ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮, ৮ আষাঢ় ১৪২৫
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » বগুড়ায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গনধর্ষন, ৫ মাসের অন্তসত্বা
বুধবার ● ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

বগুড়ায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গনধর্ষন, ৫ মাসের অন্তসত্বা

---জেলা প্রতিবেদক :

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে তুলে নিয়ে গনধর্ষনে ৫ মাসের অন্তসত্বা হওয়ার ঘটনায় অবশেষে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের কামারগাঁ ছাতিয়াগাড়ী গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। তবে এঘটনায় মামলা দায়েরের ৫ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত অভিযুক্তদের কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষা ও আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দী সম্পন্ন করেছে। ঘটনাটি ধামাচাপা ও মামলা মিমাংসার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় ইউপি সদস্যা মাজেদা বেগম ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক সহ গ্রাম্য মাতব্বররা। এনিয়ে স্থানীয়দের মাঝে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অভিযুক্ত ও ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না কেউ। এমনকি স্থানীয় গনমাধ্যম কর্মীরাও রহস্যজনক কারনে নিরব রয়েছেন।

সরেজমিনে গিয়ে মামলার বিবরনে ও স্থানীয়রা জানান, দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের ছাতিয়াগাড়ী গ্রামের দিনমজুর শহিদুলের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়ে (১৪) গত ২৫ এপ্রিল সকালে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে একই এলাকার প্রবাসী শামছুর রহমানের লম্পট ছেলে নাঈম ও এমদাদুলের ছেলে নাহিদুল সহ ৫/৭ জন বখাটে ঐ প্রতিবন্ধী কিশোরীকে জোরপৃর্বক তুলে নিয়ে বাড়ির পাশ্বে জঙ্গল ঘেরা ভাঙা বাড়িতে (ভূতের বাড়ি) পালাক্রমে গনধর্ষন করে।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনাটি জানাজানি হলে প্রবাসী শামছুরের অর্থের দাপটে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাকের তৎপরতায় বিষয়টি ধামাচাপা দেয়। এরপর ধর্ষিতা অন্তসত্বা হলেই এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। অবশেষে গত ৭ সেপ্টেম্বর লম্পট ধর্ষক নাইম ও নাহিদুলকে অভিযুক্ত করে দুপচাঁচিয়া থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (৩) ধারায় ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে মামলা (নং- ৭) দায়ের করেন। অভিযুক্তরা পলাতক থাকায় এখন পর্যন্ত কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, গনধর্ষনের ঘটনায় জোবায়ের, আরিফুল সহ অনেকেই সম্পৃক্ত থাকলেও রহস্যজনক কারনে তাদেরকে ছেড়ে শুধুমাত্র দুইজনকে মামলার আসামী করা হয়েছে। যেকারনে স্থানীয় জনতার মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। থানা পুলিশকে নিয়েও চলছে সমালোচনা।

ধর্ষিতার চাচা হবিবর রহমান বলেন, ধর্ষিতা পিতা ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত। সে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে ভিক্ষাবৃত্তি করে চিকিৎসা খরচ চালিয়ে নেন। ধর্ষিতার মা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী। তিনি অন্যের বাড়িতে বুয়ার কাজ করেন। স্বামী-স্ত্রী দুজনই সকাল সকালেই কাজে বেড়িয়ে যান। তাদের বাড়িতে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়ে ও এক শিশু ছেলে থাকে। প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার দিন সকালে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে তুলে নিয়ে গনধর্ষন করেছে লম্পটেরা। তবে এবিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি সদস্যা মাজেদা বেগম ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক বিষয়টি এড়িয়ে যান।

মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা থানার ওসি (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম জানান, ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী মেয়েটি ২০ সপ্তাহের অন্তসত্বা। দেড়িতে মামলা দায়ের করায় অভিযুক্তরা নাগালের বাইরে চলে গেছে। মামলার তদন্ত চলছে। তবে আসামী গ্রেফতারে জোর প্রচেষ্টা চলছে। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত কেউই রেহাই পাবেনা। আসামী যেই হোক তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

বগুড়ায় দাদন ব্যবসায়ী শিমুলসহ গ্রেফতার ৩

---জেলা প্রতিবেদক :

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় দাদন ব্যবসার অভিযোগে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) উপজেলা চেয়ারম্যান আহসানুল তৈয়ব জাকিরের জ্যাঠাতো ভাই শিমুল আকন্দ ও তার দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে। বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বরিয়াহাট স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক রওশন আরা নারগিছ ও সোনাতলা উপজেলার দক্ষিন চরপাড়া সারকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহিদুল ইসলামের পৃথক মামলায় সোমবার রাতে তাদের উপজেলা সদর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

শিমুল আকন্দ উপজেলা সদরের কাবিলপুর গ্রামের মৃত ছামচুদ্দিন আকন্দের ছেলে। এছাড়াও দাদন ব্যবসার আটক তার দুই কর্মচারি জুলফিকার মাহমুদ লিটন (৪৮) এবং নুরনবী ওরফে বজলু (৪৬)। মঙ্গলবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।

দাদন গ্রহীতা শাহিদুল ইসলাম বলেন, ২০০৮ সালে দাদন ব্যবসায়ী শিমুল আকন্দের কাছ থেকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা দাদন নেন। এসময় তার বেতনের চেক বই দাদন ব্যবসায়ীকে দেন। এরপর থেকে ২০১৭ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত তার বেতনের ১৬ লাখ ৭৭ হাজার ৯৮৬ টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে। এরপরেও আরও বিভিন্ন জায়গা থেকে ধার দেনা করে টাকা পরিশোধ করার পরও টাকা শোধ হয়নি বলে আবার নতুনভাবে টাকা নেওয়ার ফন্দি করে। এ কারণে সোমবার শিমুল আকন্দ ও তার কর্মচারী জুলফিকার রহমান লিটনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। এই মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বগুড়ার সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শরিফুল ইসলাম বলেন, ডিবি পুলিশের সহযোগীতায় আসামিদের গ্রেফতার করে মঙ্গলবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজার পৌঁছেছেন ৪০ দেশের প্রতিনিধি

গোবিন্দগঞ্জে পিস্তল-গুলিসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
উচ্ছ্বসিত বুবলী
ক্রোয়েশিয়ার গোল উৎসব, গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কায় আর্জেন্টিনা
ময়মনসিংহে মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত ২
শ্বাসরুদ্ধকর অপেক্ষা
নতুন সেনা প্রধান লে.জে. অাজিজ অাহমেদের বর্নিল জীবন
যে যুবতী ফুটবল মাঠে পোশাকের তোয়াক্কা করেন না
ফুলবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারীদের হাতে : দেখার কেউ নেই
আনুষ্কার সঙ্গে সম্পর্ক, মুখ খুললেন প্রভাস
৪ মিনিটে মিশরের জালে আরো ২ গোল রাশিয়ার
প্রচারণায় কেন্দ্রীয় নেতারা উত্তেজনা বাড়ছে
অপরিবর্তিত বন্যা পরিস্থিতি : কুশিয়ারা নদীর বাঁধে নতুন করে ভাঙ্গন : শহর রক্ষা বাঁধ সংস্কারে কাজ শুরু
গাইবান্ধায় মাদক বিরোধী অভিযানে : গ্রেফতার ৭
খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ বৃহস্পতিবার
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষাৎ
পর্যটকের ভীড়ে মুখর পাহাড় ঘেরা বান্দরবান!
জাপানের ঐতিহাসিক জয়
২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রীকে গনসংবর্ধনা দেওয়া হবে
কুতুবদিয়া থানার সাবেক ওসি আলতাফ জেলহাজতে
ড. মোশারফের গাড়িবহরে বাসের ধাক্কা, ছাত্রদল নেতা নিহত
উখিয়ায় ক্যাম্পে রোহিঙ্গা নেতাকে গলাকেটে হত্যা