শিরোনাম:
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৪
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ও ভেড়ামারা ভুমি অফিসের অনিয়ম
সোমবার ● ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ও ভেড়ামারা ভুমি অফিসের অনিয়ম

---ইমরানুল ইসলাম রাহাত, কুষ্টিয়া ,১১ সেপ্টেম্বর :
কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ও ভেড়ামারা ভুমি অফিসে জমির নামজারির ব্যাপক দূনীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। জমির নামজারি করতে সরকার-নির্ধারিত ফি ১ হাজার ১৫০ টাকা। কিন্তু নেওয়া হচ্ছে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা। অতিরিক্ত টাকা না দিলে দিনের পর দিন ঘুরলেও মেলে না সেবা। সম্প্রতি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ও ভেড়ামারা উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে সরেজমিনে এ চিত্র পাওয়া গেছে।
জানতে চাইলে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, ভূমি কার্যালয়ে সেবার ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম সহ্য করা হবে না। অভিযোগ পেলেই তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
দৌলতপুর ও ভেড়ামারা ভুমি অফিসে সরেজমিনে যেয়ে দেখা যায়, এই অনিয়ম আর দূনীতির চিত্র। কয়েকজন সেবা গ্রহীতা অভিযোগ করে জানান, তারা জমির নামজারির জন্য এসেছেন। আবেদন জমা দিয়েছেন ভূমি কার্যালয়ের এক ব্যক্তির মাধ্যমে। দুই দিন পর স্লিপ দেওয়ার কথা। খরচের ব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, স্লিপ হাতে পাওয়ার পরই কার্যালয়ের ওই ব্যক্তি বলে দেবেন কত টাকা লাগবে। তবে যত দ্রুত কাগজ নিতে চাইবেন, টাকা তত বেশি দেওয়া লাগবে।
দৌলতপুর উপজেলার বড়গাংদিয়া থেকে আসা এক ব্যক্তি অতিরিক্ত টাকা দেওয়ার কথা নিশ্চিত করেন। তিনি ১০ শতক জমির নামজারি করতে এসেছিলেন। বড়গাংদিয়া ইউনিয়নের ভূমি কর্মকর্তা (তহশিলদার) তাঁর কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা নিয়েছেন। অতিরিক্ত টাকার কোনো রসিদ তাঁকে দেওয়া হয়নি।
চিলমারী এলাকা থেকে আসা এক ব্যক্তি বলেন, ২০ দিন আগে তিনি আবেদন দিয়েছেন। তবে এখনো কাজ হয়নি। তিনি সরকার-নির্ধারিত ১ হাজার ১৫০ টাকাই জমা দিয়েছেন। অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় তাঁকে ঘোরানো হচ্ছে।
সেবা নিতে আসা লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দৌলতপুর ভূমি কার্যালয়ের কয়েকজন অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী এই বাড়তি অর্থ আদায়ের সাথে জড়িত। অফিস সহকারী রঞ্জিত কুমার, নাজির আবদুর রাজ্জাক ও অফিস সহায়ক আফসানা বেগম সেবা নিতে আসা লোকজনকে ম্যানেজ করেন। ইউনিয়নগুলোর তহশিলদাররাও লোকজনকে জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। তাঁরা সাধারণত নাম খারিজের একটা ফাইল প্রস্তুত করতে ২০০ থেকে ১ হাজার টাকা দাবি করেন।
নাম খারিজে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তৌফিকুর রহমান। তিনি বলেন, ‘শুনেছি, তবে কে কখন কোন কর্মকর্তাকে টাকা দিচ্ছে, এ ধরনের কোনো প্রমাণ পাচ্ছি না। বিষটি নিয়ে আমি খুবই কঠোর অবস্থানে আছি।’

ভেড়ামারা উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে যেয়ে দেখা যায় একই চিত্র। প্রায় দেড় বছর আগে এই কার্যালয়ে লাগানো ১০টি সিসি ক্যামেরার মাত্র দুটি এখন সচল আছে, যা কাগজপত্র রাখার কক্ষে বসানো। যেসব কক্ষে কর্মকর্তারা বসেন, সেগুলোর সব ক্যামেরা নষ্ট ও অন্যদিকে ঘোরানো।
এই প্রতিবেদক কার্যালয়ের খারিজ সহকারী নারায়ণ চন্দ্রের কাছে যান। আগমনের কারণ জেনে নেওয়ার পর তিনি বললেন, ‘নাম খারিজে সরকারি মূল্য ১ হাজার ১৫০ টাকা। আর যারে যেমন পারেন দেবেন।’
কার্যালয়ে সেবা নিতে আসা ধরমপুর ইউনিয়নের এক বাসিন্দা বলেন, জমির নামজারি মানে বড় একটা ঝামেলা। সরকারি খরচের দ্বিগুণ টাকা দেওয়া লাগে।
এই কার্যালয়ে চার মাস ধরে ভূমি সহকারী কর্মকর্তা নেই। ভেড়ামারার ইউএনও মিজানুর রহমান অতিরিক্ত দায়িত্বে আছেন। সপ্তাহে এক দিন পুরোটা ও বাকি প্রতি কার্যদিবসে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত সেখানে বসার কথা তাঁর। কিন্তু ওই দিন তাঁকে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে ইউএনও মিজানুর রহমান বলেন, এ ধরনের কোনো বিষয় তাঁর জানা নেই। কোনো কর্মকর্তা নির্ধারিত ফির অতিরিক্ত টাকা চাইতে পারেন না উল্লেখ করে ইউএনও এমন ঘটনা ঘটলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সরাসরি তাঁর কাছে অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ দেন। ইউএনওর কক্ষে বসে ছিলেন উপজেলার বাহাদুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশিকুর রহমান। ইউএনও তাঁকে দেখিয়ে বলেন, ‘চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞেস করতে পারেন ভূমি কার্যালয়ে কিছু হয় কি না।’ এ সময় আশিকুর বলেন, তাঁর এলাকার এক ব্যক্তি দালালকে নামজারি করতে সাড়ে ৩ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। কাজ না হওয়ায় তিনি সালিস ডেকে টাকা ফেরত নিয়েছিলেন। এমন তথ্য জানার পর ইউএনও চেয়ারম্যানকে বলেন, ‘আপনি আমারে বলেন নাই কেন?’
বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের প্রয়োজন বলে সুশীল সমাজ মনে করে।


মানবতা কাকে বলে বাংলাদেশ থেকে শিক্ষা নিন

কুষ্টিয়ায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় ১জন নিহত : আহত ৩


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
হোটেলে অভিযান, ১৪ তরুণীসহ ১৭ জনের কারাদণ্ড
কিশোরীকে ধর্ষণ-পরিচয় মোবাইলে
কুড়িগ্রামে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মোটরসাইকেল ৩ আরোহী নিহত
‘বাপ-ছেলে আমারে কামড়াইয়া-চিমড়ায়া কিছু রাখে নাই’- সৌদি প্রবাসী নারী
সিলেটে প্রেমের টানে বাড়ী থেকে পালিয়ে ধর্ষণের শিকার কিশোরী
ইয়াবার মামলায় পুলিশের এএসআই গ্রেপ্তার
কুষ্টিয়া=২ আসন( মিরপুর-ভেড়ামারা) : ইনুকে নিয়ে আওয়ামীলীগে ক্ষোভ : বিএনপিতে একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী
কুষ্টিয়ার বিত্তিপাড়ায় সত্য কুমার ১৫দিন নিখোজ
বরগুনার পাথরঘাটায় তরুনী ধর্ষণ শেষে হত্যা, নেপথ্যে ‘বড় ভাই’
দুই কুল হারিয়ে পথে পথে ঘুরছে পারভিন
সৌদি আরবে ২৪ হাজার অবৈধ অভিবাসী আটক
প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় ১ম দিন দেড় লাখ অনুপস্থিত
আইন-শৃংখলা উন্নয়নে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের যুগান্তকারী পদক্ষেপ ৮ মাসে বন্দুক যুদ্ধে ১১ চরমপন্থী নিহত : ৫৪ টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার
গাজীপুরে ঘুমন্ত শিশুকে পানিতে ফেলে হত্যা!
রিপা’র ও তার মায়ের ৪টি করে বিয়ে, নানীর বিয়ে ৮টি, ৩ খালার প্রত্যেকের ৩টি করে বিয়ে!
বগুড়ার শাজাহানপুরে রাষ্ট্রিয় মর্যাদা বঞ্চিত মরহুম মুক্তিযোদ্ধার শোকাহত পরিবারের প্রতি সাংবাদিকদের সমবেদনা
কুষ্টিয়ায় পুলিশের অভিযানের আটক-২৭
শীঘ্রই রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন চালু হচ্ছে
৪৫ দিনের মধ্যে খুলতে যাচ্ছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী রেশম কারখানা
এক জেলায় আট নারী ইউএনও!