শিরোনাম:
●   মৌলভীবাজারে সড়কে দুর্ঘটনায় মোটরবাইক আরোহীর মৃত্যু ●   গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুরহাট ●   বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের মামলা, আটক হয়নি কেউ ●   গাইবান্ধায় ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থীকে বলাৎকার ॥ দোষী ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসির মানববন্ধন ●   কুষ্টিয়ায় গরু ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা ! ●   কুষ্টিয়ায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার ! ●   কেরালায় বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২৪ ●   ১২’শ কোটি টাকার অবৈধ সম্পত্তি রয়েছে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর : দুদক ●   যে কারণে বিয়ে করেননি অটল বিহারী বাজপেয়ী ●   শিমুল থেকে শিমুর ২০ বছর
ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮, ৩ ভাদ্র ১৪২৫
Bijoynews24.com
মঙ্গলবার ● ১৭ জুলাই ২০১৮
প্রথম পাতা » Slider » বছরে ৫০ কোটি মেট্রিকটন ক্ষতিকর পোকামাকড় খায় পাখি
প্রথম পাতা » Slider » বছরে ৫০ কোটি মেট্রিকটন ক্ষতিকর পোকামাকড় খায় পাখি
১২৬ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ১৭ জুলাই ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বছরে ৫০ কোটি মেট্রিকটন ক্ষতিকর পোকামাকড় খায় পাখি

---Bijoynews : পাখি ছাড়া সবুজ কোনো প্রান্তর কল্পনা যেন জুতসই হয় না। আবার পাখির কিচির-মিচির কোলাহল ছাড়া প্রকৃতির আমেজও যেন ঠিক উপভোগ করা যায় না। পাখি শুধু প্রকৃতিতে দৃশ্যমান থেকে প্রকৃতির সৌন্দর্যই বাড়ায় না, বাস্তুসংস্থান চক্রেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। ক্ষতিকর পোকামাকড় দমনে পাখির ভূমিকা উল্লেখযোগ্য।

 

প্রতিবছর সারাবিশ্বের পাখিরা ৪০ থেকে ৫০ কোটি মেট্রিকটন ক্ষতিকর পোকামাকড় খায়। বিভিন্ন গবেষণাপত্র পর্যালোচনা করে এ তথ্য দিয়েছেন সুইজারল্যান্ডের একদল গবেষক।

গুবরে পোকা, মাছি, পিঁপড়া, মথ, জাবপোকা, ঘাসফড়িং, ঝিঁঝিঁ পোকাসহ বিভিন্ন ধরনের আর্থোপোডা খায় পাখিরা। গবেষকরা বলছেন, উদ্ভিদখেকো পোকামাকড় নিয়ন্ত্রণে রাখতে পাখিরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

পাখিরা সাধারণত চাষাবাদের মৌসুমে পোকামাকড় শিকার করে। এসময় তাদের প্রচুর পরিমাণ প্রোটিনের প্রয়োজন হয়। এছাড়া ছানাদের খাবারের জন্যও তারা শিকার করে।
পোকা খাচ্ছে পাখি
গবেষণা দলের প্রধান ড. মার্টিন নিফেলার বলেন, পাখিরা প্রতিবছর পোকামাকড় খেয়ে যে পরিমাণ শক্তি সঞ্চয় করে তা নিউইয়র্ক শহরের আকারের সমান হবে।

বনে থাকা পাখিরা ৭০ শতাংশ পোকামাকড় খেয়ে ফেলে। যা মোট হিসাব করলে প্রতিবছর ৩০ কোটির মতো দাঁড়ায়। তৃণভূমি, ফসলি জমি, মরুভূমিতে থাকা পাখিরা বনে থাকা পাখির তুলনায় অনেক কম পরিমাণ পোকামাকড় খায়।

পাখি ছাড়া খুব অল্পসংখ্যক অন্য প্রাণী ক্ষতিকর পোকামাকড় খায়। এদের দলে আছে মাকড়সা ও অন্য পোকামাকড়খেকো প্রাণী।

তবে পাখিদের বিপন্ন হওয়ার কথাও বলেছেন গবেষকরা। ড. নিফেলার বলেছেন, পাখিরা বিপন্ন হুমকির মধ্যে রয়েছে। এর অন্যতম কারণ বনের সংখ্যা কমে যাওয়া, জলবায়ু পরিবর্তন, কৃষিতে রাসায়নিক তীব্রতা বৃদ্ধি, মানুষসৃষ্ট কিছু দুর্যোগ প্রভৃতি।
পোকা খাচ্ছে পাখি
তিনি আশঙ্কা করে বলেন, এসব বৈশ্বিক হুমকির সমাধান না করা গেলে বাস্তুসংস্থান প্রক্রিয়া হুমকির মুখে পড়বে। কেননা পাখিরা ক্ষতিকর পোকামাকড় খেয়ে যে উপকার করে সেটা কমে যাবে।

সুইজারল্যান্ডের বাসেল বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক একটি গবেষণায় এ তথ্য উপস্থাপন করেছেন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ১০৩টি গবেষণা পর্যালোচনা করে তারা এ সংখ্যা হিসাব করেছেন। গবেষণাটির প্রধান ছিলেন মার্টিন নিফেলার। গবেষণাটি ‘দ্য সায়েন্স অব ন্যাচার’ নামে একটি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
মৌলভীবাজারে সড়কে দুর্ঘটনায় মোটরবাইক আরোহীর মৃত্যু
গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুরহাট
বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের মামলা, আটক হয়নি কেউ
গাইবান্ধায় ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থীকে বলাৎকার ॥ দোষী ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসির মানববন্ধন
কুষ্টিয়ায় গরু ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা !
কুষ্টিয়ায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার !
কেরালায় বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২৪
১২’শ কোটি টাকার অবৈধ সম্পত্তি রয়েছে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর : দুদক
যে কারণে বিয়ে করেননি অটল বিহারী বাজপেয়ী
শিমুল থেকে শিমুর ২০ বছর
আড্ডায় মাতলেন জয়া-প্রিয়াঙ্কা
তিন দিনের রিমান্ডে ফারিয়া
ফ্যাশন শোতে হাঁটলেন সোনাগাছির বারবণিতারা
জিয়া পরিবারের দুষ্কর্মের মুখোশ উন্মোচন করা জরুরী: তথ্যমন্ত্রী
ডোমারে গ্রাম পুলিশের গোডাউন থেকে ভিজিএফ চাল আটক,গোডাউন সিলগালা
জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব মুন্সীগঞ্জ জেলা কমিটির চা চক্র অনুষ্ঠিত
আল্লারদর্গা বাজারে এক রাতে ৪ দোকানে সার্টার ভেঙ্গে চুরি : ১ ঘন্টা সড়ক অবরোধ !
আগামীকাল শপথ নিবেন ইমরান খান
মাদক কারবারিদের তালিকায় পুলিশ ও নেতাদের নাম
গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালসহ উপজেলার হাসপাতাল গুলিতে বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানি প্রতিনিধিদের দৌরাত্ব বৃদ্ধি : অসহায় রোগিরা