ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট ২০১৭, ৫ ভাদ্র ১৪২৪
Bijoynews24.com
প্রথম পাতা » Slider » হরিণাকুন্ডুতে সড়ক নির্মানে ৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ের অনিয়ম নিজে চোখে দেখলেন ইউএনও
শনিবার ● ১২ আগস্ট ২০১৭
Email this News Print Friendly Version

হরিণাকুন্ডুতে সড়ক নির্মানে ৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ের অনিয়ম নিজে চোখে দেখলেন ইউএনও


---জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহ হরিণাকুন্ডু ভায়া ভালকী বাজার সড়ক নির্মানে ৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ের অনিয়মের কাজ নিজ চোখে দেখলেন হরিণাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনিরা পারভিন। এরপর তিনি কাজটি কাজ বন্ধ করে দেন। ইউএনও সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, হরিণাকুন্ডুর ইউপি চেয়ারম্যানদের অভিযোগের ভিত্তিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির লোকজন রাস্তাটি সরেজমিন তদন্ত করে অনিয়মের সত্যতা পেয়ে ঠিকাদারকে কাজ বন্ধ রাখতে বলেন। শনিবার হরিণাকুন্ডুর মথুরাপুর স্কুলে এক সমঝোতা সভায় ঠিকাদার ও সওজ কর্মকর্তারা ভুল স্বীকার করলে আবারো রাস্তার কাজ শুরু করতে অনুমতি দেন। ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সেলিম আজাদ খান জানান, ঝিনাইদহ শহরের চাকলাপাড়া থেকে হরিণাকুন্ডু হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত ২১.১৬৪ কিলোমিটার সড়টি বেহাল ছিল। রাস্তাটি টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ শুরু হয়েছে। বিভিন্ন গ্রুপে প্রায় ৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ে সড়কটি নির্মান করছেন আলমডাঙ্গার মল্লিকপুর এলাকার ঠিকাদার জহুরুল ইসলাম। তিনি জানান, ওই সড়কে কোন অনিয়ম হচ্ছে না। কেও কাজও বন্ধ করেনি।

অভিযোগ পাওয়া গেছে সড়কটি শুরুর পর থেকেই নি¤œমানের সামগ্রী ও সিডিউল মোতাবেক কাজ না করার অভিযোগ ওঠে। ফলে ঝিনাইদহ এলজিইডি ভবনের পাশের অংশের কাজ স্থানীয় সাবেক কমিনার তারিক বন্ধ করে দেন। এদিকে হরিণাকুন্ডু উপজেলার ৮ জন ইউপি চেয়ারম্যান গত ১০ আগষ্ট সমন্বয় কমিটির সভায় নি¤œমানের কাজ করার অভিযোগ করেন। নির্মান কাজ সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্ন করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম সাইফুজাজ্জামান তাজু, উপজেলা কৃষি অফিসার আরশাদ আলী, ইউপি চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান জোয়ারদার, ফজলুর রহমান ও গোলাম মোস্তফা। কমিটির সদস্য কাপাশহাটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান জোয়ারদার বলেন, আমরা সিডিউলি দেখে জানতে পারলাম পারমথুরাপুর নামক স্থানে রাস্তার কাজ অনিয়মের মাধ্যমে করা হচ্ছিল। সড়ক প্রসস্থকরণ ও গভীরতা কম করা হচ্ছিল। সিডিউল মোতাবেক সিলকোট বা অনুসাঙ্গক কাজ করা হচ্ছিল না।

ঠিকাদার ও সওজের কর্মকর্তারা তাদের ভুল স্বীকার করে সঠিক ভাবে কাজ করার আশ্বাস দিলে আমরা পুনরায় কাজ করার অনুমতি দিয়েছি বলে চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান জোয়ারদার জানান। কমিটির আরেক সদস্য উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম সাইফুজাজ্জামান তাজু জানান, রাস্তাটির নির্মান কাজ সরেজমিন পরিদর্শন করে আমরা অনিয়মের সত্যতা পেয়ে গত বৃহস্পতিবার কাজ বন্ধ করে দিই। শনিবার এক সমঝোতা বৈঠকে সুষ্ঠ ও নিয়ম মাফিক ভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিলে ঠিকাদার আবার কাজ শুরু করেন। এ সব বিষয়ে ঝিনাইদহ সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী সেলিম আজাদ খান বলেন, সওজের এসডি ও এসও শনিবারের সভায় উপস্থিত ছিলেন। আমাদের কোন ভুল নেই। তিনি বলেন, গহরিণাকুন্ডু উপজেলা সমন্বয় কমিটি যদি তদন্ত করে অনিয়ম পায় তবে আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করবো।


ঝিনাইদহে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য গ্রেফতার

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রাম থেকে টোকন (২৫) নামের এক আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার গভীর রাতে তাকে আটক করা হয়। আটক টোকন গোবিন্দপুর গ্রামের ইব্রাহিম মন্ডলের ছেলে। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কোটচাঁদপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রাম থেকে টোকনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। টোকন জঙ্গি সংগঠনের সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। তিনি আরো জানান, টোকন ফেসবুকে আবু তাসিম কাকা ছদ্ম নামে আইডি খুলে জঙ্গীবাদের স্বপক্ষে প্রচার চালাতো। তাকে মহেশপুরের বজরাপুর গ্রামের জঙ্গী অভিযান মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।


মহেশপুরে অস্ত্রসহ ডাকাত গ্রেফতার

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বজরাপুর জামতলা এলাকা থেকে রমজাদ আলী ওরফে রুজদার (৪০) নামে এক ডাকাতকে অস্ত্রসহ আটক করেছে পুলিশ। ১১ই আগষ্ট শনিবার ভোররাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর ক্যাম্পপাড়ার ইয়াকুব আলীর ছেলে। মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহম্মেদ কবীর হোসেন জানান, শনিবার ভোর ৫টার দিকে মহেশপুর থানার এস,আই সাইফুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বজরাপুর জামতলা নামক স্থান থেকে ডাকাত রমজান আলীকে আটক করে। পরে তার দেহ তল্লাশি করে একটি শার্টারগান উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে মহেশপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে আটক ২৬৬

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ

ঝিনাইদহে নাশকতা প্রতিরোধ, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী পুলিশের বিশেষ অভিযানে ২৬৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত জেলার ৬ উপজেলায় এ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, জেলা ব্যাপি সন্ত্রাস, নাশকতা বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে শুক্রবার রাত থেকে শনবিার সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে সদর থানা থেকে ১১৫ জন, হরিণাকুন্ডু থেকে ১১ জন, শৈলকুপা থেকে ১’শ ৯ জন, কালিগঞ্জ থেকে ১০ জন, মহেশপুর থেকে ১১ জন ও কোটচাঁদপুর থেকে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঝিনাইদহের নাটাবাড়িয়া গ্রামের“একঘরে”নাটকের শেষ দৃশ্য জমি জমা বিরোধ

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহ সদরের নাটাবাড়িয়া গ্রামের“একঘরে”নাটকের শেষ দৃশ্য ভাইয়ে ভাইয়ে জমি জমা বিরোধকে কেন্দ্র করে বলে এলাকাজুড়ে তোলপাড় হচ্ছে। টাকার জোরে ও জেদাজেদির বশিভুত হয়ে জোর করে আপন ভাইয়ের জমি দখল কারার চেষ্টা করছে হলিধানি ইউনিয়নের নাটাবাড়িয়া গ্রামের বারেক শেখ। একের পর এক হয়রানিমুলক মামলা দায়ের করছে আপন মেঝো ভাই আমিন শেখের বিরুদ্ধে। এনিয়ে হলিধানী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রশিদ মিয়া বার বার নোটিশ করলেও অজ্ঞাত কারণে হাজির হচ্ছেনা নাটাবাড়িয়ার গ্রামের বারেক শেখ। ঝিনাইদহ নাটাবাড়ীয়া গ্রামের মৃত ফকির মাহমুদ এর ৪ ছেলে। এর মধ্যে ছোট ছেলে কওসার মারা যায়। বর্তমানে তিন ছেলে বেঁচে আছে। এরা হলেন বড় ছেলে আবুল শেখ, মেঝো ছেলে আমিন শেখ ও সেজো ছেলে বারেক শেখ। জানা গেছে, হলিধানী ইউনিয়নের “নাটাবাড়িয়া গ্রামের একঘরে পরিবারকে জাতে তুলতে ১৫০ জনকে ভুড়িভোজ করানো হয়েছে” বিভিন্ন পত্র পত্রিকার শিরোনামের ঘটনা সম্পুর্ন বানোয়াট বলে দাবী করেছেন গ্রামবাসী। তারা জানিয়েছেন, গ্রামবাসীরা বিচারে জমি ফেরত নিয়ে ভাইকে দিয়ে দিবে এজন্যেই বারেক শেখ ভাইকে জব্দ করতে ও জমি ফেরত না দেয়ার ধান্দায় বারেক শেখ “একঘরে” নাটক করেছেন বলে সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে।

প্রতিবেশিরা জানায়, সেজো ভাই বারেক শেখ কৌশলবাজী ও টাকাওয়ালা, আর মেঝো ভাই আমিন শেখ দিন মুজুর। বড় ভাই আবুল শেখ ও বারেক শেখ মিলে সেজো ভাই আমিন শেখের জমি গ্রাস করতে বিভিন্ন সড়যন্ত্র করে চলেছে। শনিবারে সাংবাদিকদের নিকট আবুল শেখ ও বারেক শেখের অপকর্মের প্রতিবাদ জানায় গ্রামবাসি। ঝিনাইদহ হলিধানী ইউনিয়নের নাটাবাড়ীয়া গ্রামের ৫১৫ দাগে আমিন শেখ এর ১৩.৬৬ পয়েন্ট জমি জোর করে দখল করার চেষ্টা করছে বারেক শেখ। ৪১শতক জমি চার ভাইয়ের নামে রেষ্ট্রি করেন। এরমধ্যে ছোট ভাই মারা গেলে তার স্ত্রীর কাছ থেকে তিন ভাই মিলে তার অংশ ক্রয় করে। এরপর ৪১ শতক জমির মালিক হয় বাকি তিন ভাই ,আমিন শেখ, বারেক শেখ ও আবুল শেখ। বড় ভাই আবুল শেখ ১৩.৬৬ জমি বারেকের কাছে এওয়াজ করে নিয়েছে। আমিন শেখ তার জমি এওয়াজ না করে দেওয়ায় বারেক শেখ বিভিন্ন ভাবে মিথ্য মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। বড় ভাই আবুল শেখের ছেলে বাবলু শেখ জানান, আমার সেজো চাচার বাড়ীর জমি সমানভাবে আমাদের ও মেজো চাচাকে দেয়ার কথা। কিন্তু আমার সেজো চাচা মেজো চাচাকে না দিয়ে আমার পিতার নামে অর্ধেকেরও বেশী অংশ রেজিষ্ট্রি করে দেয়। এতে আমার মেঝো চাচা না মানায় গোলযোগের সৃষ্টি হয়।

বারেকের চাচাতো ভায়ের ছেলে গোলাম মস্তফা এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বারেক চাচা একটা মিথ্যাবাদী মার্কা মানুষ, সে কারো বিচার মানে না কারন এখন তার টাকা হয়েছে। যার জন্য বারেক শেখ মিথ্যা মামলা আর “একঘরে” নাটক করে আমিন চাচাকে চাপে ফেলে তার জমিটি মেরে দিতেই এত কৌশল করছে। গ্রামের বাসিন্দা আকরাম জানান, বারেক অন্যায় ভাবে টাকার জোরে আমিন শেখের নামে সন্ত্রাসী মামলা দিয়েছে। এই মিথ্যা মামালা করা উচিত নয়। জমি দখল করার চেষ্টা করার সঙ্গে সঙ্গে উল্টো তার নামে ৫টি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন। নাটাবাড়িয়া ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান জানান, আমিন শেখের জমি ফেরত দিতে আমরা কয়েক বার বারেক শেখকে বলেছি কিন্তু সে কারো কথাই কেয়ার করছে না। বরং কেউ যদি মিমাংসার কথা বলে তাকে মিথ্যা মামলার দেওয়ার হুমকি দেখায়। এদিকে হলিধানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আব্দুর রশিদ মিয়া জানান, বারেককে শালীশের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অনেক বার নোটিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তিনি স্থানীয় সরকারকে তোয়াক্কা না করে বারংবার আমিনের নামে মামলা করেই যাচ্ছেন। তিনি আরো জানান, আমিন শেখের নামে মিথ্যা মামলার ব্যাপারে মামলার তদন্ত পুলিশ কর্মকর্তার (আয়ুর) সাথে কথা হয়েছে। তাকে বলা হয়েছে এটি মিথ্য মামলা। কিন্তু তিনি বলেছেন এটা আদালতের ব্যাপার। তবে আমি প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করবো নিরপরাধ মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হয়। এ ব্যাপরে অভিযুক্ত বারেক শেখের সাথে কথা হলে তিনি জানান, মেঝো ভাই আমিন ও গ্রামবাসিরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। আমি কোর্টে মামলা করার কারনে ইউনিয়ন পরিষদের সালিশে যায়নি।


হারিয়ে যাচ্ছে শৈলকুপার কুমার নদের তীরে মুসলিম রেনেসাঁর কবি গোলাম মোস্তফার স্মৃতি

---জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা থেকে ৩ কিলোমিটার দূরে কুমার নদের তীরে মনোহরপুর গ্রাম। ১৮৯৭ সালে বাংলা সাহিত্যের প্রখ্যাত কবি গোলাম মোস্তফা শৈলকুপা উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের জন্ম গ্রহন করেন। এখানেই কবির ভিটাবাড়ী। কিন্তু অযতœ আর অবহেলায় হারিয়ে যেতে বসেছে বাংলা গদ্য সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ অবদান ‘বিশ্বনবী’ গ্রন্থের রচিয়তার জন্মভিটা। ১৯১৪ সালে শৈলকুপা হাইস্কুল  থেকে ম্যাট্রিকুলেশন এবং ১৯১৬ সালে খুলনা দৌলতপুর কলেজ থেকে আইএ পাশ করেন কবি গোলাম মোস্তফা। কোলকাতার রিপন কলেজ থেকে ১৯১৮ সালের বিএ পাশ করেন এবং ১৯২০ সালে ভারতের  চব্বিশ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর সরকারী হাইস্কুলে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্ম জীবন শুরু করেন। পরে ডেভিট হেয়ার ট্রেনিং কলেজ থেকে বিটি পাশ  করে প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি পেয়ে ফরিদপুর জেলা স্কুলে ১৯৪৬ সালে যোগদান করেন এবং ১৯৫০ সালে সরকারী চাকুরী হতে অবসর গ্রহন করেন তিনি। গীত রচনা, কাব্য, উপন্যাস, জীবনী অনুবাদ সহ বাংলা সাহিত্যের সকল শাখায় তার পদচারণা ছিল। ১৯১৩ সালে দশম শ্রেণীর ছাত্র থাকাবস্থায় ‘মাসিক মোহাম্মদী’ পত্রিকায় তার প্রথম লেখা ‘আদ্রিয়ানোপল উদ্ধার’ কবিতা প্রকাশিত হয়। কবি গোলাম  মোস্তফা ‘মুসলিম রেনেসাঁর কবি’ হিসাবে বাংলা সাহিত্যে বিশিষ্টতার দাবিদার বলে অখ্যায়িত।

কবি গোলাম মোস্তফার অন্যতম গদ্য সাহিত্য ‘বিশ্বনবী’ গ্রন্থখানি শ্রেষ্ঠ অবদান। ১৯৪৭ সালের প্রকাশিত হয় ইসলাম ও জ্বেহাদ, ইসলাম ও কম্যুনিজম গ্রন্থটি প্রকাশিত হয় ১৯৪৯ সালে। এছাড়া ১৯৪২ সালে ‘মরু দুলাল’ এবং ‘বিশ্বনবী’ ও এসময় প্রকাশিত হয়। এছাড়াও বেশ কয়েকটি নাটক ও বই রয়েছে তার রচিত। ,গ্রামের যুব সমাজ কবি গোলাম মোস্তফা স্মৃতিপাঠাগার ও সাংস্কৃতি সংঘ নামে সেখানে একটি সংগঠন গড়ে তুলেছে। জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে সেখানে একটি লাইব্রেরী করা হয়েছে। প্রতি বছর কবির জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কিছু অুনষ্ঠান হয়ে থাকলেও অযতœ আর অরক্ষিত অবস্থায় রয়ে গেছে কবির বসবাসের মূল পিতৃ ভিটাবাড়ি। কবির পিতৃ ভিটাবাড়িটি রক্ষায় সরকারী কিংবা বেসরকারী ভাবে কেহ এগিয়ে আসেনি। এই ভিটাবাড়িটি সহ কবির স্মৃতি ধরে রাখতে সরকারী কোন দৃষ্টি না পড়লেও শৈলকুপাবাসী তার স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য  মনোহরপুর ও পাশ্ববর্তী হিতামপুর গ্রামে কবির নামে ২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন করেছেন। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কবির বাড়িও স্মৃতি বিজড়িত বৈঠকখানা ও  গ্রাম দেখতে এসে ভোগান্তির স্বীকার হয় দর্শনার্থীরা।


ইবির ছাত্রী স্মৃতি ৪ দিন ধরে উধাও

গাইবান্ধায় ঈদ-উল আজহা উপলক্ষে যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ওরা ক্ষমতায় এলে ১ লক্ষ লোককে খুন করবে’
নিজের স্ত্রীকেই ছয়বার বিয়ে করে তুফান!
৩১টি করিডর খুলে দেওয়ায় ভারত সীমান্ত দিয়ে আসছে গরুর পাল
“ক্যাম্পাস ” ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন
হোটেলে নারীসহ ধরা পড়লো সমাজসেবা কর্মকর্তা
অন্তঃসত্ত্বার কারণেই রিয়া সেনের তড়িঘড়ি বিয়ে!
ন্যান্‌সির আক্ষেপ
ভারতে ট্রেন দূর্ঘটনায় ১০ জন নিহত, আহত ৩০
আজব এক দম্পতি
মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে : হাজ্বী রবিউল ইসলাম
গাইবান্ধায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত : করতোয়া নদীর পানি বেড়ে গোবিন্দগঞ্জে বন্যা
নওগাঁয় ছোট যমুনা নদীর ভাঙ্গা বাঁধ দিয়ে পানি প্রবেশ অব্যাহত: বন্যার পানিতে পড়ে ২ শিশুর মৃত্যু
১০ দিন পর বগুড়া থেকে ইবি শিক্ষার্থী উদ্ধার
বাংলাদেশ মানবাধিকার নাট্য পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন
চিরিরবন্দরে ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে কলেজ ছাত্র নিহত
পঞ্চগড়ে জমি দখল নিতে এ কেমন বর্বরতা!
নন্দীগ্রামে মাধবকুড়ি গ্রামে বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করলেন এমপি তানসেন
অপহরণের তিন‌দিন পর ক‌লেজ ছা‌ত্রের লাশ উদ্ধার : গ্রেফতার ১
তৃতীয়বারও ক্ষমতায় আসবে শেখ হাসিনা: ভারতীয় পত্রিকা
দক্ষিণবঙ্গের জালিয়াত চক্রের প্রধান জলিল হুজুর গ্রেফতার