ঢাকা, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৭ ফাল্গুন ১৪২৪
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » মদ,নারী- এহেন অপকর্ম নেই যা সৌদি রাজপরিবারে হয় না: যুবরাজের স্ত্রী
সোমবার ● ১৩ নভেম্বর ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

মদ,নারী- এহেন অপকর্ম নেই যা সৌদি রাজপরিবারে হয় না: যুবরাজের স্ত্রী

---Bijoynews : দুর্নীতির দায়ে সম্প্রতি আটক হওয়া সৌদি যুবরাজ আল ওয়ালিদ বিন তালালের স্ত্রী আমিরা বিনতে আইডেন বিন নায়েফ সম্প্রতি রাজ পরিবারের অন্ধকার দিকের কথা তুলে ধরেছেন। আমিরা অবশ্য তালালের সাবেক স্ত্রী, যুবরাজের কর্মকাণ্ডের কারণে আগেই সম্পর্ক ত্যাগ করেছেন।

আমিরা জানিয়েছেন, সৌদি পরিবারকে বাইরে থেকে যতোটা ভদ্র ও ধর্মভীরু বলে মনে হয়, বাস্তবতা সম্পূর্ণ উল্টো! তিনি জানান, তার সাবেক স্বামীসহ রাজপরিবারের অনেকেই অর্থ পাচারসহ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত। এক কথায় বলতে গেলে এহেন কোনো অপকর্ম নেই যা তারা করেন না।

আমিরা জানান, জেদ্দা শহরকে এরা দাস বাজারে পরিণত করেছেন। সেখানে অল্প বয়সী নারী বিক্রি থেকে শুরু করে মদ, সেক্স পার্টির মতো সব রকম ব্যভিচারই হয়ে থাকে। পুলিশ এসবের ব্যাপারে অবহিত থাকলেও শুধুমাত্র চাকরি হারানোর ভয়ে কোনো উদ্যোগ নেয় না। কেননা, শহরের সব অপরাধের পেছনে সৌদি রাজ পরিবারের সদস্যরা প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। আর সে কারণেই সৌদি পরিবারের পুরুষেরা ব্যভিচারের চূড়ান্ত করে আসছে।

আমিরা সম্প্রতি হেলোউইন পার্টির উদাহরণ তুলে ধরেন। বলেন, সেই পার্টিতে সর্বসাকুল্যে দেড়শ’ মানুষ জড়ো হয়েছিলেন।

যাদের ভেতরে কূটনৈতিক কর্মকর্তারাও ছিলেন। সেখানে সেদিন যা হয়েছে তা বাইরের দেশের কোনো নাইট ক্লাবের থেকে আলাদা ছিল না।সৌদি আরবে মদ নিষিদ্ধ হলেও সেই পার্টিতে তরল পদার্থটির বন্যা বয়ে গিয়েছিল। সেই ডিজে পার্টিতে ওয়াইন, জুটিদের নাচ, নানান ধরনের পোশাক পরা সবই হয়েছিল।

আমিরা জানান, সৌদি আরবে মদ নিষিদ্ধ হওয়ায় কালো বাজারে এটির প্রচুর দাম। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, সেখানে এক বোতল স্মিরনফ ভদকা কিনতে গেলে প্রায় দেড় হাজার রিয়াল গুনতে হয়। টাকার হিসেবে যা প্রায় ৩৩ হাজার। কখনও কখনও সেসব পার্টিতে আয়োজকেরা আসল মদের বোতলে স্থানীয় মদ ঢুকিয়ে সার্ভ করে থাকে। স্থানীয় সেই সব ওয়াইনকে তারা সিদ্দিকী নামে চেনে।

আমিরা বলেন, সৌদি আরবে দাসপ্রথা এখনও রয়েছে। তবে সেটি গোপনে এবং অন্যভাবে হয়ে থাকে। রাজপরিবারের কিছু সুবিধাভোগী ব্যক্তি সেখানে দাস বিক্রি করে থাকেন। আর এসব দাস বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আনা হয় শ্রীলংকা, বাংলাদেশ, ফিলিপাইন, সোমালিয়া, নাইজেরিয়া, রোমানিয়া এবং বুলগেরিয়া থেকে।

যেসব শিশুকে এখানে বিক্রি করা হয় তারা কখনই মালিকের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোথাও যেতে পারে না। এমনকি এশিয়ার দাসীরা প্রায় ক্ষেত্রেই নিজেদের বন্দি বলেই মনে করেন। সেখানে অল্প বয়সী মেয়েদের আলাদা করে রাখা হয় এবং তাদের উপর যৌন নিপীড়ন চালানো হয়।


যশোরে চারটি বাঘের বাচ্চাসহ দুইজন গ্রেফতার

ইনু পাঙ্গাস খাবেন নাকি চিতল?


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
যে কারণে “অনলাইন প্রেসক্লাব” গঠন করবেন ?
‘শয্যসঙ্গী হওয়ার বিনিময়ে ত্রাণ…….!’
৬৬ জন আরোহী নিয়ে একটি ইরানি বিমান বিধ্বস্ত
ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া ৮ম আন্তর্জাতিক স্বর্ণপদক প্রদান -২০১৮
মৌলভীবাজারে মাদরাসা ছাত্র নিখোঁজ
গাইবান্ধায় বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান
২৯ প্রকল্প উদ্বোধন করতে রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
পরকীয়ার অভিযোগে গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায়, ৩ নারী আটক
গুলি করে পালানো যুবক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
কুষ্টিয়ায় স্ত্রীর পরকীয়ার জেরে স্বামীকে গলা কেটে হত্যা
সাংবাদিক হত্যা ও হয়রানীমূলক মামলার প্রতিবাদে গাইবান্ধায় সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের মানববন্ধন
গ্যাস লাইটেই নিভে গেল অনিলের জীবন
নাগরি বর্ণে ছিলটি ভাষা’র রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন
ভালোবাসা দিবস থেকে অনশন, অতঃপর বিয়ে
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ঘটককে গলা কেটে হত্যা, স্ত্রী আটক, পোড়াদহে অজ্ঞাত বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার
জোবায়েদা নয়; ঢাকায় আসছে শর্মিলা
পুরুষ সেজে দুই মেয়েকে বিয়ে করে সুইটি!
চট্টগ্রামে অগ্নিকাণ্ডে বিপুল ক্ষতি, পুড়েছে ব্যাংকের বুথ, ফার্নিচারের শো-রুম
চমক নিয়ে আসছেন বুবলী
‘আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না’