শিরোনাম:
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮, ৫ আষাঢ় ১৪২৫
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » খালেদার আইনজীবীরা আদালতে কান্নাকাটি করছেন: রাষ্ট্রপক্ষ
বৃহস্পতিবার ● ১১ জানুয়ারী ২০১৮
Email this News Print Friendly Version

খালেদার আইনজীবীরা আদালতে কান্নাকাটি করছেন: রাষ্ট্রপক্ষ

---Bijoynews : উচ্চ আদালতে ৫০ বার আপিল করে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এখন আদালতে কান্নাকাটি করছেন বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো: মোশাররফ হোসেন কাজল।

বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার ১০ম দিনের (খালেদা জিয়ার পক্ষে ৯ম) যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

্এর আগে বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ যুক্তি উপস্থাপনে বলেন: এটি  ফৌজদারি মামলার আবরণে রাজনৈতিক মামলা।  পশ্চিমা দেশগুলোতে এ ধরনের মামলাগুলোকে বলা হয় ‘বানোয়াট মামলা’। খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তার কারণে এ মামলা এখনো চলছে। নয়তো প্রথম দিনেই এই মামলা খারিজ হয়ে যেতো।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ
তিনি বলেন: এ মামলা এখানে কেন? এখানে কোর্টের কোন পরিবেশ নেই। লজিস্টিক সাপোর্ট নেই। তার মধ্যে আরো ১৪টি মামলা এখানে নিয়ে আসা হয়েছে। এখানে কেন? এটি ক্যামেরা ট্রাইলের জন্য।  এই আদালতে আসামী তার মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এটি সংবিধানের লঙ্ঘন।

মওদুদ বলেন: এ মামলার অভিযোগগুলোর কোন ভিত্তি নেই। এটি একটি প্রাইভেট ট্রাস্ট। শহীদ জিয়ার সঙ্গে কুয়েতের আমিরের একটা বন্ধুত্বের জন্য তার নামে ট্রাস্টে আসছে এই অর্থটা। সরকারি কোন অর্থ না তা। কাজেই এ মামলা রাজনৈতিক।

মওদুদ আহমদের এসব বক্তব্যের জবাবে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেন: খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এই  মামলা খারিজ করে দেয়ার জন্য  উচ্চ আদালতে গিয়েছেন ৫০ বার। তারা বলছেন, এ মামলার কোন অস্তিত্বই থাকতে পারে না। কিন্তু সমস্ত চেষ্টা চালিয়ে তারা ব্যর্থ হয়েছে। আর এখন আদালতে কান্নাকাটি করছেন।

‘তারা যে মামলা খারিজের কথা বলছেন তা অমূলক। এসব তারা বাঁচার জন্য বলছেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট গঠিত হয় ১৯৯৩ সালে। অথচ টাকা আসলো ১৯৯১ সালে। তাহলে তা কিভাবে ব্যক্তিগত হলো?  ঘোড়ার আগে গাড়ি নাকি গাড়ির আগে ঘোড়া; ঠিক বুঝতে পারছি না। মূলত তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায় তার কাছে টাকা এসেছে। তারা বলছেন টাকা ব্যাংকে আছে। তাহলে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের টাকা কোথায়? এর অস্তিত্ব কোথায়?’, বলেন মোশাররফ হোসেন কাজল। 

তিনি জানান: তারা মূলত যতো রকম রাজনৈতিক বক্তব্য দেয়া যায় তা দিচ্ছে।  মূলত রাজনৈতিক স্ট্যান্ড চলছে। তাদের আরগুমেন্টে আইন নেই। এসব রাজনৈতিক বক্তব্য। এতদিন ব্যারিস্টার মওদুদ এবং জমির উদ্দীন সরকারেরা এ মামলা পরিচালনা করেননি। তারা এখন কেন আসলেন?  আসলে তারা বাঁচার চেষ্টা করছেন। আমরা আসামীদের যাবজ্জীবন সাজা চেয়েছি। আশা করি তা হবে।

আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।


অন্যের স্ত্রী নিয়ে পালালেন জাপার মেয়র প্রার্থী

চিরিরবন্দরে ৩ দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
রহস্যজনক সড়ক দুর্ঘটনায় দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার বাদী নিহত
পেনাল্টি গোলে দ. কোরিয়াকে হারালো সুইডেন
মেয়েকে কুপ্রস্তাব, স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন স্ত্রী!
সেনা প্রধান হলেন জেনারেল আজিজ আহমেদ
যশোরে দু’গ্রুপের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
ময়মনসিংহে নারী ‘মাদক ব্যবসায়ীর’ গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার
জকিগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে : দেড় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী
গড়াই নদী থেকে তরু‌ণের ভাসমান লাশ উদ্ধার
দাকোপে পরকীয়ার ঘটনায় স্বামীর পিটুনিতে স্ত্রীসহ প্রেমিক আহত
মেসির পেনাল্টি মিস, আর্জেন্টিনাকে রুখে দিল আইসল্যান্ড
আফগানিস্তানে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ২৫
দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর
এটিএন বাংলায় ইভা রহমানের একক সংগীতানুষ্ঠান
রাশিয়ান সুন্দরী এম্বাসেডরের সতর্কতা
কারাফটকের আগেই ব্যারিকেড, সাক্ষাত পেলেন না বিএনপি নেতারা
গণভবনে জনসাধারণের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়
বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত
বাড্ডায় আওয়ামী লীগ নেতাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা
আত্মঘাতী গোলে হারলো মরক্কো
রোনালদোর হ্যাটট্রিক