শিরোনাম:
●   কাফন মিছিলের পর শাবিতে এবার গণঅনশনের ডাক ●   ●   কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? ●   কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে ●   ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ●   অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক ●   কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি ●   দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড ●   ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ●   আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
ঢাকা, সোমবার, ৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯

Bijoynews24.com
বৃহস্পতিবার, ২ নভেম্বর ২০১৭
প্রথম পাতা » অনিয়ম-দুর্নীতি | খুলনা | বক্স্ নিউজ | শিরোনাম » ঝিনাইদহে ২৪ ঘন্টায় সিভিল সার্জনের তেলেসমাতি কৌশলে লাইসেন্স পাওয়া যাচ্ছে!
প্রথম পাতা » অনিয়ম-দুর্নীতি | খুলনা | বক্স্ নিউজ | শিরোনাম » ঝিনাইদহে ২৪ ঘন্টায় সিভিল সার্জনের তেলেসমাতি কৌশলে লাইসেন্স পাওয়া যাচ্ছে!
বৃহস্পতিবার, ২ নভেম্বর ২০১৭
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ঝিনাইদহে ২৪ ঘন্টায় সিভিল সার্জনের তেলেসমাতি কৌশলে লাইসেন্স পাওয়া যাচ্ছে!

---ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডা: রাশেদা সুলাতানার তেলেসমাতি কারবার ফাঁসের ঘটনায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে তিনি মাত্র ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে শৈলকুপার শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপেক্স এর লাইসেন্স এর সার্বিক কাগজপত্র সম্পন্ন করেছেন। এ ব্যাপারে ডা: রাশেদা সুলাতানা বলেন, তার স্বাক্ষর, সীল জালিয়াতি করে কেউ কাগজপত্র তৈরি করলে তার দায়ভার সিভিল সার্জনের নয়। তবে রেজিষ্ট্রারের স্মারক, ডকেট ও শৈলকুপার শামীম হাসপাতালের নামে অফিস ফাইল দেখাতে তিনি সাংবাদিকদের নিকট অপরাগতা প্রকাশ করেন। লিখিত অভিযোগ ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত ১৩-০৩-২০১৭ তারিখে শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপেক্স এর মালিক শাহিন আক্তার মহা-পরিচালক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বরাবরে লাইসেন্স পাওয়ার জন্য সিভিল সার্জনের মাধ্যমে আবেদন করেন। সিভিল সার্জন রাশেদা সুলতানা মহা-পরিচালক বরাবরে আবেদনটি না পাঠিয়ে এবং মহাপরিচালকের অনুমতিপত্র ছাড়াই পরদিন ১৪-০৩-২০১৭ইং তারিখে স্মারক নং-সিএসঝি/শা-৩/২০১৭/৫৭৮ এর প্রেক্ষিতে ১৬-০৩-২০১৭ তারিখে প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের চিঠি করেন। তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, মহাখালী, ঢাকার স্মারক নং স্বাঃ অধিঃ/ হাসঃ/প্রাইভেট ক্লিনিক/২০১৬/১৯৬ তারিখ-০৫-০১-১৭ ব্যবহার করেন। যেখানে আবেদনই করা হয়েছে ১৩/০৩/২০১৭ সেখানে দুই মাস পূর্বের ০৫/০১/১৭ এর আবেদনের প্রেক্ষাপট রহস্যজনক বলেই আপাতদৃষ্টে মনে হয়। এছাড়া ১৬-০৩-২০১৭ তারিখে ক্লিনিক পরিদর্শন টিম আবেদনে শুধুমাত্র তানিশা (প্রা:) ক্লিনিকের নাম পরিবর্তনের উলেখ করলেও মহা-পরিচালক বরাবরে স্মারক নং- সিএসঝি/শা-৩/২০১৭/৬০৮/১ এর চিঠিতে সনোপাস ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামের একটি ভূয়া প্রতিষ্ঠানের নাম জুড়ে দেওয়া হয় যা শৈলকুপাতে নাই। এর পর ২৯-০৩-২০১৭ তারিখে ৮২১০ নং লাইসেন্সটি ইস্যু করা হয় শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপেক্স এর নামে, যার মেয়াদ ছিল ৩০-০৬-২০১৭ পর্যন্ত।

এছাড়াও শাহিন আক্তার আদালতে একই তারিখে ইস্যু করা শামীম হাসপাতালের নামে ১৩৭৫ নং লাইসেন্সটির মালিক হিসেবেও দাবি করেছেন। সচেতন মহলের জিজ্ঞাসা একই প্রতিষ্ঠানের নামে ২টা লাইসেন্স কারন ও উদ্দেশ্য কি ? প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে সিভিল সার্জন বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করলেও তিনি কোন কর্ণপাত করেন নাই বরং নিয়মনীতি উপেক্ষা করেই চলছে শৈলকুপার শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স। শামীম হাসপাতালের কোন সেক্টরে প্রয়োজনীয় ডিপোমাধারী নেই, সার্বক্ষনিক ডাক্তার নেই, অগ্নিনির্বাপক লাইসেন্স নেই এমনকি বৈধ বিদ্যুৎ সংযোগও নেই। তবে প্রতিষ্ঠানটির মালিক শাহিন আক্তারের নেপথ্য শক্তির উৎস কোথায় জানতে চায় শৈলকুপার সুধি মহল। তার রয়েছে ২টা টিন নম্বর, নামে বেনামে কয়েকটা ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার। জরিপ বিশ্বাস ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক শাহিন আক্তার এর বিভিন্ন জালজালিয়াতির বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও রয়েছে একাধিক। রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে চলা প্রচুর বিত্ত বৈভবের মালিক সম্প্রতি শৈলকুপার কবিরপুর মোড়ের মোলা টাওয়ারে গড়ে তুলেছেন যথাযথ কাগজপত্রহীন শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপেক্স, যার নেপথ্যে শক্তির আধার হিসেবে জেলা সিভিল সার্জন কর্মকর্তা রাশেদা সুলতানা ও বিশেষ সহকারি নজরুল ইসলাম কাজ করছেন বলে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে এর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ব্যাপারে ডা: রাশেদা সুলাতানা বলেন, তার স্বাক্ষর, সীল জালিয়াতি করে কেউ কাগজপত্র তৈরি করতে পারে, তাছাড়া ১৩-০৩-২০১৭ তারিখে মহা-পরিচালক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বরাবরে আবেদন করে ১৪-০৩-২০১৭ইং তারিখেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আদেশ ছাড়া ১৬-০৩-২০১৭ তারিখে অডিট টিম গঠন, ১৯-০৩-২০১৭ তারিখে আদেশ ও ২৯-০৩-২০১৭ তারিখে শামীম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপেক্স এর নামে ইস্যু করা ৮২১০ নং লাইসেন্সটি অনেকটা রাতের আঁধারের মতই মনে হয়। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে রেজিষ্ট্রারের স্মারক, ডকেট ও শামীম হাসপাতালের অফিস ফাইল দেখাতে তিনি সাংবাদিকদের নিকট অপরাগতা প্রকাশ করেন।

ঝিনাইদহে লেখাপড়ার নামে জমে উঠেছে কোচিং ও প্রাইভেটের রমরমা বানিজ্য

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহে প্লেগ্রুপ থেকে একেবারে সবোর্চ্চ পর্যন্ত প্রাইভেট ও কোচিং সেন্টার ছাড়া অভিভাবকদের আর কোন গত্যন্তর নেই। জেলার কোচিং সেন্টারগুলো অভিভাবকদের আষ্টেপৃষ্টে বেধে ফেলেছে বলে অভিভাবকদের পক্ষ থেকেই এখন বলা হচ্ছে। ঝিনাইদহ শহরের অধিকাংশ অভিভাবকরা জানিয়েছেন, সুষ্ঠু লেখাপড়ার চর্চাকে পাশ কাটিয়ে কোচিং সেন্টারগুলো বর্তমানে কোন অভিভাবকের কাছ থেকে বেশি টাকা হাতিয়ে নেয়া যাবে। সেই ফন্দি ফিকিরেই ব্যস্ত। জানাগেছে, সরকারের কোন সুনির্দিষ্ট নীতিমালা না থাকার কারণেই ঝিনাইদহ শহরের আনাচে কানাছে অলিতে গলিতে গড়ে উঠছে বিভিন্ন নামের কোচিং সেন্টার। লেখাপড়ার চর্চাকে ব্যবসার ফাঁদ হিসেবে চিহ্নিত করে প্রায় অধিকাংশ কোচিং সেন্টার কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে প্রতারনা করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন অভিভাবক ত্যাক্ত-বিরক্ত হয়ে সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন। কোচিং সেন্টারগুলো এমনি জিনিস যেখানে ঢোকার রাস্তা আছে কিন্তু বেরুবার পথ নেই। ফলে দেখা গেছে, লক্ষ লক্ষ টাকা গচ্ছা দিয়েও সবশেষে যা ছিল তাই আছে কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থী। ঝিনাইদহ শহর এবং শহরতলীর সচেতন মহলবাসীরা জানান, যে ছাত্র মেধাবী, সে বাসায় লেখাপড়া করে অখ্যাত স্কুল থেকেই স্ট্যান্ড করে বেরিয়ে যাচ্ছে। তার জন্য কোন কোচিং এর প্রয়োজন পড়ে না। সচেতন মহলবাসীরা আরও জানান, বর্তমান সৃজনশীল প্রশ্ন পত্রের দোহাই দিয়ে কোচিং সেন্টারের মালিকরা তাদের অর্থনৈতিক ফায়দা লুটার  জন্য কোমলমতী ছাত্র-ছাত্রীর মগজে ঢুকিয়ে দিচ্ছে যে, লেখাপড়া বর্তমানে কঠিন হয়ে গেছে এজন্য কোচিং সেন্টারে ভর্তি হওয়া অতি আবশ্যক। কিন্তু সচেতন মহলের ধারণা, সৃজনশীল লেখাপড়ার বিষয়বস্তু কিংবা প্রশ্নপত্র যদি হার্ডই হতো তাহলে যারা শিক্ষা নীতির মাঝে সৃজনশীল প্রশ্ন পত্র ঢুকিয়ে দিয়েছেন তারা নিশ্চয়ই বেকুব নন।

এছাড়া সৃজনশীল প্রশ্ন পত্রের  কিংবা বিষয়বস্তুর  জন্য শিক্ষার্থীদের স্কুল রয়েছে। সেই সরকারি বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরাও নিশ্চয়ই বেকুব নন। সচেতন মহল দাবি করে জানান, ঝিনাইদহের কোচিং সেন্টারগুলো ফায়দা লুটার এটি একটি প্রক্রিয়া। যাতে অভিভাবকরা কোন পথ না পেয়ে কাঁচা পয়সা ঢেলে তাদের সন্তানদের সারাদিনই কোচিং সেন্টারে বসিয়ে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন। একটি সূত্র উল্লেখ করেছে, ঝিনাইদহের অধিকাংশ সরকারী-বেসরকারী স্কুলের শিক্ষকরা নিজেরাই একেকটি কোচিং সেন্টার খুলে বসেছেন সেই সাথে বাধ্যতামূলক ঘোষনা করে দিয়েছে, তাদের কোচিং সেন্টারে ছাত্র ভর্তি করাতে হবে অন্যথাই স্কুল পরিক্ষায়ই নম্বর কম দিয়ে ফেইল করিয়ে দেয়া হবে। কি ভয়ঙ্কর কথা! অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, কোচিং সেন্টারের সাথে জড়িতরা সবাই কোন না কোন স্কুল কলেজের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িয়ে আছে। তারা হয় কোন সরকারী নয়তো বেসরকারী স্কুল কলেজের শিক্ষক। ফলে ঝিনাইদহ শহরের প্রধান প্রধান সড়ক থেকে সমস্ত গলি-উপগলিতে নাম কা ওয়াস্তে শোভা পাচ্ছে শুধু কোচিং সেন্টারের সাইনবোর্ড। কারা এর শিক্ষক? কারা এর ছাত্র? কোন কিছুই বোধগম্য নয়। দেখা গেছে, কোচিং সেন্টারের সাথে জড়িয়ে গিয়ে এই শিক্ষকরা এক সময় স্কুলই খুলে বসেছেন। এর কোন রাজস্ব কর দিতে হয় কি না সেটাও অজ্ঞাত। একসময় ডাক্তারদের পয়সা ওয়ালা বলে সম্বোধন করা হয় এখন ডাক্তারদের পাশাপাশি কোচিং সেন্টারের মালিকদের পয়সা ওয়ালা বলে অভিহিত করা হচ্ছে যা বর্তমানে জেলা জুড়ে ট্যক অব টাউন বলে পরিচিতি পাচ্ছেন।

জানাগেছে, কোচিং সেন্টারের মালিকরা শহরের এবং শহরতলী এলাকা গুলোতে জমির ব্যবসা শুরু করেছেন। পাশাপাশি বিভিন্ন ডেভোলোপিং কোম্পানীর সাথে শেয়ারে ব্যবসা করে যাচ্ছে। নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, বছরশেষে কোচিং ব্যবসার লভ্যাংশ কোটি টাকার উর্ধ্বে ছাড়িয়ে যায়। অনুসন্ধান করে আরো জানা গেছে, কিছু দিন আগেও ঝিনাইদহের সরকারী ও বেসরকারী স্কুলের শিক্ষকরা সম্মিলিতভাবে নিজেরাই একটি কোচিং সেন্টার খুলেছেন এবং তাদের স্কুলের পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদের তাদের কোচিং সেন্টারে ভর্তি হবার জন্য উদ্ধুদ্ধ করছে। আরো জানা গেছে, ঝিনাইদহ শহরের অগনিত কোচিং সেন্টারের কারনে সরকারী বেসরকারী নামকরা স্কুলগুলো ক্রমেই অন্তঃসার হয়ে পড়ছে। একদিকে স্কুল অন্যদিকে কোচিং সেন্টারের চাপ সহ্য করতে না পেরে প্রায় শিক্ষার্থীরাই মানসিক অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এদিকে পাড়ায় মহল্লায় প্রায় প্রতিদিন একটি করে কোচিং সেন্টার তৈরী হবার ফলে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া বর্ণনা করে এলাকাবাসী জানান, ছোট ছোট খুপড়ি ঘরের মধ্যে অবর্ণনীয় ভাবে গাদাগাদি করে বসে সেখানে শিক্ষার্থীরা কি লেখা পড়া শিখছে। কোচিং সেন্টারের অধিকাংশ শিক্ষকদের পাঠদান পদ্বতি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন একাধিক অভিভাবক। তারা জানান, রাতেও কোচিং করানো হচ্ছে। এতে কি সবাই একযোগে শিক্ষিত হয়ে পড়ছে ? যা নিয়ে ঝিনাইদহ জেলা জুড়ে ব্যাপক ভাবে আলোচিত হচ্ছে। এদিকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সচেতন মহল জানান, মন্ত্রণালয় কর্তৃক ছাত্র-ছাত্রীদের মেধা বাঁচাতে ঝিনাইদহের কোচিং সেন্টারগুলো যথাদ্রুত বন্ধ করে সিলগালা করা অত্যন্ত জরুরী।



এ পাতার আরও খবর

কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ? কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’ ‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কুষ্টিয়ায় পরিবেশ বান্ধব জিকজাক ইট ভাটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওরা কারা ?
কুষ্টিয়ার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নবাসী তাদের প্রিয় নেত্রী সম্পা মাহমুদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে
ঢাকাসহ সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি
অবশেষে ‘‘সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুুর’’ (গড়াই সেতু) টোলে পে-অর্ডারর জাতিয়াতির টাকা ফেরৎ দিল ব্যাংক
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মশাল প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি
দৌলতপুরে কৃষি, ব্যাংক কর্মকর্তার ১৩ বছরের কারাদণ্ড
‘একটি গোষ্ঠী ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়’
আবরারের মাও যেন বলতে পারে, ‘ন্যায়বিচার পেয়েছি
সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে সংখ্যালঘুদের ৮ দফা দাবি
আজ বিআরবি কেবল ইন্ড্রাষ্টিজ লিমিটেড এর ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী
কুষ্টিয়া জেলা প্রেসক্লাবের অভিনন্দন
মণ্ডপে হামলা : উস্কানিদাতা ইসলামিক বক্তা গ্রেপ্তার
প্রেমিককে স্বামী বানিয়ে প্রবাসীর সম্পদ লিখে নেন সাকুরা
আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম
তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে সাঈদ খোকনের চ্যালেঞ্জ ইসলাম ত্যাগ করেন, দুই দিনও মন্ত্রী থাকতে পারবেন না
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আপত্তিকর অবস্থা থেকে পালাতে গিয়ে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে যুবকের মৃত্যু
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির নবনির্বাচিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ ও শপথ অনুষ্ঠিত
চিলাহাটি গার্লস্ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের প্রদায়ন ও নবাগত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত
স্বামী বিদেশে নেওয়ার আগেই রাতের আধারে প্রেমিকের সঙ্গে পালালেন স্ত্রী