শিরোনাম:
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৪
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » নীলফামারীর তিস্তার ভাঙ্গন আতঙ্গে ডাঁনতীরে অর্ধ-শতাধিক পরিবার
শুক্রবার ● ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

নীলফামারীর তিস্তার ভাঙ্গন আতঙ্গে ডাঁনতীরে অর্ধ-শতাধিক পরিবার

---রেজাউল করিম রঞ্জু,নীলফামারী প্রতিনিধি : তিস্তা পাড়ে তিস্তা নদীর পানি কমে গেলেও এখনও ভাঙ্গন আতঙ্গ কমেনি এই জনপদের মানুষের। গত কাল সরজমিনে তিস্তা সংলগ্ন ডানতীরে পূর্ব খড়িবাড়ী গ্রামের স্বপন তিস্তা রক্ষা বাধটি গিয়ে দেখা যায়, বাধটি ক্রমাগত ভাবে ধ্বসে গিয়ে নদী গর্ভে বিলীন হযে যাাচ্ছে। সেই সাথে ভাঙ্গন আতঙ্গে পড়েছে তিস্তার কিনারে বসবাসরত পরিবারগুলোর। এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নেই কোন ভাবনা। নেওয়া হয়নি কোন স্থায়ী পরিকল্পনা । জানা যায়, উজানের ঢলে গেল বন্যায় তিস্তার ডানঁতীরে তিস্তা রক্ষা স্বপন বাঁধটি ভেঙ্গে গিয়ে তিস্তাপাড়ের বসতঘর-বাড়ী নদী গর্ভে বিলীণ হলেও এখন ভাঁঙ্গন আতঙ্গে রয়েছে নীলফামারীর ডিমলায় টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের পূর্বখড়িবাড়ী গ্রামের প্রায় অর্ধ-শতাধিক পরিবার। এলাকাবাসী শুকুর আলী, জবেদা বেগম, আবেদা বেগম, রহিমা বেগম আলিম বেগম ও ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, তিস্তার ডাঁনতীরে স্বপন বাঁধটির প্রায় ৫’শ মিটার ধ্বসে গিয়ে ২৭টি পরিবারের বসতভিটা ও বাড়ীঘর নদী গর্ভে বিলীণ হয়ে যায়। নদীগর্ভে বিলীন হওয়া বাঁধটি ভাঙ্গন রোধে যদি স্পার কিংবা পাইলিং করা না হয় তাহলে তিস্তার পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে বাঁধটি আরো ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গ্রামের আরো প্রায় অর্ধ-শতাধিক পরিবারের বসতভিটাসহ বাড়ীঘর তিস্তার গর্ভে চলে যাবে। অপরদিকে ২৭টি পরিবারের বসতভিটা নদী গর্ভে চলে যাওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছে ভাঙ্গনের শিকার পরিবারের মানুষজন। যে কোন মূহুর্তে বসতভিটাসহ বাড়ীঘর বিলীণ হতে পারে আতঙ্গে দিনাতিপাত করছে নদীর কিনারে বসবাসরত এসব পরিবার। ভাঙ্গন আতঙ্গে বাড়ীঘর সরিয়ে নিতে দেখা গেছে বেশ কিছু পরিবাররের সদস্যদের। টেপাখড়িবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন জানান, ইতিমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্ত স্বপন বাঁধটি অব্যাহত ভাবে ধীরে ধীরে নদীগর্ভে চলে যাচ্ছে। তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেলেই নদীর কিনারে থাকা পরিবাগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়বে। তিনি বাঁধটি রক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড ডালিয়া বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে । নীলফামারী জেলা প্রশাসক খালেদ রাহীম জানান, বাঁধটি যাতে আর ভাঙ্গতে না পারে সে জন্য বালুর বস্তা ও সিসি ব্লক দিয়ে বাঁধটি রক্ষার ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য আমি পাউবো কর্তপক্ষকে বলেছি।

নীলফামারীতে গৃহকর্তাকে হত্যা করে ডাকাতি

রেজাউল করিম রঞ্জু,নীলফামারী প্রতিনিধি। নীলফামারীর ডোমারে অতুল চন্দ্র রায় (৬০) নামের এক বৃদ্ধ গৃহকর্তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে তার বাড়িতে ডাকাতি করেছে দূর্বৃত্তরা। অতুল চন্দ্র ওই এলাকার বিষ্টু রাম রায়ের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার বোগাড়াড়ি ইউনিয়নের নয়ানী বাগডোগড়া মাস্টারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী দেব বালা বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ে করেছেন।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, নিহতের মেয়ে দিপালি রানীর ছেলে (নাতি) সুমন চন্দ্র রায় (১৫) বলেন, দুপুরে আমার মামিকে আনতে তার বাবার বাড়ি ডিমলা উপজেলার ডালিয়ায় যায় নানী। দুপুর হতে নানা বাসায় একা ছিল। আমি সন্ধ্যা সাত টার সময় নানার সাথে ঘুমানোর জন্য সেখানে যাই। নানা বাড়ির বাইরের দরজা বন্ধ দেখে আমি নানাকে ডাকাডাকি করি।

কিন্তু কোন সাড়া না পেয়ে বাড়ির দেওয়াল পেরিয়ে ভিতরে ঢুকে দেখি বাইরের সব চেয়ার-টেবিল ছড়ানো-ছিটানো অবস্থায় পড়ে রয়েছে। ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে দেখি মুখে টেপ ও হাত শাড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় আমার নানা মেঝেেেত পড়ে আছে। আমি চিৎকার করলে আশপাশের সবাই এসে মুখের টেপ ও হাতের বাঁধন খুলে স্থানীয় একটি চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে গেলে ডাক্তার নানার মৃত্যু ঘোষনা করেন।

অতুল চন্দ্রের স্ত্রী দেব বালা আর্তনাত করে বলেন, বেয়াইর বাড়ীতে আমার স্বামীর মৃত্যু ও ডাকাতির খবর পেয়ে দ্রুত চলে আসি। আমি বাড়ীতে থাকবো না ও আমার স্বামী একাই বাড়িতে থাকবে একথা যারা জানে, তারাই হয়তো এ কাজ করেছে। তিনি বলেন, ঘরের সকল জিনিসপত্র তছনছ করে ৬৪ হাজার টাকা ডাকাতি হয়েছে।

রাতেই জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক চন্দ্র রায় ও থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো: মোকছেদ আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা বলেন, লাশ উদ্ধার করে জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে। দ্রুত হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা হবে।


ঝিনাইদহ জেলাব্যাপী অভিযানে ১’শ ৭৯ জন গ্রেফতার

ইসলামের সঙ্গে সৌদি রাজবংশের সম্পর্ক কী?


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
হোটেলে অভিযান, ১৪ তরুণীসহ ১৭ জনের কারাদণ্ড
কিশোরীকে ধর্ষণ-পরিচয় মোবাইলে
কুড়িগ্রামে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মোটরসাইকেল ৩ আরোহী নিহত
‘বাপ-ছেলে আমারে কামড়াইয়া-চিমড়ায়া কিছু রাখে নাই’- সৌদি প্রবাসী নারী
সিলেটে প্রেমের টানে বাড়ী থেকে পালিয়ে ধর্ষণের শিকার কিশোরী
ইয়াবার মামলায় পুলিশের এএসআই গ্রেপ্তার
কুষ্টিয়া=২ আসন( মিরপুর-ভেড়ামারা) : ইনুকে নিয়ে আওয়ামীলীগে ক্ষোভ : বিএনপিতে একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী
কুষ্টিয়ার বিত্তিপাড়ায় সত্য কুমার ১৫দিন নিখোজ
বরগুনার পাথরঘাটায় তরুনী ধর্ষণ শেষে হত্যা, নেপথ্যে ‘বড় ভাই’
দুই কুল হারিয়ে পথে পথে ঘুরছে পারভিন
সৌদি আরবে ২৪ হাজার অবৈধ অভিবাসী আটক
প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় ১ম দিন দেড় লাখ অনুপস্থিত
আইন-শৃংখলা উন্নয়নে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের যুগান্তকারী পদক্ষেপ ৮ মাসে বন্দুক যুদ্ধে ১১ চরমপন্থী নিহত : ৫৪ টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার
গাজীপুরে ঘুমন্ত শিশুকে পানিতে ফেলে হত্যা!
রিপা’র ও তার মায়ের ৪টি করে বিয়ে, নানীর বিয়ে ৮টি, ৩ খালার প্রত্যেকের ৩টি করে বিয়ে!
বগুড়ার শাজাহানপুরে রাষ্ট্রিয় মর্যাদা বঞ্চিত মরহুম মুক্তিযোদ্ধার শোকাহত পরিবারের প্রতি সাংবাদিকদের সমবেদনা
কুষ্টিয়ায় পুলিশের অভিযানের আটক-২৭
শীঘ্রই রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন চালু হচ্ছে
৪৫ দিনের মধ্যে খুলতে যাচ্ছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী রেশম কারখানা
এক জেলায় আট নারী ইউএনও!