শিরোনাম:
●   দুর্নীতি বন্ধে কংক্রিটের সড়ক নির্মাণের সুপারিশ দুদকের ●   খোকসায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী ●   সিরিয়ার দিকে যাচ্ছে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ! ●   নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শাখা বরাক নদী ও শেরপুর রোডের ব্রীজ সংলগ্ন খালটির নিরব কান্না ! অবৈধ দখল থেকে রক্ষার আহবান ●   কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক ●   চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের অভিষেক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ●   ইবিতে ‘লোকসংগীত ও বিজ্ঞান’ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত ●   গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিকার দাবি ●   নীলফামারীর সৈয়দপুরে জোড়া খুনের আসামী গ্রেফতার ●   সুন্দরগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুণর্বাসন প্রকল্পের সমাপনী
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৮, ৬ বৈশাখ ১৪২৫
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » কারাগারে খালেদা জিয়ার খাবারের মেনুতে যা থাকবে
শুক্রবার ● ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
Email this News Print Friendly Version

কারাগারে খালেদা জিয়ার খাবারের মেনুতে যা থাকবে

---Bijoynews  : দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারিক আদালত। বৃহস্পতিবার বেলা ২টা ২০ মিনিটে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে স্থাপিত ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এছাড়া তারেক রহমানসহ অন্য পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও দুই কোটি টাকা করে জরিমানা করেন আদালত।

রায়ের পর খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার একটি ভবনের দ্বিতীয়তলার ডে-কেয়ার সেন্টারে খালেদা জিয়াকে রাখতে পারে কারা অধিদফতর। এর ফলে বৃহস্পতিবার থেকেই শুরু হচ্ছে বিএনপি চেয়ারপারসনের কারাজীবন। কারা জীবনে খালেদা জিয়া একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দি হিসেবে থাকবেন। বন্দিজীবনে একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দি কতটুকু খাবার পাবেন তা নিম্নে দেয়া হলো-

একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দি সকালে ৮৭ গ্রাম আটার রুটি ও ৮৭ গ্রাম ডাল-সবজি পান। দুপুর ও রাতে ৪৯৫ গ্রাম সরু চালের ভাত, ২১৮ গ্রাম মাছ-মাংস এবং সারা দিনে প্রায় ১৪৫ গ্রাম ডাল পান। এছাড়া তেল, লবণ, মরিচসহ সব মিলিয়ে তিন বেলা খাবার বাবদ একজন ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দির জন্য সরকারিভাবে বরাদ্দ হয় ১১৫ টাকা।

কারাগারে ভিআইপি এই বন্দিদের সরকার বরাদ্দ খাবারে প্রয়োজন মেটে না। এর বাইরে ভিআইপি বন্দিরা কারা ক্যান্টিন থেকে বাড়তি খাবার সংগ্রহ করে থাকেন। এছাড়া বন্দিদের স্বজনরা সাক্ষাতের সময় শুকনো খাবার ও ফলমূল দিয়ে যান। এসব দিয়েই খাবারের প্রয়োজন মেটাতে হয় তাদের।

তবে প্রিজন ক্যান্টিনের (পিসির) মাধ্যমে কারাগারে বন্দির নামে টাকা পাঠানোর রীতি চালু রয়েছে। পিসিতে বন্দির স্বজনরা টাকা পাঠান। সেই টাকায় তারা বাড়তি খাবার খেতে পারেন। তবে বন্দিদের খাবার সরবরাহে কোনো ধরনের সমস্যা হচ্ছে না বলে জানান কারা কর্মকর্তারা।

কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, কারাগারে সাধারণ বন্দিদের জন্য বরাদ্দ থাকে প্রায় ৫৫ থেকে ৬৫ টাকা পর্যন্ত। এই টাকায় হিসাব করে খেলে অনেক ভালো খাবার খাওয়া সম্ভব।

প্রথম শ্রেণির একজন বন্দি ১৫ দিনের পরিবর্তে ৭ দিনে একবার চিঠি লেখার সুযোগ পাবেন।

কারাবিধি থেকে একেবারে দুটি বিষয় বাদ দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রথমটি হল দ্বীপান্তর ও দাসত্বের সাজা দেয়া। সূত্র জানিয়েছে, দেশ বিভাগের আগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের এ ধরনের শাস্তি দিয়ে দ্বীপান্তর করা হতো। কিন্তু পরবর্তীকালে ১৯৪৭ সালের পর তা আর প্রয়োগ করার নজির নেই।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, জেল কোডের অধ্যায় ২৭, রুল ৯১০(১)-এ বলা হয়েছে- সামাজিক মর্যাদাসম্পন্ন, উচ্চশিক্ষিত এবং উন্নত জীবনযাপনে অভ্যস্ত বন্দি ডিভিশন-১ বরাদ্দ পাবেন। জেল কোডের এ ধারার সুনির্দিষ্ট কোনো ব্যাখ্যা নেই। তাই প্রাথমিকভাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রথম শ্রেণির সরকারি কর্মকর্তা ছাড়াও বীরত্বপূর্ণ খেতাবপ্রাপ্ত যেমন: বীরউত্তম, বীরবিক্রম, বীরপ্রতীক, স্বাধীনতা ও একুশে পদক, জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব রয়েছে এমন রাজনৈতিক দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ইমেরিটাস অধ্যাপক এবং বন্দি বা আটককালে বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) মর্যাদাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ডিভিশন দেয়া হবে। মামলার রায় হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি ডিভিশনের সুবিধা পাবেন। জেল কোডের অধ্যায় ২৭, রুল ৯১০(১)-এ বিষয়গুলো স্পষ্টভাবে যোগ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে কারাগারে গেলে সাধারণ হাজতিদের মতোই এই কর্মকর্তাদের থাকতে হয়। তবে আদালতের নির্দেশে কাউকে কাউকে ডিভিশন দেয়া হয়। ডিভিশন পেলে একজন হাজতি পছন্দের খাবার, বিছানা, দৈনিক পত্রিকা, চেয়ার-টেবিল, ড্রেসিং টেবিল, পছন্দের চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসার সুবিধা পেয়ে থাকেন।


‘নির্বাচনে খালেদা-তারেক অংশ নিতে পারছেন না’

ইতালী ও ভ্যাটিকান যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী


আরো পড়ুন...

দুর্নীতি বন্ধে কংক্রিটের সড়ক নির্মাণের সুপারিশ দুদকের দুর্নীতি বন্ধে কংক্রিটের সড়ক নির্মাণের সুপারিশ দুদকের
খোকসায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী খোকসায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী
সিরিয়ার দিকে যাচ্ছে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ! সিরিয়ার দিকে যাচ্ছে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ!
নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শাখা বরাক নদী ও শেরপুর রোডের ব্রীজ সংলগ্ন খালটির নিরব কান্না !  অবৈধ দখল থেকে রক্ষার আহবান নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শাখা বরাক নদী ও শেরপুর রোডের ব্রীজ সংলগ্ন খালটির নিরব কান্না ! অবৈধ দখল থেকে রক্ষার আহবান
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের অভিষেক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের অভিষেক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
ইবিতে ‘লোকসংগীত ও বিজ্ঞান’ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত ইবিতে ‘লোকসংগীত ও বিজ্ঞান’ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত
গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিকার দাবি গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিকার দাবি
নীলফামারীর সৈয়দপুরে জোড়া খুনের আসামী গ্রেফতার নীলফামারীর সৈয়দপুরে জোড়া খুনের আসামী গ্রেফতার
সুন্দরগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুণর্বাসন প্রকল্পের সমাপনী সুন্দরগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুণর্বাসন প্রকল্পের সমাপনী

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
দুর্নীতি বন্ধে কংক্রিটের সড়ক নির্মাণের সুপারিশ দুদকের
খোকসায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী
সিরিয়ার দিকে যাচ্ছে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ!
নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শাখা বরাক নদী ও শেরপুর রোডের ব্রীজ সংলগ্ন খালটির নিরব কান্না ! অবৈধ দখল থেকে রক্ষার আহবান
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের অভিষেক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
ইবিতে ‘লোকসংগীত ও বিজ্ঞান’ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত
গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিকার দাবি
নীলফামারীর সৈয়দপুরে জোড়া খুনের আসামী গ্রেফতার
সুন্দরগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুণর্বাসন প্রকল্পের সমাপনী
প্রয়োজনে নগ্ন হতে প্রস্তুত সুরভীন
বাংলাদেশে অনলাইনে যৌন ব্যবসা, ব্যবসায়ী আটক
দুই কোরিয়ার ‘যুদ্ধাবস্থা’র আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি?
বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার গল্প বললেন প্রধানমন্ত্রী
কুমিল্লায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১
সুন্দরগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পুকুরের মাছ নিধন
ফুলবাড়ীতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত
কচুকাটা হাটের সাবেক বৈধ দোকানঘড় উচ্ছেদ জোরপুর্বক অবৈধ ভাবে দখলে নেন প্রভাবশালীরা
গ্রাম বাংলার ঢেঁকি আজ রূপকথার গল্প
সাপাহারে আনুষ্ঠানিক ভাবে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন