শিরোনাম:
●   কুষ্টিয়ায় নিখোঁজ সাংবাদিকের মরদেহ উদ্ধার ●   কাফন মিছিলের পর শাবিতে এবার গণঅনশনের ডাক ●   ●   কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? ●   কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে ●   ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ●   অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক ●   কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি ●   দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড ●   ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

Bijoynews24.com
বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৬
প্রথম পাতা » বক্স্ নিউজ | শিরোনাম | সিলেট » ভয়ে রাইতে ঘুম হয়না ! বাড়ি ছাড়ি যাইমু কই
প্রথম পাতা » বক্স্ নিউজ | শিরোনাম | সিলেট » ভয়ে রাইতে ঘুম হয়না ! বাড়ি ছাড়ি যাইমু কই
বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৬
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ভয়ে রাইতে ঘুম হয়না ! বাড়ি ছাড়ি যাইমু কই

---বিজয় নিউজ: মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার : রাইতে (রাতে) ঘুম অয় না। ভয়ে থাকি কোন সময় যে টিলাটা ধসি পড়ে। বাড়ি ছাড়ি যাইমু কই। গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার সদর জায়ফরনগর ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রাম এলাকায় ভজিটিলায় বড় ফাটলের সৃষ্টি হওয়ায় অনন্ত ২শ’ পরিবার বসবাস করছে। তাছাড়া মাটি কেটে বিক্রি করায় একই টিলার কালীনগর এলাকায় কয়েকটি বাড়ি ঝুঁকির মুখে পড়েছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ভজিটিলা ঘিরে গুচ্ছগ্রাম, মনতৈল ও কালীনগর গ্রামে সাত-আট দিন ধরে বৃষ্টি হওয়ায় টিলার মাঝামাঝি অংশে ফাটলের সৃষ্টি হয়। এলাকার মোবারক আলী বলেন- প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টিতে টিলাটি একটু একটু করে ধসে পড়ে। বড় ফাটল দেখা দেওয়ায় তাঁরা আতংকে রয়েছেন। টিলার নিচে টিন-বাঁশের তৈরি ঘরে বসবাসকারী দিনমজুর পারভিন বেগম বলেন, ‘রাইতে ঘুম অয় না। ভয়ে থাকি কোন সময় যে টিলাটা ধসি পড়ে। বাড়ি ছাড়ি যাইমু কই।’ নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, এলাকার কিছু দরিদ্র লোক প্রতিদিন টিলার বিভিন্ন স্থানে মাটি খুঁড়ে ছোট ছোট পাথর বের তা বিক্রি করেন। বৃষ্টিতে খোঁড়া অংশ দিয়ে মাটি ধসে পড়তে থাকে। কালীনগর গ্রামে টিলার উপর ও নিচে ২০-২৫টি বাড়িঘর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় দেখা যায়। ওই গ্রামের বাসিন্দা কাতারপ্রবাসী রফিক মিয়া অভিযোগ করেন, এলাকার কিছু লোক টিলা কেটে মাটি বিক্রি করছেন। প্রায়ই রাতে ট্রাকে করে মাটি বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়। মাটিবহনকারী ট্রাকের চাপে গ্রামের পাকা সড়ক ও কালভার্ট ভেঙে পড়েছে। জায়ফরনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মজহর আলী বলেন, ভজিটিলার গুচ্ছগ্রাম, মনতৈল ও কালীনগর এলাকায় অন্তত ২০০ পরিবার ঝুঁকি নিয়ে বাস করছে। সম্প্রতি বৃষ্টিতে মাটি ধসে গুচ্ছগ্রামের ১৫-২০টি বসতঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। জায়ফরনগর ইউনিয়নের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রকিব আহমদ বলেন, মাটি কেটে ও পাথর খুঁড়ে বিক্রি বের করায় ভজিটিলার এ অবস্থা হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে একাধিকবার প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাছির উল্যাহ খান মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ভজিটিলায় ফাটলের তথ্যটি তাঁরা জানা নেই। খোঁজ নিয়ে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুলাউড়ার ৭ ইউনিয়নে সংরক্ষিত আসনে জয়ী হলেন যারা

কুলাউড়া উপজেলার ৭ ইউনিয়নে সংরক্ষিত আসনে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেনন যারা তারা হলেন, বরমচাল ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১ নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে শেফালী বেগম (মাইক) ২,০৬৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি পারভীন বেগম (সূর্যমুখী ফুল) ৫০৮ ভোট পান। ২নং আসনে ৪ প্রার্থীর মধ্যে শিরিন আক্তার (বই) ১১৯৫ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি রানু বেগম (কলম) ৮৬৯ ভোট পান। ৩নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে শেলী আক্তার ১৬৭৮ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি বাসন্তী গোয়ালা (সূর্যমুখী ফুল) ৮৯৪ ভোট পান। ভূকশিমইল ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে পিয়ারা বেগম (মাইক) ২১২২ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি সামছুন নাহার (বই) ১০৪৮ ভোট পান। ২নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে রুসনা বেগম (বই) ২০২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি নেহারা বেগম (মাইক) ৮৬৩ ভোট পান। ৩নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে হালিমা আক্তার (বই) ১৬৩৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি লাকী বেগম (কলম) ১৪৯৭ ভোট পান। জয়চন্ডী ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে নাদেরা খানম (মাইক) ২৭১০ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি আলতি রানী বিশ্বাস (বই) ১৯৫৪ ভোট পান। ২নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে সেলিনা বেগম (বই) ১৫১৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি সাবিত্রী রানী রাজভর (সূর্যমুখী ফুল) ১৩৪২ ভোট পান। ৩ নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে আমিরুন নেছা (তালগাছ) ২১৭৮ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি কুলছুমা খানম কমলা (বই) ১৪৯৭ ভোট পান। ব্রাহ্মনবাজারে ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ৪ প্রার্থীর মধ্যে পারভীন বেগম (মাইক) ১৭৮৪ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আনোয়ারা বেগম (সুর্যমুখী ফুল) ১৪৫৪ ভোট পান। ২নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে সাবিত্রী কানু (বই) ২৭৬৮ ভোট পেয়ে জয়ী হন।  প্রতিদ্বন্দি রাধিকা কৈরী রিপা (তালগাছ) ১৫২৭ ভোট পান। ৩নং আসনে ৪ প্রার্থীর মধ্যে মনোয়ারা বেগম (হেলিকপ্টার) ১৪০১ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি শারমিন আক্তার (বই) ১২৩৫ ভোট পান। কাদিপুর ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে জেসমিন বেগম (তালগাছ) ১১৬৬ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি নাজমা আক্তার শিপা (সুর্যমুখী ফুল) ৯৫০ ভোট পান। ২নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে বেদানা বেগম (তালগাছ)  ২২২২ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আনোয়ারা বেগম ১১৯৭ ভোট পান। ৩নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে রেখা রানী দাস (বই) ১৩৮২ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি রায়না বেগম (তালগাছ) ১০৬৫ ভোট পান। কুলাউড়া সদর ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে মিনারা বেগম (বই) ১০৩৪ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি ফেরদৌসী আক্তার (বক পাখি) ১০০৭ ভোট পান। ২নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে বিন্দা রানী গোয়ালা (তালগাছ)  ১১৩৫ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি নাজমিনা আক্তার সেবী (সুর্যমুখী ফুল)৮৫৭ ভোট পান।  ৩নং আসনে ২ প্রার্থীর মধ্যে বিভা রানী দেবী (বই)  ১৭৩৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। প্রতিদ্বন্দি হাসনা বেগম (তালগাছ) ৮১৮ ভোট পান। র্উাৎগাঁও ইউনিয়নে সংরক্ষিত ১নং আসনে ৫ প্রার্থীর মধ্যে হেপী বেগম (তালগাছ)  ৯১৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি খতিবুন বেগম (বই) ৬২১ ভোট পান।  ২নং আসনে ৩ প্রার্থীর মধ্যে সমছুন বেগম (মাইক) ১৮৮৪ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি ফয়জুন নেছা (তালগাছ) ১৪২৭ ভোট পান। ৩ নং আসনে ৫ প্রার্থীর মধ্যে কলি রানী চৌধুরী (তালগাছ) ১০৩৪ ভোট পেয়ে জয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দি হালিমা বেগম (বই) ৯২১ ভোট পান।

বড়লেখায় ধামাই নদীতে বাঁশের বেড়া দিয়ে মাছ শিকার

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার ঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের ধামাই নদীতে অবৈধভাবে বাঁশের বেড়া (খাঁটি) দিয়ে মাছ শিকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর ফলে ইউনিয়নের পাটনা গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা, ব্রিজ ও নদীসংলগ্ন ফসলের জমি ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে। স্থানীয় সূত্র ও অভিযোগ থেকে জানা গেছে, উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের ধামাই নদীর পাটনা এলাকায় কতিপয় ব্যক্তি বাঁশের বেড়া দিয়ে মাছ শিকার করছেন। প্রায় প্রতিবছরই তারা এখানে বাঁশের বেড়া দিয়ে থাকেন। এতে বেড়ায় পানি আটকে ফুলেফেঁপে পাটনা গ্রামের সড়ক ভেঙে নদীতে পড়ছে। পাশের ফসলি জমি এবং বেড়া সংলগ্ন ব্রিজটির পাশের মাটি ভেঙে পড়ছে। অন্যদিকে মাছের অবাধ চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এ বিষয়ে ঝগড়ী গ্রামের বাসিন্দা ক্ষীপক রঞ্জন দাস বেনু জানিয়েছেন, নদীতে বাঁশের বেড়া দিয়ে মাছ ধরার বিষয়টি জানিয়ে তিনি গত বছর বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগটি তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মৎস্য কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেন নির্বাহী কর্মকর্তা। কিন্তু এ ব্যাপারে ব্যবস্থা না নেওয়ায় পুনরায় এবছরও নতুন করে বেড়া দিয়ে মাছ শিকার করা হচ্ছে। সম্প্রতি সরেজমিনে পাটনা গ্রামে গেলে বেড়া দিয়ে মাছ শিকার করতে দেখা গেছে। বেড়া থেকে প্রায় ১০ হাত দূরে একটি ব্রিজ রয়েছে। নদীতে বেড়া দেওয়ার কারণে ব্রিজের সামনে ভাঙন ধরেছে। এ বিষয়ে প্রধান অভিযুক্ত সইব আলী বেড়া (খাঁটি) দিয়ে মাছ শিকারের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘কেদই মিয়া ও সুজন বিশ্বাস খাঁটি দিয়ে মাছ শিকার করছেন। মাছ শিকারে তার কোন সম্পৃক্ততা নাই বলে দাবি। তবে অভিযুক্ত সুজন বিশ্বাস নদীতে বেড়া (খাঁটি) দিয়ে মাছ শিকারের কথাটি স্বীকার করে বলেন, ‘সব জায়গায় তো খাঁটি দিয়া মাছ মাররা। আমরা দিলে সমস্যা কই (কোথায়)।’ নদীতে বেড়া দিয়ে মাছ শিকার অবৈধ জেনে তিনি বলেন, ‘গরীব মানুষ আমরা। মাছ না মারলে খাইতাম কিলা। এ ব্যাপারে মৎস কর্মকর্তা আবু ইউসুফ অভিযোগ পওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘গত বছর অভিযোগ পাওয়ার পার খাঁটি (বেড়া) তুলে দেওয়া হয়েছিল। শুনেছি এবারও খাঁটি দিয়ে মাছ শিকার করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে পাওয়া গেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।

ছবি সংযুক্ত

রাজনগরে আ’লীগের দলীয় কোন্দলকে কাজে লাগাতে চায় বিএনপি

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার ঃ মৌলভীবাজারে রাজনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ৪র্থ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ৭ মে। প্রতিটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে। দলীয় এই কোন্দলকে কাজে লাগাতে চায় বিএনপি। কেননা বিএনপি এই উপজেলায় তাদের একক প্রার্থী নির্ধারণ করতে সক্ষম হয়েছে। মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও জেলা সাধারণ সম্পাদক বলয়ে বিএনপি দুই ভাগে বিভক্ত হলেও উভয়পক্ষ এক সঙ্গে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন বলে মনে করছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন আব্দুল আজিজ ছাবুল। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন নকুল চন্দ্র দাশ। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী ইউপি সদস্য আমীর আলী। আর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মতিউর রহমান লয়লুছ। এ ইউনিয়নে ধানের শীষ ও নৌকার প্রার্থীর মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলেও বিএনপির ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা ভোটের মাঠে দলীয় প্রার্থীদের বিপদে ফেলবেন। এদিকে উত্তরভাগ ইউনিয়নে উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান জিতু মিয়া দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন ভোটের মাঠে নতুন তরুণ নেতা আব্দুল আজিজ। যদিও দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন শাহ শহিদুজ্জামান ছালিক। কেন্দ্র থেকে তিনি মনোনয়ন না পাওয়ায় বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের ধারণা শাহ শহিদুজ্জামান ছালিক নৌকা পেলে এবার তার বিজয় নিশ্চিত ছিল। কিন্তু তিনি বিদ্রোহী হওয়ায় ত্রিমুখি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। মুন্সিবাজার ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী আশিক মিয়া। আওয়ামী লীগের বর্তমান চেয়ারম্যান ছাতির মিয়া মনোনয়ন না পাওয়ায় তিনি বিদ্রোহী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থীর চাচাতো ভাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা ছালেক মিয়া। বিগত নির্বাচনেও উভয়ে প্রার্থী ছিলেন। এ ইউনিয়নে একক বিএনপির প্রার্থী থাকায় ভোটের মাঠে ত্রিমুখি হবে বলে ভোটারদের ধারণা। পাঁচগাও ইউনিয়নে বিএনপির ট্রার্থী শাহিন আহমদ। এ ইউনিয়নে মোট প্রার্থী ৬ জন। বিএনপির প্রার্থী ছাড়াও আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মিহির কান্তি দাশকে নিজ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সঙ্গেও লড়তে হবে। রাজনগর সদর ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী জুবের আহমদ চৌধুরী। বিগত নির্বাচনে তিনি বর্তমান চেয়ারম্যান দেওয়ান খয়রুল মজিদ সালেকের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন। বর্তমান চেয়ারম্যান এবারও স্বতন্ত্র ট্রার্থী। আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফারুকুজ্জামান খান। ভোটারের কাছে বর্তমান চেয়ারম্যানের গ্রহণযোগ্যতা থাকায় এ ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থীকে বেশ লড়াই করতে হবে। এদিকে টেংরা ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী আব্দুস সালাম তরফদার বাবলু। এ ইউনিয়নে বর্তমান উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক বতর্মান চেয়ারম্যান মোঃ টিপু খান মনোনয়ন না পাওয়ায় তিনি বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির মোত্তালিব। বর্তমান চেয়ারম্যানের অবস্থার ভালো হলেও ওই ইউনিয়নে ভোটারের মনকে জয় করেন এনিয়ে রয়েছে বেশ জল্পনা। কামারচাক ইউনিয়নে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন আতাউর রহমান। আর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বর্তমান চেয়ারম্যান নজমুল হক সেলিম আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। বর্তমান চেয়ারম্যানের অবস্থান ভালো হলেও ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারাণ সম্পাদক মোঃ আতাউর রহমান সোহেল বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। মনসুরনগর ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী রুমেল আখন্দ। আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান মিলন বখত। কিন্তু তার বিদ্রোহী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান ছাদিকুর রহমান। ভোটারের কাছে বর্তমান চেয়ারম্যানের বেশ গ্রহণযোগ্যতা থাকলেও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সঙ্গে তাকে লড়াই করতে হবে। ত্রিমুখী নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ নিজেদের ঘরের প্রার্থীদের সামাল দিতেই হিমশিম খাবে। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে চায় বিএনপি। সে লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সর্বশক্তি নিয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি। আর আওয়ামী লীগ তাদের বিদ্রোহী প্রার্থীদের বহিস্কার করে সেই বিএনপির বিজয়ের পথকেই সুগম করেছে।



এ পাতার আরও খবর

কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি
আজ বিআরবি কেবল ইন্ড্রাষ্টিজ লিমিটেড এর ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী
কুষ্টিয়া জেলা প্রেসক্লাবের অভিনন্দন
মণ্ডপে হামলা : উস্কানিদাতা ইসলামিক বক্তা গ্রেপ্তার
প্রেমিককে স্বামী বানিয়ে প্রবাসীর সম্পদ লিখে নেন সাকুরা
আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম
তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে সাঈদ খোকনের চ্যালেঞ্জ ইসলাম ত্যাগ করেন, দুই দিনও মন্ত্রী থাকতে পারবেন না
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আপত্তিকর অবস্থা থেকে পালাতে গিয়ে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে যুবকের মৃত্যু
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির নবনির্বাচিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ ও শপথ অনুষ্ঠিত
চিলাহাটি গার্লস্ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের প্রদায়ন ও নবাগত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত
স্বামী বিদেশে নেওয়ার আগেই রাতের আধারে প্রেমিকের সঙ্গে পালালেন স্ত্রী