শিরোনাম:
●   কাফন মিছিলের পর শাবিতে এবার গণঅনশনের ডাক ●   ●   কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? ●   কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে ●   ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ●   অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক ●   কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি ●   দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড ●   ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ●   আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

Bijoynews24.com
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১
প্রথম পাতা » অপরাধ চিত্র | খুলনা | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » পুলিশ কর্মকর্তা বরখাস্ত : কুষ্টিয়ায় মা-ছেলে সহ ৩ জনকে হত্যার রহস্য উন্মোচন
প্রথম পাতা » অপরাধ চিত্র | খুলনা | জাতীয় সংবাদ | বক্স্ নিউজ | রাজনীতি | শিরোনাম » পুলিশ কর্মকর্তা বরখাস্ত : কুষ্টিয়ায় মা-ছেলে সহ ৩ জনকে হত্যার রহস্য উন্মোচন
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

পুলিশ কর্মকর্তা বরখাস্ত : কুষ্টিয়ায় মা-ছেলে সহ ৩ জনকে হত্যার রহস্য উন্মোচন

---

পরকীয়ার জেরে কুষ্টিয়া শহরে কাস্টম মোড়ে প্রকাশ্যে মা-ছেলেসহ ৩ জনকে গুলি করে হত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য উম্মোচন হয়েছে। এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক পুলিশের এএসআই সৌমেন রায়কে বরখাস্ত করে ৩ সদস্যের দুইটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।

রোববার (১৩ জুন) বিকালে তাকে বরখাস্ত করা হয়। তদন্ত কমিটির মধ্যে রয়েছে খুলনা রেঞ্জের দু’জন এবং কুষ্টিয়ার এক পুলিশ কর্মকর্তা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খায়রুল আলম। আজ গ্রেপ্তারত এএসআই সৌমেনকে আদালতে হাজির করা হতে পারে।

কুষ্টিয়া পুলিশ সূত্র জানায়, সৌমেন রায় ২০১৫ সালে কনস্টেবল থেকে এএসআই পদে উন্নীত হন। পরে ২০১৬ সালে কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানায় যোগ দেয়ার পর সেখান থেকে কুষ্টিয়ার মিরপুর থানার হালসা ক্যাম্পে ছিলেন। পরে বাগেরহাট হয়ে খুলনা ফুলতলা থানায় যোগদান করেন।

এদিকে এ হত্যাকাণ্ডে পর নিহত শাকিল খানের বাবা মেজবার রহমান বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় সৌমেন রায়কে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন

জানা গেছে, নিহত আসমা খাতুনের পূর্বে আরো ২টি স্বামী ছিল। তাদের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন হলে হিন্দু পরিবারের ছেলে সৌমেন রায় এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সৌমেনের স্ত্রী সন্তান থাকার পরেও বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আসমা খাতুনের সাথে স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক গড়ে তোলে।

সেই সাথে আসমার সংসার খরচসহ শিশু রবিনের খরচ পর্যন্ত সৌমেন বহন করতে থাকে।

এদিকে নিহত আসমার বাড়ীর লোকজন সৌমেনের সাথে আসমার বিয়ে হয়েছে ভেবে তারাও ঘর সংসার করায় বাধা না দিয়ে তাদের সম্পর্ক মেনে নেয়।  এএসআই সৌমেন এ সুবাধে আসমার বাড়ীতে অবাধে আসা যাওয়া করতে থাকে। গ্রামের মানুষও ভেবে নিয়েছে তাদের ২জনের মধ্যে বিয়ে হয়ে স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক হয়েছে। অথচ সবই ছিল অলিখিত স্বামী ও স্ত্রী।

এদিকে এএসআই সৌমেন খুলনা ফুলতলা থানায় যোগদান করার পর থেকেই বিকাশকর্মী শাকিলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান আসমা। তবে এ সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি সৌমেন। আসমার প্রতি ক্ষোভ জমিয়ে রাখেন মনে। সেই ক্ষোভ থেকেই রোববার দিনদুপুরে প্রকাশ্যে তিনজনকে গুলি করে হত্যা করেন সৌমেন।

স্থানীয়রা জানায়, আসমার দ্বিতীয় স্বামীর সন্তান ছিল রবিন। স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর সৌমেনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান তিনি। এরপর তারা বিয়ে করেন। কিন্তু কর্মস্থল বদলি হওয়ার পর সৌমেনকে ছেড়ে বিকাশকর্মী শাকিলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান আসমা।

ঘটনা সৌমেন জানতে পারলে অলিখিত স্ত্রী আসমা খাতুনকে বহুবার নিষেধ করেন এবং শারিরিক নির্যাতন পর্যন্ত চালানো হয়। এতেও খ্যান্ত হয়নি আসমা। প্রেম ভালোবাসা বড়ই কঠিন, কোন বাধায় পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কের চির ধরাতে পারেনি। ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সৌমেন।

পরিকল্পনা করেন খুলনা ফুলতলা থেকে কর্মরত অবস্থায় কুষ্টিয়ায় এসে হত্যা করে পুনরায় কর্মস্থলে ফিরে যাবে। যাতে করে কেউ বুঝতে না পারে।  সেই পরিকল্পনা মোতাবেক ৩ জনকে গুলি করে হত্যাও করলেন কিন্তু কর্মস্থলে আর ফিরা হলো না অস্ত্রসহ কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশের হাতে আটক হলেন।

নিহত আসমার ভাই হাসান আলী বলেন, আপু আসমার আগে দুই বার বিয়ে হয়েছিল। নিহত শিশু রবিন তার দ্বিতীয় স্বামীর সন্তান। হত্যাকারী এএসআই সৌমেন রায় আপুর তৃতীয় স্বামী। সৌমেনেরও একটি সংসার রয়েছে। সেই স্ত্রীর ঘরে এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। সৌমেন স্ত্রী সন্তান নিয়ে  খুলনায় চাকরি করেন। আপু আমাদের সঙ্গে কুষ্টিয়ার বাবরআলী গেট এলাকায় ভাড়াবাসায় বসবাস করেন।

তিনি বলেন, মাঝে মধ্যেই সৌমেন আমাদের বাসায় এসে থাকতেন। প্রায়ই আপুর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার ও মারধর করতেন। কিছুদিন আগেও সৌমেন এসেছিলেন। সেদিনও মারধর করে চলে গেছেন খুলনায়।

নিহত আসমার মা হাসিনা খাতুন বলেন, পাঁচ বছর আগে সৌমেন কুমারখালী থানায় কমর্রত ছিল। সেই সময় আমরা একটি মামলায় জড়িয়ে পড়েছিলাম। সেই সূত্রে আমার মেয়ের সঙ্গে সৌমেনের প্রেমের সম্পর্ক হয়। পাঁচ বছর আগে আমার মেয়ের সঙ্গে সৌমেনের বিয়ে হয়। এরপর কর্মস্থল পরিবর্তন হলে সে  চলে যায়। প্রথম থেকেই আমার মেয়ের আমার সঙ্গে থাকত।

তিনি বলেন, হঠাৎ খুলনা থেকে সকালে সৌমেন আমাদের শহরের বাড়িতে আসে। তখন আসমা গ্রামের বাড়ীতে ছিল। সে ফোন দিয়ে আসমাকে শহরে নিয়ে আসে এবং তাকে মাগুরায় যেতে হবে বলে রেডি হতে বলে। সকাল ১০টার দিকে আমাদের বাড়ি থেকে বের হয়। পরে জানতে পারি আমার মেয়ে ও নাতিকে অস্ত্র দিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনা স্থলের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় , নিহত আসমা সকাল ১১টার দিকে শাকিলকে সাথে নিয়ে প্রথমে কাস্টম মোড়ের একটি হোটেলে বসে এবং গল্প করতে থাকে। হোটেল মালিক বিরক্ত হলে তাদেরকে হোটেল থেকে বের করে দেয়।

পরে তারা কাস্টমস মোড় এলাকার নাজ ম্যানশন মার্কেটের বিকাশের দোকানের সামনে যায় এবং সেখানে দাঁড়িয়ে কথাবার্তা বলতে থাকে। এরই মধ্যে সৌমেন এসে তার কাছে থাকা রিভলবার বের করে ৩জনকেই ২টি করে গুলি করে হত্যা করে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সৌমেন রায় বলেছেন, তাঁর স্ত্রী আসমার সঙ্গে শাকিলের সম্পর্ক ছিল। এ জন্য তিনি তাঁর স্ত্রীর ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। রোববার ভোরে তিনি খুলনা থেকে বাসযোগে কুষ্টিয়ায় আসেন। এসময় তিনি তাঁর পিস্তল ও দুটি ম্যাগাজিনে ১২টি গুলি সঙ্গে নিয়ে আসেন।

সৌমেন পুলিশকে আরো বলেছেন, রোববার সকালে তিনি কুষ্টিয়া শহরের বাবর আলী গেটে আসমার মায়ের বাসায় পৌঁছান।

এর আগে রাতেই আসমাকে তাঁর গ্রামের বাড়ি থেকে কুষ্টিয়া শহরে আসার কথা বলেছিলেন। সকালে আসমা ও তাঁর ছেলেকে নিয়ে খুলনায় যাওয়ার কথা বললে আসমা যেতে অস্বীকার করেন।

আসমা তাঁকে জানান, তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রাখবেন না, এমনকি শাকিলের সঙ্গেও না। এসময় তিনি শাকিলকে ফোনে শহরের কাস্টমস মোড়ে আসতে বলেন।

এদিকে আসমা ছেলেকে নিয়ে রিকশাযোগে কাস্টমস মোড়ে পৌঁছায়।

কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) খায়রুল আলম জানান, শাকিলের সঙ্গে আসমার পরকীয়া সম্পর্কের জেরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। হত্যায় ব্যবহৃত পিস্তলটি জব্দ করা হয়েছে। আইন সবার জন্য সমান। অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

খুলনার এসপি মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, আটক সৌমেন রায় ফুলতলা থানার এএসআই। রোববার সকাল থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। তিনি ছুটি না নিয়ে আনঅফিশিয়ালি কুষ্টিয়ায় চলে গেছেন। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, রোববার ১৩ জুন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের কাস্টমস মোড় এলাকার নাজ ম্যানশন মার্কেটের একটি বিকাশের দোকানের সামনে বিকাশের ডিস্ট্রিবিউশন সেলস অফিসার শাকিল (২৮) আসমা খাতুন (২৫) ও তার শিশু সন্তান রবিন (৫) কে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করেন এএসআই সৌমেন রায়। সৌমেনের বাড়ী  মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার কসবা গ্রামে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩টি গুলি ২টি ম্যাগজিন ও পিস্তলসহ সৌমেনকে গ্রেপ্তার করেন।



এ পাতার আরও খবর

কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি
আজ বিআরবি কেবল ইন্ড্রাষ্টিজ লিমিটেড এর ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী
কুষ্টিয়া জেলা প্রেসক্লাবের অভিনন্দন
মণ্ডপে হামলা : উস্কানিদাতা ইসলামিক বক্তা গ্রেপ্তার
প্রেমিককে স্বামী বানিয়ে প্রবাসীর সম্পদ লিখে নেন সাকুরা
আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম
তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে সাঈদ খোকনের চ্যালেঞ্জ ইসলাম ত্যাগ করেন, দুই দিনও মন্ত্রী থাকতে পারবেন না
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আপত্তিকর অবস্থা থেকে পালাতে গিয়ে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে যুবকের মৃত্যু
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির নবনির্বাচিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ ও শপথ অনুষ্ঠিত
চিলাহাটি গার্লস্ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের প্রদায়ন ও নবাগত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত
স্বামী বিদেশে নেওয়ার আগেই রাতের আধারে প্রেমিকের সঙ্গে পালালেন স্ত্রী