ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮, ৭ আষাঢ় ১৪২৫
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » কালীগঞ্জে কেঁচো সারের ব্যাপক উৎপাদন করে ক্ষেতে ব্যবহার ও বিক্রির করে সংসারে স্বচ্ছলতার মুখ দেখছেন মনি গোপাল
রবিবার ● ২৭ মে ২০১৮
Email this News Print Friendly Version

কালীগঞ্জে কেঁচো সারের ব্যাপক উৎপাদন করে ক্ষেতে ব্যবহার ও বিক্রির করে সংসারে স্বচ্ছলতার মুখ দেখছেন মনি গোপাল

---জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে কেঁচো সারের ব্যাপক উৎপাদন করে ক্ষেতে ব্যবহার ও বিক্রির করে সংসারে স্বচ্ছলতার মুখ দেখেছেন অনেকই। রাসায়নিক সার অত্যন্ত ব্যয়বহুল। দীর্ঘদিন ধরে জমিতে রাসায়নিক সার ব্যবহার করলে জমির উর্বরতা কমে যায়। এ সারে উৎপাদিত শাকসবজি, ফসল খেয়ে মানুষ খেলে নানা কঠিন ও জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। সে ক্ষেতে জৈব সার ব্যবহার করলে উৎপাদন ব্যয় কম হয়। সাথে সাথে মাটির স্বাস্থ্য ভালো থাকে তাছাড়াও অল্প খরচে বাড়িতে তৈরী করা যায়। যা জমিতে ব্যবহার করে ভালো ফসল পাওয়া যায়। সে কারনে জৈব সারের ওপর ঝুকে পড়েছেন। কথাগুলো বললেন ঝিনাইদহ কালীগঞ্জের কাদিডাঙ্গা গ্রামের কৃষক মনি গোপাল সরকার। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের এ কৃষক বাড়িতে কেঁচো সার উৎপাদন করে একদিকে ক্ষেতে ব্যবহার করছেন অন্যদিকে বিক্রির করে সংসারে স্বচ্ছলতার মুখ দেখেছেন। সরেজমিনে গেলে দেখা যায়,বাড়ির একপাশের একটি টিনের চালার ভিতরে প্রায় ২ শতাধিক মাটির চাড়ি সারি সারি বসানো রয়েছে। চাড়ির উপরে দেয়া বস্তা সরিয়ে দেখা যায় ভিতরে রয়েছে গোবর। এরমধে ছেড়ে দেয়া হয়েছে কেঁচো। কেঁচো গুলো গোবর খেয়ে পায়খানা করছে। এটাই অধিক উর্বরাক্ষম কেঁচো কম্পোস্ট সার। মনি গোপাল সরকার জানান, প্রায় থেকে ১০ বছর আগে জাপান ভিত্তিক একটি স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন হাঙ্গার ফ্রি ওয়াল্ড থেকে কেঁচো কম্পোস্ট সার তৈরীর প্রশিক্ষন নিয়ে বাড়িতে কোঁচো সার তৈরী শুরু করে নিজ জমিতে ব্যবহার করে ভালো ফলন পেতে থাকেন। প্রথম পর্যায়ে এসার তৈরীর উপকরণ গোবর বাড়িতে না থাকায় কিনতে শুরু করেন। এরপর নিজের পানের বরজ ও সবজি ক্ষেতে ব্যবহার করে ব্যাপক সাফল্য পান। আশপাশের সবজি ক্ষেত ও পান বরজের মালিকেরা প্রতি কেজি ১০ টাকা দরে বিক্রি শুরু করেন। ক্ষেত মালিকেরা ভালো ফলন পাওয়ায় বাড়তে থাকে তার সারের চাহিদা। প্রতি বছর কম্পোস্ট বিক্রি করে ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা লাভ হয় তার। মনি আরো জানান, মাঠে তার মাত্র ২ বিঘা মত চাষযোগ্য জমি আছে। জমিগুলো জৈব পদ্ধতিতে চাষ করে কিছু ফসল আসে। এছাড়াও কেঁচো সার তৈরীর পাশাপাশি বাজারে ডেকোরেটরের একটি ছোট ব্যবসাও রয়েছে তার। সেখানে বেশি সময় দেয়া লাগে না। তিনি জানান, এক সময়ে তার সংসারে ব্যাপক অভাব ছিল। বর্তমানে কেঁচো কম্পোস্ট সার বিক্রি ও ডেকোরেটরের দোকান মিলে এখন সংসারে বেশ স্বচ্ছলতা ফিরেছে। সাথে সাথে সন্তানদের লেখাপড়ার খরচ যোগাচ্ছেন। তিনি জানান,বড় ছেলে অনন্ত সরকার ঝিনাইদহ পলিটেকনিক কলেজ থেকে ডিপ্লোমা শেষ করেছে। ছোট ছেলে প্রশান্ত সরকার ঝিনাইদহ কেসি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স করছে। আর মেয়ে দীপিকা সরকার ফরিদপুরে সারদা সুন্দরী কলেজে দর্শনে অনার্স শেষ বষের ছাত্রি। মনি সরকার আরো জানান, কম্পোস্ট বিক্রির মাধ্যমে যে টাকা আসছে সেটা তার সন্তানদের লেখাপড়ার পাশাপাশি সংসার চালাতে সহায়ক হচ্ছে। কালীগঞ্জ উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নজরল ইসলাম জানান, মনি সরকারের কেঁচো কম্পোস্ট তৈরি করা কারখানায় তিনি নিজে গিয়েছেন। তার এলাকায় সাধ্যমত জৈব সার ক্ষেতে ব্যবহারের জন্য কৃষকদেরকে উৎসাহিত করে আসছেন।

ঝিনাইদহে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতি করে ইমো ও ফেসবুকের মাধ্যমে উত্তরপত্র সরবরাহে ৬ জন গ্রেফতার
জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ
প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইমোতে প্রশ্ন ও উত্তর আদাণ প্রদানসহ জালিয়াতির নানা অভিযোগে ২ পরীক্ষার্থী ও ১ শিক্ষকসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার সকালে পরীক্ষা চলাকালীন সময় শহরের পিটিআই ও দিশারী প্রি-ক্যাডেট স্কুল ও কলেজ কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। গ্রেফতারকৃতরা হলো-চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার জাফরপুর গ্রামের গোলাম রহমানের মেয়ে সুরাইয়া আক্তার, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বামনাইল গ্রামের প্রদীপ বিশ্বাসের ছেলে পিকুল বিশ্বাস, যশোরের চৌগাছা উপজেলার ভগবানপুর গ্রামের আবু বকর সিদ্দকীর ছেলে ফারুক হোসাইন, ঝিনাইদহ শহরের আদর্শপাড়ার বদর উদ্দীনের ছেলে রফিক আহমেদ জনি, হুদা সুরাট গ্রামের মহিউদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ শাহীন আলম, ও যশোরের জগহাটি গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে আলী রেজা। ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই আবুল কাসেম জানান, শনিবার প্রাইমারির শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় হামদহ পাওয়ার হাউস পাড়ার দিশারী ইসলামী ইন্সটিটিউটে কেন্দ্র ছিল। সেখানে রেজিষ্টার ফারুকের সহায়তায় পরীক্ষার্থী সুরাইয়াকে তিনজন ভুয়া পরিদর্শক রফিক আহম্মেদ, শাহিন আলম ও আলী রেজা তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে বাইরে থেকে উত্তর সরবরাহ করা হচ্ছিল। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসনের লোকজন তাদের গ্রেফতার করে। এছাড়া পিটিআই কেন্দ্র থেকে পিকুল নামে এক যুবককে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অসাদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে পাবলিক পরীক্ষা আইনের ৯ ধারায় মামলা হয়েছে। এ মামলায় ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতদের আসামী করা হয়েছে।

৯ বছর কর্মস্থলে অনুপস্থিত তারপরও চাকরী থাকে কিভাবে ?
ঝিনাইদহের ৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৯ বছর নিখোঁজ ৪ জন মহিলা চিকিৎসক!

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহ জেলার ৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের পর থেকে ছুটি নিয়ে নিখোঁজ রয়েছেন ৪ জন মহিলা চিকিৎসক। তারা কোথায় আছেন সে বিষয়ে ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিস এমনকি স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়ে কোন তথ্য নেই। এই সকল নারী চিকিৎসকগণ ছুট নিয়ে বিদেশে পাড়ি জমালেও এখনো তাদের চাকরী রয়েছে। কেও কেও চার থেকে নয় বছর কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলেও তারা কোন পদত্যাগপত্র পাঠাননি। ফলে কাগজ কলমে তাদের চাকরী থাকলেও বাস্তবে তারা বছরের পর বছর কর্মস্থলে অনুপস্থিত। এ সব চিকিৎসকরা হলেন, ডাক্তার শাহানারা সুলতানা, ডাক্তার মনিরা শারমিন, ডাক্তার সাদিয়া আফরিন ও ডাক্তার সানজিদা ইয়াসমিন শম্পা। ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন দপ্তর সুত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১৭ নভেম্বর তারিখে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার হিসাবে যোগদান করে ডাক্তার শাহানারা সুলতানা। এরপর ২০০৯ সালের ২ মে ছুটি নিয়ে আর কর্মস্থলে ফিরে আসেনি। তিনি কোথায় আছেন সে তথ্যও নেই ঝিনাইদহ স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে। একই ভাবে ২০১২ সালের ৩ জুন কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সহকারী সার্জন হিসাবে যোগদান করে ডাক্তার মনিরা শারমিন। এরপর একই বছরের ৩ সেপ্টেম্বর তিন দিনের ছুটি নিয়ে আর কর্মস্থলে ফিরে আসেনি। ২০১৪ সালের ১৬ জানুয়ারী হরিণাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার হিসাবে যোগদান করেন ডাক্তার সাদিয়া আফরিন। যোগদান করে এক মাসের ছুটি নিয়ে অদ্যবধি আর কর্মস্থলে ফিরে আসেননি সাদিয়া। ২০১৪ সালের ২৬ আগষ্ট কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আওতায় বলরামপুর সাব সেন্টারে মেডিকলে অফিসার হিসাবে যোগদান করেন ডাক্তার সানজিদা ইয়াসমিন শম্পা। একদিন কর্মস্থলে থেকে ছুটি নিয়ে চলে যান তিনি। তারপর থেকে কোন কারন ছাড়ায় কর্মস্থলে অনুপস্থিত তিনি। বছরের পর বছর কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলেও তাদের চাকরী বহাল রেখেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়। তথ্য নিয়ে জানা গেছে, এ সব নারী চিকিৎসকদের কেও অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, লন্ডন ও আমেরিকাতে স্বামীর সাথে বসবাস করছেন। এ বিষয়ে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডাক্তার রাশেদা সুলতানা জানান, নিদ্দিষ্ট ছুটির মেয়াদ পার হওয়ার পর থেকে ওই সকল ডাক্তারদের স্থায়ি ঠিকানায় বার বার চিঠি দেওয়ার পরও ওই ৪ জন চিকিৎসক তাদের কর্মস্থলে ফিরে আসেনি। এমনকি তারা চিঠির কোন জবাবও দেন নি। বিষয়টি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে অবহিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, ধারনা করা হচ্ছে ওই চার ডাক্তার বিদেশে গিয়ে আর ফিরে আসেননি। যেটি বিধি সম্মত নয়। তিনি আরো জানান তাদের আর চাকুরিতে ফিরে আসার সুযোগ নেই। তাছাড়া চাকুরীচ্যুত করার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দীর্ঘ নিয়ম-কানুন থাকার কারনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেরী হচ্ছে।

ঝিনাইদহ পৌরসভার উন্মুক্ত প্রাক-বাজেট আলোচনা সভা
ঝিনাইদহ সংবাদাতাঃ
বাজেট প্রণয়নে নাগরিক মতামত গ্রহণের লক্ষ্যে ঝিনাইদহ পৌরসভায় উন্মুক্ত প্রাক-বাজেট আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এর সহযোগিতায় শনিবার দুপুরে ডা: কে আহম্মদ পৌর কমিউনিটি সেন্টারে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ঝিনাইদহ পৌরসভার। ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আছাদুজ্জামান। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সনাক জেলা শাখার সভাপতি আবু তাহের, আহ্বায়ক এম সাইফুল মাবুদ, পৌরসভার সচিব মুস্তাক আহম্মেদ, কাউন্সিলর ফারহানা রেজা আঞ্জু, সাইফুল ইসলাম মধু। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সনাকের সদস্য এন এম শাহজালাল। এসময় পৌর এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। সভায় আগামী ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য ১’শ ২৮ কোটি ১৪ লাখ ৭৪ হাজার টাকা খসড়া বাজেট পেশ করা হয়। সনাকসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে উন্নয়ন খাতে বেশি বরাদ্ধ দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।


কমলগঞ্জে অস্ত্রসহ আটক-৩

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাউন্সিলর একরামুল হক নিহত


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
শ্বাসরুদ্ধকর অপেক্ষা
নতুন সেনা প্রধান লে.জে. অাজিজ অাহমেদের বর্নিল জীবন
যে যুবতী ফুটবল মাঠে পোশাকের তোয়াক্কা করেন না
ফুলবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারীদের হাতে : দেখার কেউ নেই
আনুষ্কার সঙ্গে সম্পর্ক, মুখ খুললেন প্রভাস
৪ মিনিটে মিশরের জালে আরো ২ গোল রাশিয়ার
প্রচারণায় কেন্দ্রীয় নেতারা উত্তেজনা বাড়ছে
অপরিবর্তিত বন্যা পরিস্থিতি : কুশিয়ারা নদীর বাঁধে নতুন করে ভাঙ্গন : শহর রক্ষা বাঁধ সংস্কারে কাজ শুরু
গাইবান্ধায় মাদক বিরোধী অভিযানে : গ্রেফতার ৭
খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ বৃহস্পতিবার
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষাৎ
পর্যটকের ভীড়ে মুখর পাহাড় ঘেরা বান্দরবান!
জাপানের ঐতিহাসিক জয়
২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রীকে গনসংবর্ধনা দেওয়া হবে
কুতুবদিয়া থানার সাবেক ওসি আলতাফ জেলহাজতে
ড. মোশারফের গাড়িবহরে বাসের ধাক্কা, ছাত্রদল নেতা নিহত
উখিয়ায় ক্যাম্পে রোহিঙ্গা নেতাকে গলাকেটে হত্যা
আনুশকা রেগে গেলেন যে কারণে
বিমানে আগুন, অল্পের জন্য রক্ষা পেল সৌদি আরব দল
রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত