আজ - রবিবার ২০শে এপ্রিল, ২০১৪ ইং :: ৭ই বৈশাখ, ১৪২১ বঙ্গাব্দ গ্রীষ্মকাল :: ২০শে জমাদিউস-সানি, ১৪৩৫ হিজরী - সকাল ৬:৫৪ ( ঢাকা )
বাংলা অনলাইন পত্রিকা www.bijoynews24.com এ স্বাগতম • bijoynews24.com এ সংবাদ কিম্বা যে কোন লেখা পাঠানোর জন্য ব্যবহার করুন bijoynews24bd@gmail.com এই ই-মেইল ঠিকানা • মোবাইল : 01716954919 • 01776505090 •

Home » জাতীয়, বরিশাল বিভাগ » দেখার কেউ নেই! জিয়ানগরে সড়ক বিভাগের অর্ধ কোটি টাকার ফেরি পল্টুন ধ্বংস হচ্ছে

দেখার কেউ নেই! জিয়ানগরে সড়ক বিভাগের অর্ধ কোটি টাকার ফেরি পল্টুন ধ্বংস হচ্ছে

বিজয় নিউজ ২৪ ডটকম,পিরোজপুর : জিয়ানগরে ৩ টি ফেরিঘাটে অর্ধ কোটি টাকার ফেরি পল্টুন রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে অথচ দেখার কেউ নেই। ১০ বছর ধরে জিয়ানগরের কচা নদীর টগড়া ফেরিঘাটের ২ টি পল্টুন ও একটি ফেরি পানিতে ডুবে পলি পরে ধ্বংশ হয়ে যাচ্ছে। কতৃপক্ষের অবহেলায় এক শ্রেনীর অসাধু লোক লোহার মালামাল কেটে গোপনে বিক্রি করছে বলে এলাবাসির অভিযোগ রয়েছে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় টগড়া ফেরিঘাটের ২ টি পল্টুন ও একটি ফেরি পানিতে অর্ধেক ডুবে রয়েছে। অকেজ অবস্থায় পরে থাকায় মাঝে মাঝে লোহার এঙ্গেল ও পাত কেটে নেওয়া দেখা যায়। এ ছাড়া চাড়াখালীর নদীতে দুটি পল্টুন ও ১ টি ফেরি ৮ বছর পূর্বে ডুবে গেলেও তা উদ্ধার না কারায় ২ টি পল্টুন পানিতে ডুবে রয়েছে। শুধু নদীর উত্তর প্রান্তের ফেরিটি অর্ধেক পানিতে বাকি অর্ধেক মাটি মধ্যে দেবে রয়েছে। এই ফেরির অধিকাংশ মালামাল কেউ না দেখায় অসাধু লোকজন নিয়ে গেছে। এভাবে বলেস্বর নদীর কলারন সন্নাসি ফেরিঘাটের এক মাত্র পল্টুন টি ২০০৭ সালের সিডরে ভেসে চরে নিয়ে আটকে গেল আজ ও উদ্ধার করা হয়নি। ওই পল্টুন টি পলি মাটি পরে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। সড়ক বিভাগের কতৃপক্ষের সেদিকে কোন দৃষ্টি নেই। এ বিষয় বালিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মসিউর রহমান মঞ্জু জানান পরিত্যক্ত মালামাল কতৃপক্ষের নিলাম দিয়ে সরকারী সম্পদ রক্ষা করা উচিত। পিরোজপুরের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী আলম চাদ জানান প্রশাসনিক জটিলতার কারনে সরকারী সম্পদ রক্ষানাবেক্ষনে সমস্যা হচ্ছে। তবে দ্রুত নিলাম ডেকে পরিত্যক্ত ফেরির মালামাল বিক্রি করা হবে।

পিরোজপুরে র‌্যাবের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলিসহ ৩ ডাকাত আটক

পিরোজপুরের বেকুটিয়া ফেরি ঘাট এলাকা থেকে একটি ওয়ান সুটারগান, দু’টি এলজি, সাত রাউন্ড কার্তুজ ও তিন রাউন্ড গুলিসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের তিন সদসকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)।আটকরা হলেন- পিরোজপুরের নেসারাবাদ উপজেলার স্যাংগল গ্রামের মৃত হোসেন খন্দকারের ছেলে সবুজ ওরফে কালু , পিরোজপুর সদরের কুমিরমারা গ্রামের মৃত কাছেম হাওলাদারের ছেলে জামাল হাওলাদার  ও ঝালকাঠি সদরের বইদারাপুর গ্রামের সবুর হাওলাদারের ছেলে খলিলুর রহমান ওরফে হিরন । র‌্যাব-৮ সূত্রে জানা যায়, গোপন সূত্রে জানতে পারে পিরোজপুর ও ঝালকাঠি জেলার আন্তঃজেলা ডাকাত চক্র একত্রিত হয়ে পিরোজপুর সদরে ডাকাতির উদ্দেশে যাচ্ছে।এ সংবাদ পেয়ে র‌্যাব-৮ এর একটি বিশেষ টহল দল বেকুটিয়া এলাকায় ছদ্মবেশে ওৎ পেতে থাকে।পরবর্তীতে বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বেকুটিয়া ঘাট সংলগ্ন একটি কনফেকশনারিতে সন্দেহজনক ৪/৫ জনকে দেখতে পেয়ে চ্যালেঞ্জ করে র‌্যাব।এসময় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ওই তিন সদস্যকে আটক করে। তবি তাদের অপর দু’জন সহযোগী পালিয়ে যায়। পরে ডাকাত সবুজের কোমর থেকে একটি ওয়ান সুটার গান ও তিন রাউন্ড ৩০৩ রাইফেলের গুলি এবং ডাকাত জামালের হাতে থাকা সবজির ব্যাগ থেকে দু’টি এলজি এবং সাত রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব জানায়, আটক ডাকাতরা স্বীকার করে যে, তারা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য এবং পিরোজপুর সদরে ডাকাতির জন্য তারা বেকুটিয়া ফেরি পার হয়ে ওপারে যাওয়ার জন্য ঘাটে অপেক্ষা করতে থাকে।তাদের নামে ঝালকাঠি ও অন্যান্য থানায় ডাকাতি ও চুরিসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে ।

প্রকাশ: শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১২ সময়: ৪:৫৭ am
Share on Facebook!

By websbd.net