শিরোনাম:
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮, ১ ভাদ্র ১৪২৫
Bijoynews24.com
সোমবার ● ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
প্রথম পাতা » Slider » ডিভিশন পেলেন খালেদা
প্রথম পাতা » Slider » ডিভিশন পেলেন খালেদা
১৫ বার পঠিত
সোমবার ● ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ডিভিশন পেলেন খালেদা

Bijoynews : কারাবন্দি হওয়ার চারদিন পর ডিভিশন দেয়া হয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে। আদালতের নির্দেশের পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তাকে ডিভিশনের সুবিধা দেয়া হয়। তাকে কারাগারের দ্বিতীয় তলায় ডে কেয়ার সেন্টারে রাখা হয়েছে। এটি আগে ডে কেয়ার সেন্টার হিসেবে ব্যবহৃত হতো। খালেদা জিয়ার ডিভিশন প্রাপ্তির বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবাল হাসান।
এর আগে খালেদা জিয়াকে ডিভিশন দিতে গতকাল নির্দেশ দেন আদালত। বিকাল ৪টায় আদালতের ওই নির্দেশ নিয়ে কারা অধিদপ্তরের অফিসে যান সানাউল্লাহ মিয়াসহ বিএনপিপন্থি কয়েকজন আইনজীবী।

 

আধা ঘণ্টা পরে তারা অফিস থেকে বেরিয়ে যান। তারপরই সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ডিভিশনের বিষয়টি নিশ্চিত করতে তৎপরতা শুরু করেন কারা কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, জেল কোডের ৬১৭ ধারা অনুসারে আদালত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ডিভিশন মঞ্জুর করেছেন। নির্দেশ অনুসারে কারা কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে আদালতের নির্দেশে উল্লেখ করা হয়েছে যেহেতু খালেদা জিয়া অসুস্থ এবং বয়স্ক সে হিসেবে তিনি একজন গৃহপরিচারিকা পেতে পারেন। খালেদা জিয়ার ডিভিশন নিশ্চিত করা হলেও গৃহপরিচারিকার বিষয় নিশ্চিত করতে পারেননি কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবাল হাসান বলেন, এ বিষয়ে এখন কিছু বলতে পারছি না। পরে জানাতে পারবো।
কারাসূত্র জানিয়েছে, ডিভিশন অনুসারে খালেদা জিয়া পছন্দের খাবার, বিছানা, দৈনিক পত্রিকা, চেয়ার-টেবিল, ড্রেসিং টেবিল, পছন্দের চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসার সুবিধা পাবেন। এছাড়াও তিনি চিঠি লেখার সুবিধা পাবেন সপ্তাহে একটি। খাবার হিসেবে সকালে ৮৭ গ্রাম আটার রুটি ও ৮৭ গ্রাম ডাল-সবজি পান। দুপুর ও রাতে ৪৯৫ গ্রাম সরু চালের ভাত, ২১৮ গ্রাম মাছ-মাংস এবং সারা দিনে ১৪৫ গ্রাম ডাল পাবেন তিনি। খাবার বাবদ একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দির জন্য সরকারিভাবে দৈনিক বরাদ্দ থাকে ১১৫ টাকা। এছাড়া তিনি খাবার সংগ্রহ করতে পারবেন। দ্বিতীয় তলার ওই কক্ষে টেলিভিশন ও এসি নেই। তবে কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাকে একটি টেলিভিশন দেয়া হয়েছিলো। এতে স্যাটেলাইট সুবিধা ছিল না। এটিতে শুধু বিটিভি দেখা যেতো। কিন্তু খালেদা জিয়া জানিয়েছেন, তিনি বিটিভি দেখেন না। পরে টেলিভিশনটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। কারাগারে বিএনপি চেয়ারপারসন অত্যন্ত ধীর, স্থির ও শান্তভাবে সময় কাটাচ্ছেন। কারারক্ষীদের সঙ্গে প্রয়োজনে কথা বলছেন। খালেদা জিয়ার মানসিক অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে কারা মহাপরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেন, তিনি খুবই শান্ত। কারাগারের নিয়ম নীতি মেনেই চলছেন।
ডিভিশন দেয়ার আগে দুপুরে কারা অধিদপ্তরে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন কারা মহাপরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন। খালেদা জিয়াকে এই পরিত্যক্ত কারাগারে রাখা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার এই কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা করেছে। এটিকে এখনো পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়নি। খালেদা জিয়ার নিঃসঙ্গতার বিষয়টি বিবেচনা করে চার জন মহিলা কারারক্ষী দেয়া হয়েছে। তাকে কাশিমপুর মহিলা কারাগারে পাঠানো হয়নি কারণ তার চিকিৎসার ব্যাপার আছে। সেখানে আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে তার কষ্ট হবে বিবেচনায় এখানে রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।
৮ই ফেব্রুয়ারি কারাবন্দি হওয়ার পর থেকে রোববার পর্যন্ত খালেদা জিয়া সাধারণ বন্দি হিসেবেই কারাগারে ছিলেন। গতকাল পর্যন্ত সাধারণ বন্দি হিসেবে রাখা হয়েছে তাকে। কারাগারের খাবার দেয়া হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে ডিভিশন দেয়া প্রসঙ্গে তিনি দুপুরে বলেছিলেন, জেল কোডে দুটি কথা আছে। ১৮৬৪ সালের জেল কোডে সরাসরি ডিভিশনের কথা  নেই। সেখানে বলা আছে কী কী ক্ষেত্র আছে, সেগুলো বিবেচনা করে কোর্ট যে নির্দেশ দেবেন সেটি পালন করা হবে। পরবর্তীতে ২০০৬ সালে একটি জেল কোড প্রণীত হয়েছিল, ওই জেল কোডের ৬১৭-এর উপধারায় ওয়ারেন্ট অব  প্রেসিডেন্স আছে। সেখানে প্রাক্তন  প্রেসিডেন্ট আছে, প্রধানমন্ত্রীর কথা উল্লেখ নেই। সংসদ সদস্যের বিষয়ে সেখানে বলা আছে। সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলের সংসদ সদস্য অথবা সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদকের কথা। যেহেতু তিনি বা তার দল সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন না, তাই সেই ক্ষেত্রেও তাকে ডিভিশন দেয়া যাচ্ছে না। ডিভিশনের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক রিকন্ডিশন কোর্ট থেকেই আসবে। গত ৮ই ফেব্রুয়ারি কোর্ট থেকে কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। যে কারণে তাকে সাধারণ বন্দি হিসেবেই রাখা হয়েছে। গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময়ে খালেদা জিয়াকে ডিভিশন দেয়ার নির্দেশ দেন আদালত। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শুনেছি আদালত নির্দেশ দিয়েছেন। এই আদেশের কপি আমাদের কাছে পৌঁছালে সেই অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।
বিএনপি চেয়ারপারসনের গৃহপরিচারিকা ফাতেমা কারাগারে আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রথম দিন পুলিশ দিয়ে গিয়েছিলো। কিন্তু জেল কোড অনুসারে গৃহপরিচারিকা রাখার সুযোগ না থাকায় এক ঘণ্টা পরে আমরা তাকে ফিরিয়ে দিয়েছি। খালেদা জিয়ার সঙ্গে কোনো সেবিকা নেই। সাধারণ কারাবন্দিদের জন্য বরাদ্দকৃত খাবারই গতকাল পর্যন্ত খালেদা জিয়া খেয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, বাইরে থেকে কোনো খাবার অ্যালাউ করা হচ্ছে না। তিনি কারাগারের খাবারই খাচ্ছেন। সাধারণ বন্দিদের ক্ষেত্রে শুকনো খাবার, ফলমূল অ্যালাউ করা হয়। এক্ষেত্রে তার স্বজনরা ফলমূল নিয়ে এসেছেন, সেগুলো অ্যালাউ করা হয়েছে।
খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে জানতে চাইলে কারা মহাপরিদর্শক বলেন, চিকিৎসা মানুষের বেসিক হিউম্যান রাইটস। সাধারণ বন্দির জন্য যতটুকু প্রযোজ্য, ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দির জন্যও ততটুকু প্রযোজ্য। চিকিৎসার বিষয়ে কোনো পার্থক্য নেই। এখানে একজন চিকিৎসক সার্বক্ষণিক আছেন। সেইসঙ্গে একজন ডিপ্লোমা নার্স আছেন। তাছাড়া চার জন মহিলা কারারক্ষী আছেন বলে জানান তিনি। তবে প্রয়োজন হলে বাইরে থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আনার ব্যবস্থা করা হবে।
কারাবিধিতে যা আছে-
জেলকোড-এর ৬১৭ বিধিতে বলা আছে, ‘যারা ভালো চরিত্রের অধিকারী  ও অনভ্যাসগত অপরাধী, সামাজিক মর্যাদা, শিক্ষা এবং অভ্যাসের কারণে যাদের জীবন যাপনের ধরন উচ্চমানের এবং যারা নৃশংসতা, নৈতিক স্খলন এবং ব্যক্তিগত প্রতিহিংসামূলক অপরাধ বা বিস্ফোরক আগ্নেয়াস্ত্র সঙ্গে রাখা, সম্পত্তি সংক্রান্ত মারাত্মক অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত নন বা অন্য কাউকে এসব অপরাধ করতে প্ররোচিত বা উত্তেজিত করেন নি তারা  ডিভিশন-১ প্রাপ্তির যোগ্য হবেন।
জেল কোড-এর ৬১৭ (২) বিধিতে বলা হয়েছে, ‘নাগরিকত্ব নির্বিশেষে   সামাজিক মর্যাদা, শিক্ষা এবং অভ্যাসের কারণে জীবনযাপনের ধরন   উচ্চমানের বন্দিগণ ডিভিশন-২ প্রাপ্তির যোগ্য হবেন। অভ্যাসগত বন্দিগণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে এই শ্রেণির বহির্ভূত হবে না, সরকারের অনুমোদন বা  পুনর্বিবেচনার শর্তে শ্রেণি বিভাজনকারী কর্তৃপক্ষকে বন্দির চরিত্র এবং প্রাক পরিচিতির ভিত্তিতে এ শ্রেণিতে অন্তর্ভুক্তির জন্য ক্ষমতা দেয়া  হবে। যেসব বন্দি ডিভিশন ১ ও ২-এর অন্তর্ভুক্ত নন তারা তৃতীয় অন্তর্ভুক্ত হবেন। সেখানে বলা হচ্ছে, আদালত কোনো বন্দিকে ডিভিশন-১ ও  ডিভিশন-২ প্রদানের জন্য প্রাথমিক সুপারিশটি সরকারের অনুমোদন  কিংবা পুনর্বিবেচনার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সেটি অনুমোদন বা পুনর্বিবেচনা করবেন। আর অনুমোদনের এ সময়কালে সুপারিশকৃত যেসব সাজাপ্রাপ্ত বন্দির পূর্ববর্তী জীবনমান সাধারণের চেয়ে উন্নততর বলে ঘোষিত অথবা বিচারাধীন বন্দিকে ডিভিশন-১ বিচারাধীন বন্দির শ্রেণিভুক্ত করা হয়েছে, যদি তারা ভালো চরিত্রের অনভ্যাসগত অপরাধী হয় এবং অপরাধের ধরন হিসেবে ও অন্যান্য ক্ষেত্রে দ্বিতীয় শ্রেণির ডিভিশন সাজাপ্রাপ্ত বন্দি হিসেবে বিবেচিত ঘোষিত হয় তারা সেসময় দ্বিতীয় শ্রেণির ডিভিশনপ্রাপ্ত হিসেবে  বিবেচিত হবেন।
সাবেক ডিআইজি প্রিজন (কারা উপ-মহাপরিদর্শক) মেজর জেনারেল শামসুল হায়দার সিদ্দিকী গতকাল মানবজমিনকে বলেন, খালেদা জিয়া  কারাগারে ডিভিশন পাবেন। তাকে ডিভিশন না দেয়ার কোনো কারণ নেই। তিনি বলেন, এর আগে ওয়ান ইলেভেনের সময় তো আমি ছিলাম। তখন খালেদা জিয়া ছিলেন বিচারাধীন বন্দি। আর এখন তো তিনি সাজাপ্রাপ্ত। যে সব যোগ্যতায় ডিভিশন দেয়া হয়, তার সবই তার রয়েছে। কারাগারে ডিভিশন প্রাপ্তির বিধান উল্লেখ করে শামসুল হায়দার সিদ্দিকী বলেন, কেউ সাজাপ্রাপ্ত হলে আবেদনের ভিত্তিতে আদালত থেকে ডিভিশন দেয়া হয়। তার (সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি) সামাজিক অবস্থান, জীবনযাত্রার ব্যয়, শিক্ষা এসব বিবেচনা করে আদালত ডিভিশন দেয়। আর যদি আদালত থেকে ডিভিশন না দেয় তাহলে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি তার আইনজীবীর মাধ্যমে কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেন। কারা কর্তৃপক্ষ সেই আবেদন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন। মন্ত্রণালয় থেকেই এটির উপর আদেশ হয়ে আসবে। শামসুল হায়দার সিদ্দিকী বলেন, যে সমস্ত কারণে ডিভিশন দেয়া হয়, সেই হিসেবে খালেদা জিয়ারও ডিভিশন পাওয়ার কথা। তিনি সাবেক সেনাপ্রধানের স্ত্রী, সাবেক প্রেসিডেন্টের স্ত্রী, একটি রাজনৈতিক দলের প্রধান- এসব সার্বিক বিবেচনায় খালেদা জিয়া ডিভিশন পাবেন। খালেদা জিয়া বর্তমানে কারাগারে ডিভিশনের পর্যায়েই আছেন উল্লেখ করেন সাবেক এই ডিআইজি প্রিজন।  তিনি বলেন, আমার ধারণা বর্তমানে উনি যেভাবে আছেন, এটি ডিভিশনের পর্যায়েই আছেন। কারণ উনার জন্য আলাদা রুম দেয়া হয়েছে। দেখাশুনা ও কাজ করার জন্য আলাদা লোক দেয়া হয়েছে। সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার সবকিছুই উন্নতমানের পাচ্ছেন। হয়তো আইনি জটিলতার কারণে ডিভিশনটা ঘোষণা করা  হয়নি। আমার ধারণা যতটুকু কারা কর্তৃপক্ষের দেয়ার কথা তার প্রায় সবকিছুই কারা কর্তৃপক্ষ দিচ্ছেন।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কক্সবাজার আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ১৩ তরুণী আটক
হজ ফ্লাইট শেষ, যেতে পারেননি ৬০৬ জন
শোকের দিনে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ
প্রথমবার আসিফ-শিরিন শিলা
শাকিব-শ্রাবন্তীকে নিয়ে গুঞ্জন
শনিবার ব্যাংক খোলা
সৌদিতে আরও ৫ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি, সন্তানের খোঁজে থানায় মা
কুষ্টিয়ায় অসহায় বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে তিন ঘন্টার মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দিলেন ডিজিএম আশরাফ খান !
ফুলবাড়ীতে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শখে মুজবিুর রহমানরে ৪৩তম মৃত্যু র্বাষকিী পালতি
হরিণাকুন্ডুতে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে দুই ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার
লালপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দেয়াল পত্রিকা “অঙ্গনা‍”র মোড়ক উম্মোচন
পলাশবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু’র ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত
প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাবার সময় আটক এসআই খলিলকে প্রত্যাহার
পঞ্চগড়ে জাতীয় শোক দিবস পালন
“কুষ্টিয়ায় বিএনএফ’র উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালন”
ঈদ-উল-আযহার ছুটি উপলক্ষে ইবির হল বন্ধ হচ্ছে কাল
স্যার কথা বলবেন বলে তুলে নেয়া হয় ইমিকে
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
বার বার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছি, পিছিয়ে যাইনি : প্রধানমন্ত্রী