শিরোনাম:
●   যুদ্ধ বাধলে ইসরাইলকে মুুছে ফেলার হুঙ্কার ইরানের ●   শেরপুর বাংলার রাম রহিম : দরজা বন্ধ করেই চলে নারীদের থেরাপি! ●   আ’লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকাকে কুপিয়ে হত্যা ●   ইরানের পক্ষে ইউরোপের সব দেশ ●   মসজিদে নববীতে ইহুদি প্রবেশের অনুমতি দিলো সৌদি ●   প্রেমিকের ফেসবুকে ছবি পোস্ট করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার! ●   ঘুমে ব্যাঘাত ঘটায় বাবাকে নির্মমভাবে খুন করলো ছেলে! ●   স্টুডিও’র অন্তরালে পর্ণো ভিডিও ব্যবসার অভিযোগে কুমারখালীর চরসাদীপুর থেকে ৩টি কম্পিউটার জব্দ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও কম্পিউটার বাজেয়াপ্ত ●   স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট ছিলেন: হানিফ ●   কুষ্টিয়া জেলা টেলিভিশন ক্যমেরাপার্সন এসোসিয়েশন (টিসিএ) জরুরী সভা অনুষ্ঠিত
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ৮ অগ্রহায়ন ১৪২৪
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » দুই কারণে বিদেশে থেকেই পদত্যাগ সিনহার!
রবিবার ● ১২ নভেম্বর ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

দুই কারণে বিদেশে থেকেই পদত্যাগ সিনহার!

---Bijoynews : ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে ক্ষমতাসীনদের তোপের মুখে ছুটি নিয়ে বিদেশ গিয়ে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এ নিয়ে ২১ জন প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন করলেও পদত্যাগের ঘটনা এটাই প্রথম। ফলে রাষ্ট্রের তিন স্ত্মম্ভের একটির প্রধান ব্যক্তির এই পদত্যাগ ৪৭ বছরের বাংলাদেশকে নতুন একটি অভিজ্ঞতার মুখে দাঁড় করাল।আবু সাদত মোহাম্মদ সায়েম থেকে শুরু করে এই পর্যন্ত যত প্রধান বিচারপতি এসেছিলেন, তার মধ্যে বিচারপতি সিনহাই একমাত্র ব্যক্তি যিনি অমুসলিম। এখন জনমনে প্রশ্ন, বিদেশ থেকে কেন পদত্যাগ করলেন তিনি? বিদেশ বসেই পদ ছাড়ার বিষয়ে দুইটি কারণকে মনে করেন আইনজ্ঞসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

তারা বলছেন, কার্যত দুটি কারণে তাঁকে বিদেশে থেকে এভাবে বিদায় নিতে হয়েছে। প্রথমত, তাঁর বিরুদ্ধে ১১টি অভিযোগ ওঠার পরিপ্রেক্ষিতে আপিল বিভাগের অন্য পাঁচ বিচারপতি তাঁর সঙ্গে এজলাসে বসে বিচারকাজ পরিচালনা করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। দ্বিতীয়ত, দেশে ফিরে পদত্যাগ করলে কিংবা নির্ধারিত সময় পর্যন্ত নিজ পদে আসীন থাকলে তাঁকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মুখোমুখি হতে হতো। ফলে আবার তাঁর বিদেশে যাওয়া অনিশ্চয়তার মুখে পড়ার শঙ্কা ছিল।

প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের ফলে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অনুসন্ধান করার পথ সহজ হবে দুদকের পক্ষে। তাঁর পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়েছে—রাষ্ট্রপতির দপ্তর থেকে এটা বলার পরই কেবল দুদক তাঁর বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামতে পারবে। তবে পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত তাঁর বিরুদ্ধে দুদকের কোনো পদক্ষেপ গ্রহণে আইনগত বাধা রয়েছে।

এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘দুর্নীতি, অনিয়ম, নৈতিক স্খলনের অভিযোগ ওঠার পর একজন বিচারপতির আর সম্মান নিয়ে থাকার কিছু থাকে না।

তারপর যদি সহকর্মীরা তাঁর সঙ্গে বসে বিচারকাজ পরিচালনা করতে অস্বীকৃতি জানান, তাহলে এর চেয়ে অপমানজনক আর কিছু হতে পারে না। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ক্ষেত্রে এ ঘটনাই ঘটেছে। এ কারণে বিচারপতি এস কে সিনহার সামনে পদত্যাগ করা ছাড়া আর কোনো পথ খোলা ছিল না বলে মনে করি। ’

সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। সেই বিবৃতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। সেটা আমরা দেখেছি। সেখানে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে ১১টি অভিযোগ তোলা হয়েছে। এ কারণে তাঁর সহকর্মীরা তাঁর সঙ্গে বসে বিচারকাজ পরিচালানা করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। এ অবস্থায় তাঁর উচিত ছিল দেশে ফিরে অভিযোগগুলো মোকাবেলা করা; কিন্তু তিনি তা না করে বিদেশে থেকে পদত্যাগ করলেন। এ থেকে ধরে নেওয়া যায় যে অভিযোগগুলোর কিছু না কিছু সত্যতা রয়েছে। তাই বিচারপতি এস কে সিনহা পদত্যাগ করেছেন বলে মনে করি। ’

বিচারপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে দুদক তদন্ত করতে পারবে কি না জানতে চাইলে ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, রাষ্ট্রপতি যে মুহূর্ত থেকে বিচারপতি এস কে সিনহার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করবেন, এর পর থেকে তিনি আর বিচারপতি পদে আসীন নেই বলে ধরে নিতে হবে। তাই এখনই তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্ত করা যাবে কি না তা বলার সময় হয়নি। তবে আইন অনুযায়ী বিচারক পদে আসীন থাকাবস্থায় তদন্ত করা যাবে না। আর সাবেক একজন বিচারপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে কোনো আইনগত বাধা নেই।

দেশের ২১তম প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ১০ নভেম্বর বা এর কাছাকাছি সময়ে দেশে ফেরার কথা থাকলেও তিনি ফিরবেন কি না সে নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই জল্পনা-কল্পনা ছিল। গতকাল শনিবার তাঁর পদত্যাগপত্র রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়েছে। রাষ্ট্রপতি গতকালই তা গ্রহণ করেছেন। আগের দিন শুক্রবার প্রধান বিচারপতি সিঙ্গাপুরে ক্যান্সারের চিকিৎসা করিয়ে কানাডার উদ্দেশে যাত্রা করেন। এর আগেই তিনি পদত্যাগপত্রে সই করে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাসে পাঠান। গতকাল দূতাবাস থেকে সেটি পাঠানো হয়েছে রাষ্ট্রপতির দপ্তরে। দেশের কোনো প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ এটিই প্রথম।

দায়িত্বের মেয়াদ শেষ হওয়ার দুই মাস ২০ দিন আগেই পদত্যাগ করলেন এস কে সিনহা নামে পরিচিত প্রধান বিচারপতি। প্রধান বিচারপতি পদত্যাগ করায় সংবিধানের ৯৫(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি একজন নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেবেন। ওই নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন করবেন। সংবিধানের ৯৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী এরই মধ্যে বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিয়া গত ৩ অক্টোবর থেকে এ দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের সংবাদ শোনার পর গতকাল দুপুরে বেইলি রোডে আইনজীবীদের এক অনুষ্ঠান দ্রুত শেষ করে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির দপ্তরে যান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। সেখান থেকে ফিরে গুলশানে নিজ বাসায় এক জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে তিনি প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের খবর গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। এর আগে রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নুল আবেদীন ওই খবর নিশ্চিত করেন গণমাধ্যমকে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, প্রধান বিচারপতি অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে প্রথমে ছুটি নেন। পরে বিদেশে চলে যান। সেখান থেকে পদত্যাগপত্র পাঠান। প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে বলে বিএনপি যে অভিযোগ তুলেছে সে সম্পর্কে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি ছুটিতে গেলে অভিযোগ করা হয়েছিল যে তাঁকে জোর করে ছুটি নিতে বাধ্য করা হয়েছিল। তিনি বিদেশ থেকে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। সেখানে কোনো ফোর্স পাঠানো হয়নি। তাহলে পদত্যাগে বাধ্য করা হলো কিভাবে?’ আইনমন্ত্রী বলেন, ‘পানি ঘোলা নয়, অত্যন্ত স্বচ্ছ। স্বচ্ছ পানিতে মাছ শিকার করা সহজ নয়। এ নিয়ে কেউ পানি ঘোলা করবেন না। ’ বিদেশ যাওয়ার সময় প্রধান বিচারপতি বলেছিলেন, তিনি সুস্থ আছেন—এ কথা উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, “প্রধান বিচারপতি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিয়েছেন। গণমাধ্যমে সেটা প্রকাশ হয়েছে। তাহলে তিনি কিভাবে বলেন, ‘আমি অসুস্থ নই। সুস্থ আছি’। ”

রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির পদত্যাগপত্র পাওয়া গেছে। সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে এ পদত্যাগপত্র পাঠানো হয়েছে। আজ (শনিবার) এটা পাওয়া গেছে। ’

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন গতকাল বিকেলে সমিতি ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রধান বিচারপতি পদত্যাগপত্র পাঠাতে বাধ্য হয়েছেন। এ কারণে আজকের এই দিনটি বিচার বিভাগের জন্য একটি কালো দিন। বিচার বিভাগের ওপর কালো থাবা। তিনি বলেন, ১৯৮২ সালে এরশাদ সরকারের আমলে একজন প্রধান বিচারপতি এজলাসে বসেই জানতে পারেন তাঁকে অপসারণ করা হয়েছে। ওই দিনটি যেমন বিচার বিভাগের জন্য কালো অধ্যায় হিসেবে রয়ে গেছে, ঠিক আজকের দিনটিও তেমনি।

প্রধান বিচারপতি শুক্রবার কানাডার উদ্দেশে সিঙ্গাপুর ছাড়ার সময় তাঁর পদত্যাগের খবর চলে আসে দেশে। তাঁর পারিবারিক সূত্র পদত্যাগের খবর নিশ্চিত করলেও সরকারি কোনো সূত্র গত রাত পর্যন্ত তা নিশ্চিত করেনি।
জানা গেছে, প্রধান বিচারপতি সিঙ্গাপুরে অবস্থান করে সেখানকার ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা করান। তিনি চার দিন ছিলেন ওই হাসপাতালে। এর আগেও তিনি ওই হাসপাতালেই চিকিৎসা করিয়েছেন। চিকিৎসার জন্য তিনি অস্ট্রেলিয়া থেকে গত ৬ নভেম্বর সিঙ্গাপুরে যান। চিকিৎসা শেষে তাঁর দেশে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু তিনি দেশে না ফিরে গত শুক্রবার সিঙ্গাপুরের স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় কানাডার উদ্দেশে সিঙ্গাপুর ছাড়েন। তিনি কানাডায় তাঁর ছোট মেয়ে আশা সিনহার বাসায় অবস্থান করবেন। এরপর সেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য সফরে যাবেন তিনি।

বিচারপতি এস কে সিনহা ২০১৫ সালের ১৭ জানুয়ারি দেশের ২১তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ নেন। ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত তাঁর প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্বে থাকার কথা ছিল।

বিচারপতি এস কে সিনহার জন্ম মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জের তিলকপুর গ্রামে ১৯৫১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি। তাঁর বাবা প্রয়াত ললিত মোহন সিনহা এবং মা ধনবতী সিনহা। বিচারপতি এস কে সিনহা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এলএলবি পাস করার পর ১৯৭৪ সালে সিলেট জেলা জজ আদালতে আইনজীবী হিসেবে পেশা শুরু করেন। ১৯৭৮ সালে হাইকোর্টে এবং ১৯৯০ সালে আপিল বিভাগে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। তিনি বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার আগে প্রখ্যাত আইনজীবী এস আর পালের জুনিয়র হিসেবে কাজ করেন। ১৯৯৯ সালের ২৪ অক্টোবর তাঁকে হাইকোর্ট বিভাগে এবং ২০০৯ সালের ১৬ জুলাই আপিল বিভাগে বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।


প্যারিস যাচ্ছেন না পূর্ণিমা

রাজধানীর মিরপুরে রিক্সা চালককে পিটিয়ে হত্যা


আরো পড়ুন...

যুদ্ধ বাধলে ইসরাইলকে মুুছে ফেলার হুঙ্কার ইরানের যুদ্ধ বাধলে ইসরাইলকে মুুছে ফেলার হুঙ্কার ইরানের
শেরপুর বাংলার রাম রহিম : দরজা বন্ধ করেই চলে নারীদের থেরাপি! শেরপুর বাংলার রাম রহিম : দরজা বন্ধ করেই চলে নারীদের থেরাপি!
আ’লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকাকে কুপিয়ে হত্যা আ’লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকাকে কুপিয়ে হত্যা
ইরানের পক্ষে ইউরোপের সব দেশ ইরানের পক্ষে ইউরোপের সব দেশ
মসজিদে নববীতে ইহুদি প্রবেশের অনুমতি দিলো সৌদি মসজিদে নববীতে ইহুদি প্রবেশের অনুমতি দিলো সৌদি
প্রেমিকের ফেসবুকে ছবি পোস্ট করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার! প্রেমিকের ফেসবুকে ছবি পোস্ট করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার!
ঘুমে ব্যাঘাত ঘটায় বাবাকে নির্মমভাবে খুন করলো ছেলে! ঘুমে ব্যাঘাত ঘটায় বাবাকে নির্মমভাবে খুন করলো ছেলে!
স্টুডিও’র অন্তরালে পর্ণো ভিডিও ব্যবসার অভিযোগে কুমারখালীর চরসাদীপুর থেকে ৩টি কম্পিউটার জব্দ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও কম্পিউটার বাজেয়াপ্ত স্টুডিও’র অন্তরালে পর্ণো ভিডিও ব্যবসার অভিযোগে কুমারখালীর চরসাদীপুর থেকে ৩টি কম্পিউটার জব্দ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও কম্পিউটার বাজেয়াপ্ত
স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট ছিলেন: হানিফ স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট ছিলেন: হানিফ
কুষ্টিয়া জেলা টেলিভিশন ক্যমেরাপার্সন এসোসিয়েশন (টিসিএ) জরুরী সভা অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়া জেলা টেলিভিশন ক্যমেরাপার্সন এসোসিয়েশন (টিসিএ) জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
যুদ্ধ বাধলে ইসরাইলকে মুুছে ফেলার হুঙ্কার ইরানের
শেরপুর বাংলার রাম রহিম : দরজা বন্ধ করেই চলে নারীদের থেরাপি!
আ’লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকাকে কুপিয়ে হত্যা
ইরানের পক্ষে ইউরোপের সব দেশ
মসজিদে নববীতে ইহুদি প্রবেশের অনুমতি দিলো সৌদি
প্রেমিকের ফেসবুকে ছবি পোস্ট করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার!
ঘুমে ব্যাঘাত ঘটায় বাবাকে নির্মমভাবে খুন করলো ছেলে!
স্টুডিও’র অন্তরালে পর্ণো ভিডিও ব্যবসার অভিযোগে কুমারখালীর চরসাদীপুর থেকে ৩টি কম্পিউটার জব্দ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও কম্পিউটার বাজেয়াপ্ত
স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট ছিলেন: হানিফ
কুষ্টিয়া জেলা টেলিভিশন ক্যমেরাপার্সন এসোসিয়েশন (টিসিএ) জরুরী সভা অনুষ্ঠিত
বগুড়ায় মসজিদে লক্ষাধিক টাকার চুরি
পলাশবাড়ীতে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নিয়েও ভেলকিবাজির অভিযোগ ॥ খতিয়ে দেখার কেউ নেই
তেঁতুলিয়াকে অন্যতম পর্যটন এলাকা গড়ার লক্ষে শোভাবর্ধন কাজের উদ্বোধন
স্ত্রীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে সৎ মেয়েকে ধর্ষণ,বাবার যাবজ্জীবন
মাদ্রাসার সুপারের দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ!!
মৌলভীবাজারে দলিল লেখক সমিতির মানববন্ধন ও স্বারকলিপি প্রদান
চাচির সাথে বাবার পরকীয়া দেখে ফেলাই কাল হলো ফরিদার
কুষ্টিয়ায় ২ জনের ফাঁসি, ৮ জনের যাবজ্জীবন
চাকুরি দেয়ার নামে প্রতারণা, ৬ প্রতারক আটক
কুষ্টিয়ায় ৩৭৬ বোতল ফেনসিডিলসহ ২জন আটক