবং তুলার  মত বাতাসে  উড়তে থাকবে । শিঙ্গার  আওয়াজের  তীব্রতায় আকাশ ভেঙ্গে খান খান  হয়ে যাবে। তারোকারাজি টুকরো টুকরো হয়ে পড়বে।

এক হাদিসে  বর্ণিত আছে  রাসুল (সঃ)  বলেছেন,  কিয়ামতের দিন মানুষ তিন দলে  বিভক্ত হবে । একদল উদর পুর্তি ও পোষাক পরিহিত অবস্থায় সওয়ারীতে সওয়ার  হয়ে  হাশরের ময়দানে আসবে।  দ্বিতীয়  দল পায়ে  হেটে আগমন        করবে এবং  তৃতীয় দলকে  উপড়  অবস্থায়  পায়ে  ধরে  টেনে  হেঁচড়ে  হাশরের ময়দানে  আনা  হবে।

শয়তানের করুন মৃত্যু:

শিঙ্গার  আওয়াজে  মানব  জাতি  যখন  ধ্বংস  হয়ে  যাবে  মালাকুল  মউত হযরত  আযরাইল (আঃ)  তখন  শয়তানের  রুহ্  কবয করার  জন্য  অগ্রসর   হবেন । অবস্থা বেগতিক বুঝে  অভিশপ্ত শয়তান চারদিকে  দৌড়াদৌড়ি  শুর করে  দেবে ।  ফেরেশতার  দল  আগুনের মুগুর  দিয়ে পিটিয়ে শয়তানকে  ধরাশায়ী করে ফেলবে । তখন  মালাকুল মউত  তার রুহ্  কবয  করে নেবেন।  মৃত্যু যন্ত্রণা সমগ্র  আদম সন্তানের উপর  দিয়ে যতটুকু অতিবাহিত  হয়েছে, ততটুকু     মৃত্যু  যন্ত্রনা সহ্য  করতে হবে একাই ইবলিশের।

মালাকুল মউতের মৃত্য:

সকল জীবের ( মানুষ,জ্বিন,প্রাণী,ফেরেস্তা) মৃত্যুর পর আযরাইল (আ.)এর মৃত্যু হবে। তিনি নিজের জান নিজেই কবয করবেন।

 সব কিছ ধ্বংস হলেও ৮টি  বস্তু অক্ষত থাকবে:

একাধারে ছয়  মাস  পর্যন্ত শিঙ্গা  ফুকার  পর পৃথিবী বলে  কোন  বস্তুর অস্তিত্ব থাকবে না।  এক পর্যায়ে  ফেরেশতা কুলও  মৃত্যু  কোলে ঢলে  পড়বে।  সব কিছু  ধ্বংস  হয়ে  গেলেও  ৮টি  বস্তু ধ্বংস  হবে না ।
তা  হলোঃ- (১)  আরশ,(২) কুরছি(৩) লাওহ  (৪)  কলম  (৫)  বেহেশত (৬) দোযখ (৭)  শিঙ্গা (৮)  আত্মাসমুহ। তবে আত্মা সমুহ  কিছুক্ষণের জন্য  হলেও  জ্ঞান শুন্যতা  বা বেহুশী  গ্রাস করবে ।

পবিত্র  কোরআন ও হাদিসের  আলোকে  মহাপ্রলয়  বা কিয়ামত  সস্পর্কে  এই প্রতিবেদনে  পাঠাককুলকে কিঞ্চিৎ  ধারনা দেওয়ার প্রয়াস চালানো হয়েছে । পৃথীবি ধ্বংস  সম্পর্কে  জিজ্ঞানীদের অভিমত  কোরআন  ও হাদিসের   আলোকে  কতটুকু  গ্রহনযোগ্য তা বিচার্য্য  বিষয়।  যারা  ঈমানদার মুসলমান  তারা  অব্যশই কোরআন  ও হাদিসের  বাণী একিন দেলে বিশ্বাস করবেন।  যারা  কোরআন  হাদিস  ব্যাতি রেখে  অন্য কারো  কথা বিশ্বাস  করবে  তারা  অবশ্যই  নাস্তিক বনে যাবে ।  হাদিসের  আলোকে  বলা যায়, কোন  এক মহররম মাসের  ১০  তারিখ  শক্রবারে  আল্লাহরাব্বুল আলামীন  পৃথিবী সৃষ্টি করেছিলেন  । আবার  একই  দিনে  তিনি  পৃথিবী ধ্বংস  করবেন অর্থ্যাৎ কিয়ামত হবে। মহাবৈজ্ঞানিক মুহাম্মদ (সা.) এর কথা বিশ্বাস না করে যারা বৈজ্ঞনিকদের উদ্ভট কথায় কিয়ামত বা মহাপ্রলয় হচ্ছে বলে  বিশ্বাস করবে তারা  অবশ্যই ঈমান  হারাবে।  ( প্রতিবেদনটি পবিত্র কোরআন ও হাদিস থেকে সংকলিত)

 

লেখক : 

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন (বনপা)’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি
আজ বিআরবি কেবল ইন্ড্রাষ্টিজ লিমিটেড এর ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী
কুষ্টিয়া জেলা প্রেসক্লাবের অভিনন্দন
মণ্ডপে হামলা : উস্কানিদাতা ইসলামিক বক্তা গ্রেপ্তার
প্রেমিককে স্বামী বানিয়ে প্রবাসীর সম্পদ লিখে নেন সাকুরা
আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম
তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে সাঈদ খোকনের চ্যালেঞ্জ ইসলাম ত্যাগ করেন, দুই দিনও মন্ত্রী থাকতে পারবেন না
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আপত্তিকর অবস্থা থেকে পালাতে গিয়ে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে যুবকের মৃত্যু
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির নবনির্বাচিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ ও শপথ অনুষ্ঠিত
চিলাহাটি গার্লস্ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের প্রদায়ন ও নবাগত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত
স্বামী বিদেশে নেওয়ার আগেই রাতের আধারে প্রেমিকের সঙ্গে পালালেন স্ত্রী